কর্মসংস্থান কমেছে বাড়ছে বেকার

এ বছর এক লাখ বেড়েছে
অর্থনৈতিক প্রতিবেদক

দেশে কর্মহীন বেকার জনসংখ্যা বেড়েছে। জিডিপির হার প্রতি বছর বৃদ্ধি পেলেও কমেনি বেকারত্ব ও বেকার লোকের সংখ্যা। ২০১৫-১৬ অর্থবছরে দেশে ২৬ লাখ মানুষ বেকার ছিল। ২০১৬-১৭ সময়কালে সর্বোচ্চ ২৭ লাখ মানুষ বেকার ছিল। এতে বেকার মানুষের সংখ্যা এক বছরে বেড়েছে এক লাখ। বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর শ্রম জরিপ প্রতিবেদনে এসব তথ্য উঠে এসেছে। আজ মঙ্গলবার এই জরিপ প্রতিবেদনটি প্রকাশ করা হবে।
বিবিএস শ্রমশক্তিবিষয়ক প্রতিবেদনের (২০১৬-১৭) তথ্যানুযায়ী, ২০১৬-১৭ অর্থবছর শেষে দেশে ১৪ লাখ পুরুষ ও ১৩ লাখ নারী বেকার। ত্রৈমাসিক বেকারত্বের তথ্য বিশ্লেষণে দেখা যায়, গত বছর জানুয়ারি থেকে মার্চ পর্যন্ত বেকারত্বের হার সবচেয়ে বেশি ছিল। এ সময় সর্বোচ্চ ২৯ লাখ মানুষ বেকার ছিল। আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থার (আইএলও) মানদণ্ড ব্যবহার করে বেকারত্বের এই হিসাব করে বিবিএস। ওই মানদণ্ড অনুযায়ী সক্ষম জনগোষ্ঠী যারা সপ্তাহে অন্তত এক ঘণ্টাও কাজ করেন না, তাদের বেকার হিসেবে গণ্য করা হয়েছে।
হিসাব অনুযায়ী দেশে ২০১০, ২০১৩ এবং ২০১৫-১৬ অর্থবছরেও বেকার ছিল ২৬ লাখ। কিন্তু ২০১৬-১৭ অর্থবছরে এই সংখ্যা বেড়ে ২৭ লাখ হয়েছে। তবে বেকারত্বের হার আগের বছরের মতো ৪ দশমিক ২ শতাংশে স্থির রয়েছে। ২০১৫-১৬ অর্থবছরের তুলনায় ২০১৬-১৭ অর্থবছর দেশে শহরাঞ্চলে নারী বেকারের সংখ্যা বেড়েছে। এ সময় চার লাখ থেকে পাঁচ লাখ নারী বেকার হয়েছে। তবে দেশে নারীর কর্মসংস্থানেও ব্যাপক পরিবর্তন এসেছে। জরিপ বলছে, বিগত এক বছরে দেশে জনসংখ্যা বৃদ্ধি পেয়েছে ১ দশমিক ৮ শতাংশ। অন্য দিকে, শ্রমশক্তি বৃদ্ধি পেয়েছে ২ দশমিক ৩ শতাংশ। এর মধ্যে পুরুষ শ্রমশক্তি বেড়েছে ১ শতাংশ এবং নারী শ্রমশক্তি বেড়েছে ৪ দশমিক ৬ শতাংশ। এক বছরে মোট ১৪ লাখ নতুন শ্রমশক্তি যোগ হয়েছে। কর্মসংস্থানের নতুন বৃদ্ধির হার ২ দশমিক ২ শতাংশ। এই হার পুরুষের ক্ষেত্রে শূন্য দশমিক ৭ শতাংশ এবং নারী কর্মসংস্থান বৃদ্ধির হার ৪ দশমিক ৮ শতাংশ।
তথ্যানুযায়ী, গত ২০১৬-১৭ অর্থবছরে দেশে কর্মে নিয়োজিত ছিল ছয় কোটি ৩৫ লাখ মানুষ। এর মধ্যে ১৫ থেকে ২৯ বছর বয়সী রয়েছেন দুই কোটি এক লাখ। এই তরুণদের মধ্যে এক কোটি ৩১ লাখ পুরুষ ও ৭২ লাখ নারী।
বিশ^ব্যাংক ঢাকা অফিসের মুখ্য অর্থনীতিবিদ ড. জাহিদ হোসেনের মতে, প্রবৃদ্ধির হিসাবে কর্মসংস্থান মেলানো খুবই কঠিন। যেখানে প্রতি বছর প্রবৃদ্ধি বাড়ছে; কিন্তু তার কোনো প্রতিফলন কর্মসংস্থানে পড়ছে না। তিনি বলেন, যে বছর রেকর্ড প্রবৃদ্ধি হয়েছে সে বছর বেকার বেড়ে যাওয়ার অর্থই হলো এই প্রবৃদ্ধি কর্মসংস্থানে ভালো প্রভাব ফেলেনি। তবে এ বছর বিপুল শ্রমিক দেশের বাইরে কর্মসংস্থানের জন্য গিয়েছে। কিন্তু সেভাবে দেশে নতুন কর্মসংস্থান গড়ে ওঠেনি।

 

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.