খেলা চলাকালীন মাঠে বমি করছেন লিওনেল মেসি
খেলা চলাকালীন মাঠে বমি করছেন লিওনেল মেসি

মাঠে বমি করার কারণ জানালেন মেসি

নয়া দিগন্ত অনলাইন

মাঝে মাঝেই দেখা যেত, খেলা চলাকালীন মাঠে বমি করছেন লিওনেল মেসি। তারপর আবার স্বাভাবিকভাবে খেলা শুরু করতেন। মেসির এই অবস্থা দেখে ভক্তদের কপালে চিন্তার ভাজ পড়ত, কেন মাঠে বমি করছেন মেসি? অবশেষে জানা গেছে সেই কারণ। দীর্ঘ সময় ধরে পেটের সমস্যায় ভুগছিলেন মেসি। ডায়েটে কিছু গুরুত্বপূর্ণ পরিবর্তন এনে আপাতত এই সমস্যা থেকে পুরোপুরি সেরে উঠেছেন বিশ্ব ফুটবলের এই রাজপুত্র।

বছর চারেক আগে রোমানিয়ার বিরুদ্ধে একটি প্রীতি ম্যাচ চলাকালীন মাঠের মধ্যেই বমি করতে শুরু করেন মেসি। ম্যাচের পর সাংবাদিকরা এই ব্যাপারে তাকে প্রশ্ন করলে বলেছিলেন, ‘কিছুক্ষণ দৌড়নোর পরই আমার গা গুলায়। প্রায়ই বমি করে ফেলি।’

এমনকী গতবছর বিশ্বকাপের বাছাই পর্বে বলিভিয়ার বিরুদ্ধে সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে অনেক উঁচুতে লা পাজে খেলা চলাকালীন আবার বমি করতে দেখা যায় মেসিকে। আর্জেন্টিনার তৎকালীন জাতীয় কোচ সাবেল্লা অনুমানভিত্তিক আলটপকা মন্তব্য করেন, ‘আমার মনে হয় মেসির স্নায়ুজনিত সমস্যা হচ্ছে।’

এরপর এক নামী ইতালিয়ান ডাক্তার গিউলিয়ানো পোজেরকে দেখান মেসি। তিনি প্রথম বলেন, ‘ফাস্ট ফুড ও ক্যাফেইন মেশানো কোল্ড ড্রিঙ্কস পুরোপুরি ছেড়ে দিতে।’ সামান্য কিছু ওষুধও তিনি প্রেসক্রাইব করেছিলেন।

এরপর মেসি পুরোপুরি বদলে ফেলেন তার ফুড হ্যাবিট। এই প্রসঙ্গে মেসি বলেছেন, ‘আগে খুব হাবিজাবি খেয়ে নিতাম। এখন আমি মাছ-গোস্ত-সবজি-স্যালাদসহ স্বাস্থ্যকর ফুড নিয়ে থাকি। তারপর থেকে এখন আর আমার মাঠে নেমে বমি আসে না। আসলে তিন সন্তানের জনক হওয়ার আমি বুঝেছি, ওদের জন্যই আমাকে সুস্থ শরীরে দীর্ঘদিন বেঁচে থাকতে হবে। অবসর সময়ে এখন আমি বাচ্চাদের সাথেই সময় কাটাতে বেশি ভালোবাসি।’

 

অনেক কেঁদেছি, প্রতিটি ফাইনালের হার আমাকে কাঁদিয়েছে : মেসি

চাপ থাকবে। মেসিও জানেন। এরপরও তিনি বিশ্বাস করেন আর্জেন্টিনার বর্তমান জেনারেশনের ফুটবলারদের সামনে সময় চ্যাম্পিয়ন হিসেবে দৃশ্যপট দখলে নেয়ার। আসন্ন রাশিয়া বিশ্বকাপ তাদের জন্য শেষ সুযোগ বলেও অভিহত করেন লিটল আর্জেন্টাইন।

ক্লাব ক্যারিয়ারের স্পেনের জায়ান্ট বার্সেলোনার জার্সি সম্ভাব্য সব কিছু জিতলেও আন্তর্জাতিক ফুটবলের সিনিয়রপর্যায়ে শিরোপা খরা অব্যাহতই থেকে গেছে লিওনেল মেসির। খুব কাছে গিয়েও হতাশ হওয়ার অভিজ্ঞতাও অর্জন করেছেন বার্সেলোনা সুপারস্টার। সাম্প্রতিক সময়ে টানা তিন ফাইনালে পরাজয়ের দুঃসহ যন্ত্রণা যোগ হয়েছে তার ক্যারিয়ারে। ২০১৪ সালের বিশ্বকাপের ফাইনালে হারের যন্ত্রণা শেষ না হতেই টানা দুই কোপা আমেরিকার ফাইনালেও হেরেছে মেসির আর্জেন্টিনা।

সম্প্রতি আমেরিকান টিভির লা করনিসা প্রোগ্রামে অংশ নিয়ে মেসি বলেন, ‘আমি অনেক কেঁদেছি। প্রতিটি ফাইনালের হার আমাকে কাঁদিয়েছে। কারণ আমি ব্যর্থ হয়েছি দেশের জার্সিতে স্বপ্ন পূরণ করতে। তিনটি ফাইনালই ছিল অত্যন্ত বিপর্যয়কর। আমরা তীরে গিয়ে তরী ডুবিয়ে দিয়েছে।’

আসছে জুনে ৩১ এ পা পড়বে মেসির। আর্জেন্টাইন দলে তার সতীর্থদের বেশির ভাগের (অ্যাগুয়োরো, ডি মারিয়া, ওটামেন্ডি ও হিগুয়েন) বয়সও অতিক্রম করবে ত্রিশের কোটা। মেসি বলেন, ‘আমরা ফলাফলে বিশ্বাসী। সবাই অবগত আমরা না জিতলে ভবিষ্যতে সুযোগও আর নেই।’

রাশিয়া বিশ্বকাপ জেতার স্বপ্নের কথা স্বীকার করেছেন মেসি। তিনি বলেন, ‘কল্পনায় ফাইনালে উপস্থিতি এবং জয়ের পর কাপ উঁচিয়ে ধরার দৃশ্য শিহরণ তুলে দেয় আমার শরীরে। আমার একমাত্র স্বপ্ন দেশের হয়ে বিশ্বকাপ জয়। দেশের জনগণের উদ্দেশে বলতে চাই আশা করছি রাশিয়া ভালো সময় কাটবে। গতবার আমরা পারেনি। কিন্তু সবার উদ্দেশ্য এক ও অভিন্ন। সবাই মুখিয়ে বিশ্বকাপ জিততে।’

আসছে জুনে শুরু হচ্ছে রাশিয়া বিশ্বকাপ। গ্রুপপর্বেই কঠিন পরীক্ষা হবে আর্জেন্টিনার। খেলতে হবে ক্রোয়েশিয়া, আইসল্যান্ড ও নাইজেরিয়ার বিপক্ষে

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.