ক্যারিয়ার গড়তে

গ্রিন ইউনিভার্সিটিতে বিবিএ/এমবিএ
উচ্চশিক্ষার জন্য ব্যবসায় প্রশাসন বিষয়ে পড়া এখন অনেকের প্রথম পছন্দ। এ ক্ষেত্রে যেমন উদ্যোক্তা হয়ে নিজের মতো কাজ করা যায়, তেমনি বহুজাতিক প্রতিষ্ঠানের পাশাপাশি ব্যাংক, সরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান, বিপণনসহ আরও অনেক ক্ষেত্রে ক্যারিয়ার গঠন করা যায়। মূলত সে লক্ষ্যেই দীর্ঘ ১৪ বছর ধরে সাফল্যের পরিচয় রাখছে গ্রিন ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ। গ্রিন ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ উচ্চশিক্ষিত ও যুক্তরাষ্ট্র, ইউরোপ এবং দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া থেকে ডিগ্রিপ্রাপ্ত অভিজ্ঞ শিক্ষকমণ্ডলীর (পূর্ণকালীন) মাধ্যমে ব্যবসায় প্রশাসনের কোর্সগুলো পরিচালনা করে আসছে। এ ছাড়াও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, আইবিএ’র শিক্ষকেরা নিয়মিত ক্লাস নিচ্ছেন। দেশের অ্যাকাউন্টিং সেক্টরের শিক্ষক অধ্যাপক এম এম খান এই বিশ্ববিদ্যালয়ের পাঠদান করেন। বিশ্ববিদ্যালয়টিতে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে কর্মরত নির্বাহীদের জন্য উইকেন্ড এমবিএ (এক্সিকিউটিভ) কোর্স চালু রয়েছে।
গ্রিন বিজনেস প্রোগ্রামের শিক্ষক ও বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক
ড. গোলাম সামদানী ফকির বলেন, গ্রিন ইউনিভার্সিটির মোট পাঁচটি বিষয় তথা মানসম্মত শিক্ষার্থী, যোগ্য ও অভিজ্ঞ শিক্ষকমণ্ডলী, কোয়ালিটি কোর্স কারিকুলাম, দক্ষ প্রশাসনিক কর্মকর্তা এবং উন্নত ভৌত অবকাঠামোর ওপর ভিত্তি করে এগিয়ে যাচ্ছে। যার সবক’টি মান বজায় রেখেই এখানকার বিবিএ/এমবিএ প্রোগ্রাম পরিচালিত হয়।
গ্রিন ইউনিভার্সটিতে কেন পড়বেন?
বাংলাদেশের বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় অঙ্গনে গ্রিন ইউনিভার্সিটি একটি উল্লেখযোগ্য নাম। ২০০৩ সালে প্রতিষ্ঠিত হলেও স্বল্প সময়ের মধ্যে এটি এখন দেশের শীর্ষস্থানীয় প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়। সম্প্রতি ইউএস-বাংলা গ্রুপের সঙ্গে গ্রিন ইউনিভার্সিটির চুক্তি সম্পন্ন হয়েছে। চুক্তির আওতায় গ্রুপের ১০টি প্রতিষ্ঠানে যেমনÑ ইউএস-বাংলা এয়ারলাইনস, ইউএস-বাংলা অ্যাসেট, ইউএস-বাংলা লেদার, হাইটেক, মিডিয়া অ্যান্ড কমিউনিকেশন, ইউএস-বাংলা ফুড, মেডিক্যাল কলেজ এবং ইউএসবি এক্সপ্রেস-এ ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থীরা অগ্রাধিকার ভিত্তিতে চাকরির সুযোগ পাবেন। গ্রিন বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের শুধু ডিগ্রি দিয়েই দায়িত্ব শেষ করে না, পাশাপাশি তাদের ক্যারিয়ারের দিকনির্দেশনা প্রদান, ইন্টার্নশিপ ও চাকরি প্রাপ্তির জন্য কাজ করে যাচ্ছে ঈবহঃবৎ ভড়ৎ ঈধৎববৎ উবাবষড়ঢ়সবহঃ। এর বাইরেও গ্রিন ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থীরা ক্রেডিট ট্রান্সফার করে দেশ-বিদেশের অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হচ্ছেন।
সুযোগ-সুবিধা : গ্রিন ইউনিভার্সিটি বর্তমানে দেশের আর্থিক অবস্থার কথা বিবেচনা করে অপেক্ষাকৃত কম সচ্ছল ও মধ্যবিত্ত পরিবারের ছেলে-মেয়েরা যাতে উচ্চশিক্ষার সুযোগ পায় সেজন্য এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষার ফলাফলের ওপর প্রায় ১০০% পর্যন্ত টিউশন ফি মওকুফের সুবিধা দিয়ে ছাত্র-ছাত্রী ভর্তি করছে। এ ছাড়াও মুক্তিযোদ্ধা, উপজাতি, ছাত্রী, আপন ভাইবোন, স্বামী-স্ত্রী কোটায় আংশিক এবং জাতীয় দলের খেলোয়াড়দের সম্পূর্ণ বিনা টিউশন ফিতে লেখাপড়ার সুযোগ দিচ্ছে। এ ছাড়াও ভর্তির পর পরীক্ষার ফলাফলের ওপর বৃত্তি দেয়া হয়।
এসব বিষয়ে জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ের ফ্যাকাল্টি অব বিজনেস স্টাডিজের ডিন অধ্যাপক ড. গোলাম আহমেদ ফারুকী বলেন, গ্রিন ইউনিভার্সিটি হলো জিনিয়াস তৈরির কারখানা। যেখানে পৃথিবীর অন্যান্য উন্নত দেশের কারিকুলামের সাথে সামঞ্জস্য অথচ দেশের চাহিদাকে একেবারে বিসর্জন না দিয়ে শিক্ষার্থীদের বিজনেস স্টাডিজ শিক্ষা দেয়া হয়।
যোগাযোগ: গ্রিন ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ, ২২০/ডি বেগম রোকেয়া সরণি, ঢাকা। ফোন : ০১৭৫৭০৭৪৩০২-৪, ০১৭১৩ ২৮৯২১৭
ওয়েবসাইট : িি.িমৎববহ.বফঁ.নফ

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.