আগডুম বাগডুম কবিতা

বৈশাখ
আবুল হোসেন আজাদ

গাছে কঁচি পাতা গায় পাখি গান
নতুন ঊষায় জেগে ওঠে প্রাণ
শুভ হালখাতা বাজে ঢাকঢোল
দখিনা বাতাস বহে উতরোল
দেয় নতুনের ডাক
এসেছে রাঙিয়ে নতুন বছর বাঙালির বৈশাখ।

ফলাবে ফসল কৃষকেরা মাঠে
ধান গম যব তিল তিসি পাটে
ভরাবে উঠোন এই বারতায়
আশার আলোয় বুক বেঁধে যায়
নতুনের আবাহন।
সুখ সাম্পানে দোদুল দোলায় নেচে ওঠে সব মন।

গ্রাম শহরে বৈশাখী মেলা
মেলা প্রাঙ্গণে সার্কাস খেলা
খেলনা পুতুল ভেঁপু বাঁশি ঘুড়ি
রঙিন বেলুন ফিতে হাড়ি চুড়ি
কত কিছু মেলাজুড়ে
খোকা খুকু কেনে যার যেটা খুশি সারা মেলা ঘুরে ঘুরে।

ঈশান কোনের কালিমাখা মেঘে
কাল বৈশাখীর ঝড় ওঠে বেগে
ছিড়ে পড়ে যায় কাঁচা ডাসা আম
ইঁচড় কাঁঠাল জামরুল জাম
ভেঙে পড়ে কুঁড়েঘর
ডালপালা ভেঙে উপড়িয়ে গাছ শান্ত যে তারপর।

খোকার চিন্তা
সৈয়দ মাশহুদুল হক

নদীর ওপার মাঠের পরে
আকাশ যেথায় মাটির সাথে
করে কোলাকুলি
সেথায় যেয়ে আকাশ ছুঁতে
মন করে আকুলি।

মাঝে মধ্যে দৌড়ে গিয়ে
আকাশটারে ছুঁতে গেলে
আকাশ পালায় দূর
বল রে আকাশ কেমন করে
নাগাল পাবো তোর?

আমার সঙ্গে তুইও যদি
দৌড়তে থাকিস নিরবধি
কেমনে তোরে ধরি
আমি ছোট্ট খোকা বলে
করিস বাহাদুরি?

আমায় বুঝি বোকা ভাবিস?
চিন্তাটা তোর বড্ড রাবিশ
ছুটবো না তোর পিছে,
জানি তোরে ছুঁতে যাওয়ার
প্রয়াসটাই মিছে।

গোলাকৃতির এই পৃথিবী
তাই নাকি তোর এ আকৃতি
শুনছি মায়ের মুখে,
তাই তো তোরে কাছে দেখি
একেবারে সম্মুখে।


ফড়িং ছানার নানা বাড়ি
শরীফ সাথী

ফড়িং ছানা নানা বাড়ি
যাচ্ছে নেচে গেয়ে,
সবুজ শ্যামল জন্মভূমির
এই পরিবেশ চেয়ে।
সকাল বেলা খেয়ে-দেয়ে
মধুর আবেশ পেয়ে,
ঘাসের ডগা দিচ্ছে দোলা
যেতে পালক বেয়ে।
ঐ সে দূরে নদীর তীরে
সবুজ নীড়ে ছেয়ে
হার না মানা ফড়িং ছানা
নানার বাড়ি যেয়ে
দেখতে পেল গরুর গাড়ি
মাঠের পথে ধেয়ে
বাবার সঙ্গে গম আনিতে
যাচ্ছে ছোট্ট মেয়ে।

নতুন বছর
জাকির আজাদ

নতুন বছর করছি তোমায়
খুব সাদরে বরণ,
অতি আশার, কল্যাণময় হোক
তোমার আসার ধরন।
প্রাণে প্রাণে জেগে উঠুক
মঙ্গল কর্ম করণ,
আর ঘটনায় না হয় যেন
কারও ক্ষতি-মরণ।

ছোট বড় জাতি ধর্মের
বিভেদ করে পতন,
থাকবে সবাই মিলন-সুখে
ঠিক আপনের মতন।
অর্থ-খ্যাতির যশ অহঙ্কার
আর জহরত, রতন,
দমন থাকুক লোভ-লালসা
হোক সম্পর্কের যতন।

মনটা আমার
রকিবুল ইসলাম

বনের পাখি উঠল ডাকি
কিচিরমিচির সুর
মনে আমার মন থাকে না
মনটা অচিনপুর।
রাখাল ছেলে সময় পেলে
বাজায় মধুর বীণ
মনটা আমার উড়তে থাকে
রঙমাখা রঙিন।
ফুল বাগানে নাচ বা গানে
ব্যস্ত প্রজাপতি
ফুলের সাথে মনটা মাতে
প্রাণটা কাড়ে অতি।
বিকেল বেলা রঙের মেলা
পাড়ার খেলার মাঠ
তখন আমার মনটা করে
সেই প্রকৃতির পাঠ।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.