মামুনের মামলা চার মাসের মধ্যে নিষ্পত্তির নির্দেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক

বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের বন্ধু ও ব্যবসায়িক অংশীদার গিয়াস উদ্দিন আল মামুনের বিরুদ্ধে দুদকের দায়ের করা অর্থপাচারের একটি মামলা আগামী চার মাসের মধ্যে নিষ্পত্তি করতে বিচারিক আদালতকে নির্দেশ দিয়েছেন আপিল বিভাগ।

প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বাধীন চার বিচারপতির আপিল বেঞ্চ আজ বৃহস্পতিবার রাষ্ট্রপক্ষের ছয় সাক্ষিকে পুণরায় জেরার আবেদন খারিজ করে হাইকোর্টের আদেশের বিরুদ্ধে মামুনের করা লিভ টু আপিলের শুনানি নিয়ে এ আদেশ দেন।

একই সঙ্গে রাষ্ট্রপক্ষের ছয় সাক্ষীকে পুণরায় জেরা করতে মামুনের আইনজীবীদের অনুমতি দিয়েছেন আদালত।

গত বছর গিয়াস উদ্দিন আল মামুনের এ আবেদনটি খারিজ করে দিয়েছিল হাইকোর্ট।

আদালতে গিয়াস আল মামুনের পক্ষে শুনানিতে ছিলেন জ্যেষ্ঠ আইনজীবী এ জে মোহাম্মদ আলী ও এস এম শাহজাহান। দুদকের পক্ষে শুনানিতে ছিলেন আইনজীবী খুরশীদ আলম খান।

বর্তমানে ঢাকার তিন নম্বর বিশেষ জজ আদালতে এ মামলার বিচার চলছে। নবম সাক্ষীকে জেরা করছেন আসামিপক্ষের আইনজীবীরা। আগামী ২৫ এপ্রিল মামলাটি আবার উঠবে আদালতে।

দুদকের আইনজীবী খুরশীদ আলম খান সাংবাদিকদের বলেন, গিয়াস উদ্দিন আল মামুনের করা লিভ টু আপিলের উপর গত দুইদিন শুনানির পর আপিল বিভাগ বিচারিক আদালতকে চার মাসের মধ্যে মামলাটি নিষ্পত্তির নির্দেশ দিয়েছেন। একইসঙ্গে ছয় সাক্ষিকে পুনরায় জেরার অনুমতি দিয়েছেন আদালত।

মামলার অভিযোগে বলা হয়, টঙ্গীর বিসিক শিল্প এলাকায় একটি ৮০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপনের কার্যাদেশ তারেক রহমানের মাধ্যমে পাইয়ে দেওয়ার কথা বলে খাদিজা ইসলামের কাছ থেকে ২০০৩ সালের ১ জানুয়ারি থেকে ২০০৭ সালের ৩১ মে পর্যন্ত সময়ে মোট ২০ কোটি ৪১ লাখ ২৫ হাজার ৮৪৩ টাকা গ্রহণ করে মামুন। পরে তা সিঙ্গাপুর পাচার হয়েছে বলে অভিযোগে বলা হয়।

দুর্নীতি দমন কমিশনের উপ-পরিচালক মোহাম্মদ ইব্রাহিম ২০০৯ সালের ২৬ অক্টোবর ক্যান্টনমেন্ট থানায় এ মামলা করেন।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.