আমি এপ্রিল দেখেছি

সাইফুল্লাহ হিমেল

আমি জ্ঞান শূন্য হরিণ সাবককে
বাঘের মুখে খাবার তুলে দিতে দেখি নাই
আমি দেখেছি কমলমতি ইবিয়ানদের

রাজ পথে যৌক্তিক অধিকার আদায়ের আন্দোলনে নেমে
যুদ্ধাংদেহী, প্রতিপক্ষরূপী, মারমুখী পুলিশের
হাতে ফুল দিয়ে পানি পান করাতে

আমি বারমুডা ট্রায়াঙ্গল দেখি নাই
দেখেছি রাজ পথে ১১ এপ্রিলের ছাত্র-ছাত্রীদের
যেখানে বৈষম্যের ঠাই হয় নাই।

আমি মীর জাফরের দ্বিমূখীতা দেখি নাই
দেখেছি সাধারণ শিক্ষার্থীদের সাথে প্রতারণা
জুতার মালা পরিয়ে ক্ষণিক বাদে ফুলেল মালা।

আমি চকলেট দিয়ে লোভ দেখিয়ে
পাঁচ বছরের শিশুকে পাশবিক নির্যাতন করতে দেখি নাই,
দেখেছি সুযোগ সন্ধানী গোষ্ঠিকে বহিষ্কৃতের পাশে দাঁড়াতে।

আমি গাছের গোড়া কেটে উপরে পানি ঢালতে দেখি নাই
দেখেছি আন্দোলনে সংহতি জানাতে এসে
লুকিয়ে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের ছবি তুলতে।
কতটা জঘন্য তার মানুষিকতা !
(আন্দোলনে ইবির অভিভাবকের ভূমিকা প্রসঙ্গ, ভিডিও সংরক্ষিত)

আমি মহাসাগরের ঝড়ো ঢেউয়ে তরী ডুবতে দেখি নাই
দেখেছি ছাত্র জনতার ঢেউয়ে ক্ষমতার তরী ডুবতে।

আমি সীসা ঢালাই প্রাচিরে সীসা কনার সহাবস্থান দেখি নাই
দেখেছি এপ্রিলের আন্দোলনে শিক্ষার্থী ভাই-বোনদের সহাবস্থানে।

নূর হোসেনের বুকে-পিঠের সাদা রংয়ের লেখা দেখি নাই
আমি দেখেছি রাতুলদের পুলিশের বন্দুকের নলায় চম্বুন করতে।

আমি পাকবাহিনীর ট্যাঙ্কে বাঙালিকে হাত বোমা মারতে দেখি নাই
দেখেছি জাবিয়ানদের পুলিশের জলকামানের পাংচার করতে।

আমি আশায় বুক বেধেছি, আজ যদি নাও হয়
সংস্কার একদিন হবেই সকল বৈষম্যের।

লেখক: শিক্ষার্থী ও সাংবাদিক
ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.