ভিক্ষুকের কন্যাকে অপহরণের হুমকি
ভিক্ষুকের কন্যাকে অপহরণের হুমকি

ভিক্ষুকের কন্যাকে অপহরণের হুমকি

গৌরনদী (বরিশাল) সংবাদদাতা

ভিক্ষুক বিধবার সম্পত্তি দখলের জন্য একাধিকার হামলার পর এবার তার (বিধবার) যুবতী কন্যাকে অপহরনের হুমকি দিয়েছে স্থানীয় প্রভাবশালীরা। অব্যাহত হুমকির মুখে বিধবা সেলিনা বেগম (৭০) তার যুবতী কন্যাকে নিয়ে চরম নিরাপত্তাহীনতার মধ্যে রয়েছে।

এ ঘটনায় থানায় একাধিকবার অভিযোগ দায়ের করেও কোনো সুফল পায়নি বিধবা সেলিনা। ঘটনাটি জেলার গৌরনদী উপজেলার বাটাজোর ইউনিয়নের বাসুদেবপাড়া গ্রামের।

সোমবার দুপুরে ওই গ্রামের মৃত আদম আলী বেপারীর স্ত্রী বিধবা সেলিনা বেগম জানান, তার স্বামীর রেখে যাওয়া ২৪ শতক সম্পত্তির ওপর দীর্ঘদিন থেকে বসত ঘর নির্মাণ করে তিনি দুই কন্যাকে নিয়ে বসবাস করে আসছেন। জীবিকার তাগিদে তিনি ভিক্ষা করে সংসার চালাচ্ছেন।

সম্প্রতি তার বড় মেয়ে রাজিয়াকে বিয়ে দেয়া হয়। বর্তমানে তার যুবতী কন্যা সালমা আক্তার মালঞ্চকে (১৮) নিয়ে স্বামীর বাড়িতে বসবাস করছেন। অসহায়ত্বের সুযোগে ওই সম্পত্তির ওপর লোলুপ দৃষ্টি পরে প্রতিবেশী মৃত ফজলুল হক প্যাদার পুত্র প্রভাবশালী সাইদুল প্যাদার।

অতিসম্প্রতি জালিয়াতির মাধ্যমে পুরো সম্পত্তির মালিকানা দাবি করে বিধবা ও তার কন্যাকে বসত বাড়ি থেকে উচ্ছেদের জন্য একাধিকার হামলা চালায় সাইদুল ও তার সহযোগীরা। সম্প্রতি হামলাকারীরা বিধবাকে মারধর করে তার দুটি দাঁত ভেঙ্গে দেয়। এছাড়া বিভিন্ন সময় প্রভাবশালী সাইদুল তার সহযোগীদের নিয়ে বিধবার বাড়ির গাছ ও পুকুরের মাছ লুট করে নেয়। এমনকি বিধবার বসত ঘরের সামনে সাইদুল গরুর ঘর নির্মান করে বসবাসের অযোগ্য করে তুলেছে।

অসহায় বিধবা সেলিনা বেগম আরো জানান, হামলা ও হুমকির ঘটনায় থানায় একাধিকার লিখিত অভিযোগ দায়ের করেও তিনি কোনো সুবিচার পাননি। গত কয়েকদিন পূর্বে সাইদুল ও তার সহযোগীরা তাকে (সেলিনা) বসত বাড়ি ছেড়ে চলে যাওয়ার জন্য ২২ এপ্রিল পর্যন্ত সময় বেঁধে দিয়েছে। এরমধ্যে তারা বাড়িঘর ছেড়ে চলে না গেলে বিধবার যুবতী কন্যাকে অপহরনের হুমকি প্রদান করা হয়।

প্রভাবশালীদের অব্যাহত হুমকির মুখে বিধবা সেলিনা বেগম তার যুবতী কন্যাকে নিয়ে এখন চরম নিরাপত্তাহীনতার মধ্যে রয়েছে। বিধবা সেলিনা বেগম তার স্বামীর রেখে যাওয়া একমাত্র সম্ভল ২৪ শতক সম্পত্তি রক্ষা ও যুবতী মেয়েসহ তার জীবনের নিরাপত্তার জন্য স্থানীয় সংসদ সদস্য ও প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.