হাসতে যাদের মানার বিচারক তারা

অভি মঈনুদ্দীন

দু’বার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত গুণী অভিনেতা চঞ্চল চৌধুরী এবারই প্রথম কোনো রিয়েলিটি শোর বিচারক হিসেবে কাজ করলেন। আগামী ঈদে নিউজ টুয়েন্টিফোর চ্যানেলে টানা পাঁচ দিন প্রচারের জন্য সামিয়া রহমানের ভাবনা, পরিকল্পনা ও প্রযোজনায় নির্মিত হয়েছে রিয়েলিটি শো ‘হাসতে যাদের মানা’। গুণী নাট্যরচয়িতা ও অভিনেতা বৃন্দাবন দাসের রচিত নাটকের অংশ বিশেষ থেকে এই রিয়েলিটি শোতে অংশগ্রহণকারী অভিনয়শিল্পীরা অভিনয় করে নিজেদের অভিনয় প্রতিভার প্রমাণ দিবেন। আর সেখান থেকেই চূড়ান্ত ফলাফল পাওয়া যাবে। এই রিয়েলিটি শোতে চঞ্চল চৌধুরীর পাশাপাশি বিচারক হিসেবে আরো আছেন বৃন্দাবন দাস, সামিয়া রহমান ও শাহানাজ খুশি। এরই মধ্যে এই রিয়েলিটি শোর গ্র্যান্ডফিনালেও শেষ হয়েছে। তবে আগামী ঈদের আগে কারা বিজয়ী হয়েছেন তার কিছুই প্রকাশ করা হচ্ছে না। বিজয়ীরা পুরস্কার হিসেবে পাচ্ছেন ঢাকা-ব্যাংকক-ঢাকা এয়ার টিকিট, টেলিভিশন ও ঢাকা-কলকাতা-ঢাকা এয়ার টিকিট। দু’টি প্রতিষ্ঠিত কোম্পানির সৌজন্যে এই পুরস্কার দেয়া হচ্ছে। প্রথমবারের মতো রিয়েলিটি শোর বিচারক হিসেবে উপস্থিত থাকা প্রসঙ্গে চঞ্চল চৌধুরী বলেন, ‘খুব অল্প সময়ে প্রস্তুতি নিয়ে নতুন শিল্পীরা বৃন্দাবন দা রচিত নাটকের অংশবিশেষে যেভাবে অভিনয় করেছেন তাতে আমি সন্তুষ্ট। তবে তারা যেন ভবিষ্যতে আরো ব্যাপক প্রস্তুতি নিয়ে অভিনয়ে অংশ নেন, এটাই আমার উপদেশ থাকবে। কারণ যারা পেশাগতভাবে অভিনয়কে বেছে নিতে চান তাদের জন্য এটা বড় চ্যালেঞ্জ। কৃতজ্ঞতা জানাই সামিয়া আপাকে এমন ভিন্ন ধরনের একটি রিয়েলিটি শো খুব কম সময়ের মধ্যে আয়োজন করে তার ফলাফলও দেয়ার জন্য। উপস্থাপক হিসেবে মীরাক্কেলখ্যাত আবু হেনা রনি নিজের মেধার পরিচয় দিয়েছে এই শোতে। সবকিছু মিলিয়ে এই ধরনের রিয়েলিটি শোর সাধুবাদ জানাই।’ সামিয়া রহমান বলেন, ‘তিনজন বিচারকের প্রতিই আমি আন্তরিকভাবে কৃতজ্ঞ, কারণ তারা অনেক উৎসাহ নিয়ে কাজটি করেছেন, আন্তরিকতা নিয়ে সময় দিয়েছেন।’ খুশি বলেন, ‘একেবারেই অন্যরকম একটি উদ্যোগ ছিল শিল্পী খোঁজার। ধন্যবাদ জানাই নিউজ টোয়েন্টি ফোর চ্যানেলকে।’ বৃন্দাবন দাস বলেন,‘আমার নাটকেরই অংশবিশেষ শিল্পীদের দিয়ে অভিনয় করানো, এটা আমার জন্য ছিল অনেক সম্মানের বিষয়।’ সামিয়া রহমান জানান, আগামী রোজার ঈদে টানা পাঁচ দিন রাত ৯টায় নিউজ টোয়েন্টিফোর চ্যানেলে ‘হাসতে যাদের মানা’ প্রচার হবে।

 

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.