জাতীয় প্রেস ক্লাবে নারী পক্ষের আলোচনা সভা : নয়া দিগন্ত
জাতীয় প্রেস ক্লাবে নারী পক্ষের আলোচনা সভা : নয়া দিগন্ত
মতবিনিময় সভায় বক্তারা

শ্রমিক সংগঠনগুলো এক না হলে কোনো দাবিই পূরণ হবে না

নিজস্ব প্রতিবেদক

সিডও সনদ বাস্তবায়নে নিরাপদ কর্মপরিবেশ নিশ্চিতকরণে করণীয় বিষয়ে ট্রেড ইউনিয়নের সাথে সংলাপে বক্তারা বলেছেন, শ্রমিক সংগঠনগুলো একত্রিত না হলে কোনো দাবিই পূরণ হবে না।
কর্মজীবী নারীর উদ্যোগে ও স্ট্র্যাটেজিক পার্টনার হিসেবে নারী পক্ষের অংশগ্রহণে ‘পোশাক শিল্প কারখানায় চাই নারীর জন্য নিরাপদ কর্মপরিবেশ’Ñ এই আহ্বানে জাতীয় প্রেস ক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে এক মতবিনিময় সভায় ট্রেড ইউনিয়ন নেতৃবৃন্দের সাথে সংলাপ অনুষ্ঠিত হয়। সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদফতরের প্রতিনিধি নুসরাত জাহান, অ্যাসিস্ট্যান্ট ইন্সপেক্টর জেনারেল। কর্মজীবী নারীর সভাপতি ড. প্রতিমাপাল-মজুমদারের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথির বক্তৃতা করেন : সমাজতান্ত্রিক শ্রমিক ফ্রন্টের সাধারণ সম্পাদক রাজেকুজ্জামান রতন, জাতীয় গার্মেন্টস শ্রমিক জোট বাংলাদেশের সভাপতি নঈমূল আহসান জুয়েল ও গার্মেন্টস শ্রমিক কর্মচারী লীগের সভাপতি লীমা ফেরদৌস। সভাটি সঞ্চালনা করেন কর্মজীবী নারীর নির্বাহী পরিচালক রোকেয়া রফিক।
নুসরাত জাহান বলেন, কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদফতর তিনটি ক্লাস্টারে করছে ১. সাধারণ বিভাগ ২. সেফটি বিভাগ এবং ৩. স্বাস্থ্য বিভাগ।
নারীশ্রমিকের দক্ষতা, উদ্ভাবন এবং উৎপাদনশীলতার ওপর জোর দিয়ে কর্মক্ষেত্রে নারীশ্রমিকের নিরাপত্তাহীন অবস্থা বিশ্লেষণ করেন কর্মজীবী নারীর সভাপতি ড. প্রতিমাপাল-মজুমদার। বিশেষ অতিথির বক্তৃতায় রাজেকুজ্জামান রতন বলেন, দেশে প্রবৃদ্ধির সাথে সাথে নারীর প্রতি সহিংসতাও বাড়ছে তাই এসডিজি লক্ষ্য অর্জনও কঠিন হয়ে যাবে। নঈমূল আহসান জুয়েল বলেন, এমপ্লায়ারস অ্যাসোসিয়েশনের মতো শ্রমিক সংগঠন, ফেডারেশন এবং ইউনিয়নগুলো একযোগে একটি সংগঠন হয়ে কাজ করলে কর্মক্ষেত্রে নারী শ্রমিকের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা সম্ভব। সেই সাথে লীমা ফেরদৌস বলেন, নারীর অধিকার, নিরাপত্তা ও সুরক্ষার জন্য সর্বপ্রথম নারীকেই সচেতন হতে হবে।
সভার সমাপনী বক্তব্যে সিডও সনদ সুপারিশ নং ৩১ (গ) বাস্তবায়নের জন্য নীতিনির্ধারক এবং সরকারের প্রতি আহ্বান জানান সভার সভাপতি ড. প্রতিমাপাল-মজুমদার। এ ছাড়া এই আয়োজনে জাতীয় পর্যায়ের শ্রমিক নেতৃবৃন্দ এবং গার্মেন্টস শিল্পের শ্রমিকেরা উপস্থিত ছিলেন।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.