অনিয়মের অভিযোগে জুনে পদত্যাগ করছেন জাপানের প্রধানমন্ত্রী!

গার্ডিয়ান

জমি বিক্রয় ও অবৈধ প্রভাবে স্কুল অনুমোদনের জের ধরে জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবে পদত্যাগ করতে পারেন বলে মনে করছেন দেশটির সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ পরবর্তী সংস্কারকদের একজন জুনিচিরো কোইজুমি। নিজ স্ত্রী জড়িত আছে এমন একটি প্রতিষ্ঠানের কাছে অত্যধিক কম দামে সরকারি জমি বিক্রি ও এক বন্ধুকে ভেটেরিনারি স্কুল চালু অনুমোদন দেয়ার ওই দুটি ঘটনায় শিনজো আবের জনপ্রিয়তা যেকোনো সময়ের চেয়ে কমেছে এবং আগামী নির্বাচনে তার দলের ভবিষ্যৎ অনিশ্চয়তার মধ্যে পড়েছে।
এক ম্যাগাজিনকে দেয়া সাক্ষাৎকারে আবের এই পরিস্থিতিকে বিপজ্জনক আখ্যা দিয়েছেন কোইজুমি। ২০০১-০৬ সাল পর্যন্ত জাপানের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালনকারী কোইজুমি এরিয়া ম্যাগাজিনকে বলেন, ‘এই কেলেঙ্কারিতে বিপজ্জনক পরিস্থিতিতে পড়েছেন আবে। পার্লামেন্টের বর্তমান সেশন শেষে (২০ জুন) কি তিনি পদত্যাগ করবেন না?’ সাবেক এই নেতা বলেন, সেপ্টেম্বরে অনুষ্ঠিতব্য দলীয় কংগ্রেসে আবে দলীয় প্রধানের পদ আঁকড়ে থাকলে তার কারণে লিবারেল ডেমোক্র্যাটিক পার্টি আগামী গ্রীষ্মে অনুষ্ঠিতব্য পার্লামেন্টের উচ্চকক্ষের নির্বাচনে পরাজিত হতে পারে। আবের বিরুদ্ধে অভিযোগ, ৮৫ শতাংশ ডিসকাউন্টে একটি সরকারি জমি বিক্রয় করা হয়েছে ওসাকার একটি অতি-জাতীয়তাবাদী কিন্ডারগার্টেনের কাছে, যে প্রতিষ্ঠানটির সাথে সম্পর্ক আছে তার স্ত্রীর। এছাড়া এক বন্ধুকে ভেটেরিনারি স্কুল খোলার অনুমতি পেতে তিনি ব্যক্তিগত প্রভাব খাটিয়েছেন। যদিও দুটি অভিযোগই অস্বীকার করছেন জাপানের প্রধানমন্ত্রী।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.