নৌ অধিদফতরকে দুর্নীতিমুক্ত করার দাবি জাতীয় কমিটির

নিজস্ব প্রতিবেদক
দেশে নৌ পরিবহন ব্যবস্থা উন্নয়নের স্বার্থে এই খাতের নিয়ন্ত্রক সংস্থা নৌ পরিবহন অধিদফতরকে স্বচ্ছ ও জবাবদিহিমূলক করার দাবি জানিয়েছে নৌ, সড়ক ও রেলপথ রক্ষা জাতীয় কমিটি। সংস্থাটির কিছু কর্মকর্তা-কর্মচারীর লাগামহীন অনিয়ম ও দুর্নীতি খতিয়ে দেখতে উচ্চক্ষমতা সম্পন্ন তদন্ত কমিটি গঠনেরও দাবি জানিয়েছে বেসরকারি এই সংগঠন। 
গতকাল কমিটির সভাপতি হাজী মোহাম্মদ শহীদ মিয়া ও সাধারণ সম্পাদক আশীষ কুমার দে এক বিবৃতিতে এই দাবি জানান। 
সম্প্রতি দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) রাজধানীর একটি হোটেল থেকে ঘুষের পাঁচ লাখ টাকাসহ নৌ অধিদফতরের ভারপ্রাপ্ত প্রধান প্রকৌশলী এস এম নাজমুল হককে গ্রেফতারের পরিপ্রেক্ষিতে এই দাবি পুনরুত্থাপন করা হয় বলে জানানো হয়েছে। এছাড়া অনিয়ম-দুর্নীতির আরো অনেক তথ্য উদঘাটনের স্বার্থে নাজমুল হকের সহযোগীদের গ্রেফতার করে জিজ্ঞাসাবাদের দাবি জানানো হয় বিবৃতিতে। 
তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করে বিবৃতিতে বলা হয়, ‘গত বছরের জুলাই মাসে নৌ পরিবহন অধিদফতরের প্রধান প্রকৌশলী এ কে এম ফখরুল ইসলামকে গ্রেফতারের পর নৌ, সড়ক ও রেলপথ রক্ষা জাতীয় কমিটি অধিদতরের সব অনিয়ম-দুর্নীতি তদন্তে বিচারিক কমিশন গঠনের দাবি তুলে বলেছিল, শুধু প্রধান প্রকৌশলীকে গ্রেফতার হলেই অনিয়ম-দুর্নীতি বন্ধ হবে না।’ কিন্তু সরকার কমিটির এ অভিযোগ আমলে না নিয়ে নাজমুল হককে নৌ অধিদফতরের প্রধান প্রকৌশলীর চলতি দায়িত্ব প্রদান করে। অথচ দুর্নীতি দমন কমিশন ২০১৪ সাল থেকেই তার বিরুদ্ধে অনুসন্ধান করছে। চলতি দায়িত্বপ্রাপ্তির পরও এই কর্মকর্তার অনিয়ম, দুর্নীতি ও বিপুল পরিমাণ অবৈধ অর্থ-সম্পদ নিয়ে দেশের শীর্ষস্থানীয় পত্রিকাগুলোতে বেশ কয়েকটি অনুসন্ধানী প্রতিবেদন প্রকাশিত হলেও নৌ মন্ত্রণালয় অদৃশ্য কারণে তার বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেয়নি। এমনকি নাজমুল হকে অযোগ্যতার কারণে বিদেশী অর্থায়নে চলমান জিএমডিএসএস প্রকল্প মুখ থুবড়ে পড়ার উপক্রম হলেও প্রকল্প পরিচালক (পিডি) পদে চার বছর ধরে তাকেই বহাল রেখেছে সরকার। 
বিবৃতিতে নৌ পরিবহন ব্যবস্থার আমূল সংস্কার ও উন্নয়নে সমুদ্রগামী জাহাজের নাবিকদের বিভিন্ন ধরনের পরীক্ষা, অভ্যন্তরীণ জাহাজের নকশা অনুমোদন, মাস্টারশিপ ও ড্রাইভারশিপ পরীক্ষা, অভ্যন্তরীণ ও সমুদ্রগামীÑ সব ধরনের জাহাজের ফিটনেস পরীক্ষা (সার্ভে) ও নিবন্ধন প্রদানসহ নৌ পরিবহন অধিদফতরের সব কর্মকাণ্ডে গতিশীলতা সৃষ্টি এবং স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করার দাবি জানানো হয়।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.