ads

স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতাকে কুপিয়েছে ওয়ার্ড যুবলীগ

নিজস্ব প্রতিবেদক
অভ্যন্তরীণ কোন্দলের জের ধরে মুগদা থানা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক মো: শামীম আহমেদকে (৩০) দুর্বৃত্তরা এলোপাতাড়ি কুপিয়ে পালিয়ে গেছে। আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। গতকাল সোমবার রাতে একটি সালিসী বৈঠক শেষে ফেরার পথে মাণ্ডা পেয়ার আলী গলির অদূরে এ ঘটনা ঘটে। 
হাসপাতালে স্বেচ্ছাসেবক লীগের কর্মী তুহিন সাংবাদিকদের জানান, সোমবার রাত ৯টায় মুগদা মাণ্ডার পেয়ার আলী গলির সুম্ম মেম্বারের অফিসে পারিবারিক একটি সালিস বৈঠক শেষ করে মুগদা থানা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক শামীম আহমেদ বাসায় ফিরছিলেন। মেম্বার অফিসের কিছু দূর যাওয়ার পরই মাণ্ডা ৭১ নম্বর ওয়ার্ডের যুবলীগ সভাপতি বিপ্লবের নেতৃত্বে প্লাবন, ফারুক, হীরা, আলাউদ্দিনসহ ৮-১০ জনের একটি দল তার ওপর হামলা চালায়। এ সময় তারা তাকে মারধরের এক পর্যায়ে মাথায়, ঘাড়ে, গলায়, দুই হাত, পায়ের দুই উরু ও পিঠে ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে চলে যায়। তার চিৎকার শুনে আশপাশের লোকজনের সহায়তায় তাকে মুগদা জেনারেল হাসপাতালে নেয়া হয়। অবস্থার অবনতি হলে রাত সাড়ে ১০টায় তাকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।
হামলার কারণ সম্পর্কে তুহিন আরো জানান, আহত শামীমের ছোট ভাই বাবুকে চার মাস আগে বিপ্লব গ্রুপের সদস্যরা মারধর করেছিল। ওই সময় ৭২ নম্বর ওয়ার্ডের স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি পদপ্রাথী অনুকেও তারা মারধর করেছিল। এ নিয়ে মুগদা থানায় বিপ্লবের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছিল। এর জের ধরেই এ ঘটনা ঘটতে পারে বলে তিনি মনে করছেন। 
হাসপাতালে মুগদা থানার সাব ইন্সপেক্টর আবদুল আউয়াল জানান, অভ্যন্তরীণ কোন্দলের জের ধরে প্রতিপক্ষ গ্রুপের সদস্যরা তাকে কুপিয়ে থাকতে পারে। আহত শামীমের বাবার নাম মৃত শফিউল্লাহ ভূঁইয়া। মুগদা মাণ্ডার ১/১ নম্বর বাড়িতে তিনি পরিবার নিয়ে বসবাস করছিলেন। এক ছেলে এক মেয়ের জনক তিনি।

ads

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.