মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স
মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স

আজও কি তীরে এসে তরী ডোবাবে মোস্তাফিজরা?

নয়া দিগন্ত অনলাইন

উদ্বোধনী ম্যাচ থেকে এখনো পর্যন্ত কোনো ম্যাচে জয়ের দেখা পায়নি মোস্তাফিজের মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স। বর্তমান চ্যাম্পিয়ানরা শেষ ওভারে এসেই জয় থেকে ছিটকে যায়। তিনটি ম্যাচেই একই অবস্থা তাদের। তীরে এসেই তরী ডুবিয়ে ফেলে তারা। আজ চতুর্থ ম্যাচে তাদের প্রতিপক্ষ বিরাট কোহলির রয়্যাল চ্যালেঞ্জারস ব্যাঙ্গালুরু। বাংলাদেশ সময় রাত সাড়ে ৮টায় ম্যাচটি শুরু হবে।

এ পর্যন্ত তিন ম্যাচে মোস্তাফিজের পারফরমেন্স নজরকাড়া। সেরা বোলিং ফিগার ২৪ রানে ৩ উইকেট। তিন ম্যাচে উইকেট শিকার করেছেন পাঁচটি। সর্বোচ্চ উইকেটশিকারীর তালিকায় ছয় নম্বরে।

এই তিন ম্যাচের দুটিতে নাটকীয় শেষ ওভারটি করেছেন মোস্তাফিজ।

প্রথম ম্যাচে চেন্নাইয়ের বিপক্ষে শেষ ওভারে বল তুলে দেয়া হয় এই পেসারের হাতে। জয়ের জন্য চেন্নাইয়ের প্রয়োজন ৭ রান। স্ট্রাইকে কেদার যাদব। প্রথম তিন বলে কোনো রানই তুলতে দেননি তিনি। আশা বেড়ে যায় মুম্বাইয়ের। কিন্তু চতুর্থ বলেই হিসেব পাল্টে দিলেন যাদব। হাঁকান ছক্কা। পরের বলে বাউন্ডারি। এক বল বাকি থাকতেই মুম্বাইয়ের হারের সূচনা হলো।

দ্বিতীয় ম্যাচে শেষ ওভারটি করেন বেন কাটিং। জিততে সানরাইজার্স হায়দরাবাদের প্রয়োজন ১১ রান। প্রথম আর শেষ বলে ছক্কা হাকিয়ে জয় ছিনিয়ে নেয় সাকিবরা। দ্বিতীয় হার নিয়ে মাঠ ছাড়ে মুম্বাই।

তৃতীয় ম্যাচটি ছিল দিল্লি ডেয়ার ডেভিলসের বিপক্ষে। শেষ ওভারে আবার বল মোস্তাফিজের হাতে। এবার দিল্লির প্রয়োজন ১১ রান। প্রথম বলে জেসন রয় বাউন্ডারি হাঁকালেন আর পরের বলে ছক্কা! ম্যাচ তখনই শেষ। কিন্তু মোস্তাফিজ যেন হাল ছাড়েননি। পরের তিনটি বলই ডট দিলেন! টান টান উত্তেজনা দুই দলে। এক বলে প্রয়োজন ১ রান। কিন্তু হলো না এবারও। বল উড়িয়ে মারলেন রয়। জিতে গেলো দিল্লি। হারের হ্যাটট্রিক করলো মুম্বাই।

আজ কি হারের বৃত্ত থেকে বেরিয়ে যেতে পারবে মোস্তাফিজরা। শেষ ওভারের আতঙ্ক থেকে বেরিয়ে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়তে পারবে, তার জন্য অপেক্ষা করতে হবে সন্ধ্যা পর্যন্ত।

 

মোস্তাফিজকে প্রশংসায় ভাসালেন ভারতের সাবেক ক্রিকেটার

জয়ের কাছাকাছি গিয়েও তরী ভিড়াতে পারছে না আইপিএলের বর্তমান চ্যাম্পিয়ন মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স। তিনটি ম্যাচের একটিওতে জিততে পারেনি তারা। তবে প্রথমবারের মতো দলটির হয়ে খেলা মোস্তাফিজের বোলিং কিন্তু নজর কাড়ছে সবার। তাই প্রশংসায় ভাসছেন তিনি। ভারতের সাবেক ক্রিকেটার জহির খান তো মোস্তাফিজের বোলিংয়ে মুগ্ধ। বলেছেন, প্রতি ম্যাচেই দুর্দান্ত খেলছেন বাংলাদেশের এই পেসার। তবে তাকে সঠিকভাবে ব্যবহার করতে পারেননি অধিনায়ক রোহিত শর্মা।

১১তম আসরে তিনটি ম্যাচ খেলেছে মোস্তাফিজের মুম্বাই। চেন্নাইয়ের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচে এগিয়ে থেকেও জিততে পারেনি তারা। দ্বিতীয় ম্যাচে হায়দরাবাদের কাছে মাত্র ১ উইকেটে হারে। আর তৃতীয় ম্যাচে দিল্লির বিপক্ষে ১৯৪ রানের বড় স্কোর করেও জিততে পারেনি। তবে মোস্তাফিজ ছিলেন নিজ ছন্দেই। তিন ম্যাচে তিনি শিকার করেছেন পাঁচটি উইকেট। সেরা বোলিং ফিগার ২৪ বলে তিন উইকেট।

মুম্বাইয়ের পারফরমেন্স নিয়ে কথা বলতে গিয়ে ধারাভাষ্যকারের দায়িত্ব পালন করা জহির খান বলেন, 'ইনিংসের শুরুর দিকে দলের দুই সেরা বোলার মোস্তাফিজ আর বুমরাহকে ব্যবহার করছেন না রোহিত। তিনি তাদেরকে ডেথ ওভারের জন্য রেখে দিচ্ছেন। কিন্তু শুরুর দিকে তাদের ব্যবহার করলে উইকেট পেত এবং ম্যাচের ফলাফল অন্য রকম হতে পারত।'

এ সময় মোস্তাফিজের প্রশংসা করে তিনি বলেন, 'প্রতি ম্যাচেই দারুণ শুরু করেছেন মোস্তাফিজ। তার বোলিং দেখে বোঝাই যাচ্ছে শুরুর দিকে প্রতিপক্ষের ব্যাটিং লাইন-আপ বিধ্বস্ত করে দেয়ার মতো বোলার তিনি।'

আগামীকাল চতুর্থ ম্যাচে মাঠে নামছে মোস্তাফিজরা। প্রতিপক্ষ বিরাট কোহলির রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরু। বাংলাদেশ সময় রাত সাড়ে ৮টায় ম্যাচটি শুরু হবে।

 

আরো ধারালো হচ্ছে মোস্তাফিজের বোলিং

আইপিএলে অভিষেকেই উজ্জ্বল ছিলেন বাংলাদেশের হাসিমুখের ঘাতক মোস্তাফিজুর রহমান। সানরাইজার্স হায়দরাবাদের প্রথম শিরোপাজয়ের অন্যতম নায়ক ছিলেন তিনি। হয়েছিলেন সেরা উদীয়মার তারকা। মাঝে ইনজুরিতে এক আসরে পাখা মেলে উড়তে পারেনি। তবে এবার আবারো বল হাতে আগুন ঝরানো সেই মোস্তাফিজ। খেলছেন নতুন দল মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের হয়ে। দুর্দান্ত বোলিংয়ে চমক দেখিয়ে যাচ্ছেন। এ পর্যন্ত তিন ম্যাচে শিকার করেছেন পাঁচটি উইকেট। আরো ধারালো হচ্ছে তার বোলিং, শিখছেন নতুন কৌশল- এমনটাই জানালেন এই কাটার মাস্টার।

মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স বরাবরাই উচ্ছ্বসিত মোস্তাফিজকে নিয়ে। প্রতিনিয়ত তার আপডেট জানাচ্ছে। দলটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে মোস্তাফিজের নতুন একটি ভিডিও পোস্ট করেছে। সেখানে নিজের অভিজ্ঞতার কথা জানিয়েছেন মোস্তাফিজ। বলেন, 'এই বছর প্রথম মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সে খেলছি। এর আগের দুই বছর আমি হায়দরাবাদে ছিলাম। নতুন ড্রেসিং রুম, এখানে অনেক সিনিয়র খেলোয়াড় আছেন। আমার বয়সীও অনেকে আছেন। টিম কম্বিনেশন অনেক ভালো। কোচরা যথেষ্ট সাহায্য করছেন। খেলোয়াড়রাও অনেক সাহায্য করছেন।'

কোচ মাহেলা জয়াবর্ধনে ও শেন বন্ডের সাথে কাজ করতে পেরে উচ্ছ্বসিত মোস্তাফিজ। বলেন, 'নতুন কোচের সাথে কাজ করার সুবিধা হলো অনেক কিছু শেখা যায়। আমিও শেখার চেষ্টা করছি। বুমরাহ খুব ভালো বোলিং করছে। ডেথ ওভারে বেশি ভালো। দু'জন একসাথে বোলিং করতে পেরে ভালো লাগছে।'

এর আগে নববর্ষের শুভেচ্ছা জানানো মোস্তাফিজের আরো একটি ভিডিও পোস্ট করে মুম্বাই।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.