ভিডিও ইউটিউবে ভাইরাল হওয়ার পর গাম্ভীর সিংকে পাওয়া গেলে সেই ফটোগ্রাফার ফিরোজ শাকির তার সাথে ছবি তুলে তা টুইট করেন।
ভিডিও ইউটিউবে ভাইরাল হওয়ার পর গাম্ভীর সিংকে পাওয়া গেলে সেই ফটোগ্রাফার ফিরোজ শাকির তার সাথে ছবি তুলে তা টুইট করেন।

নিখোঁজের ৪০ বছর পর স্বজনের কাছে ফেরালো ইউটিউব ভিডিও

নয়া দিগন্ত অনলাইন

নিখোঁজ হওয়ার ৪০ বছর পর ইউটিউব ভিডিও’র মাধ্যমে সাবেক একজন ভারতীয় সেনাসদস্য হাজারো মাইল দূরে তার স্বজনদের দেখা পেয়েছেন।

খোমদ্রাম গাম্ভীর সিং নামের এই ব্যক্তি ২৬ বছর বয়সে ১৯৭৮ সালে হঠাৎ করেই নিখোঁজ হয়ে যান।

তার বাড়ি ভারতের মনিপুর রাজ্যের রাজধানী ইমফলে। কিন্তু নিখোঁজ হওয়ার ৪০ বছর পর তাকে পাওয়া যায় অনেক দূরের শহর মুম্বাইতে।

এখন তার বয়স হয়েছে ৬৬।

প্রথমে এই খোমদ্রাম গাম্ভীর সিং-এর একজন ভাতিজা ইউটিউবে একটি ভিডিও দেখে তাকে চিনতে পারেন।

ফিরোজ শাকরি নামের একজন ফটোগ্রাফার মুম্বাইয়ের রাস্তায় বিভিন্ন বিষয় নিয়ে ভিডিও করেছিলেন। তিনি অনেক ছবিও তুলেছিলেন।

এই ফটোগ্রাফার তার ভিডিওগুলো ইউটিউবে প্রকাশ করলে তা ভাইরাল হয়।

ভিডিওতে দেখা যায়, পরিবার থেকে নিখোঁজ হওয়া খোমদ্রাম গাম্ভীর সিং পুরোনো দিনের হিন্দি গান গেয়ে রাস্তায় ভিক্ষা করছেন।

তার ভাতিজা ইউটিউবে সেই ভিডিও দেখে তাকে চিনতে পেরে অন্য স্বজনদের জানান।

তখন স্বজনরা মনিপুরের ইমফল পুলিশের সাথে যোগাযোগ করেন।

স্বজনদের মধ্যে খোমদ্রাম কুলাচন্দ্রা তার ভাই গাম্ভীর সিংয়ের ছবি পুলিশকে দেন। সেই ছবি নিয়ে ইমফলের পুলিশ যোগাযোগ করে মুম্বাইয়ের পুলিশের সাথে।

মুম্বাই পুলিশ ওই ছবিকে ভিত্তি করে খোমদ্রাম গাম্ভীর সিংকে খুঁজে বের করে।

পুলিশ তাকে মুম্বাইয়ের যে এলাকা থেকে উদ্ধার করেছে, সেখানে তিনি মানবেতর জীবনযাপন করতেন।

পুলিশ পরিদর্শক পন্ডিত ঠাকরে বিবিসিকে বলেছেন, ‘আমরা তাকে মুম্বাইয়ের বান্দ্রা এলাকার একটি রেলস্টেশনের বাইরে খুঁজে পাই। তার অবস্থা খুব খারাপ ছিল।’

যুবক বয়সে নিখোঁজ হওয়ার ৪০ বছর পর বৃদ্ধ হয়ে খোমদ্রাম গাম্ভীর সিং পরিবারের কাছে ফিরে গেছেন বৃহস্পতিবার।

তার ভাই খোমদ্রাম কুলাচন্দ্রা দ্যা হিন্দু পত্রিকাকে বলেন, ‘আমার এক ভাতিজা যখন আমাকে ভিডিওটি দেখায়, আমি তখন নিজের চোখকে বিশ্বাস করতে পারছিলাম না। আমরা তাকে ফিরে পাওয়ার সব আশা ছেড়েই দিয়েছিলাম।’

তিনি আরও জানিয়েছেন, তার ভাই খোমদ্রাম গাম্ভীর সিং ভারতের সেনাবাহিনীতে সৈনিক পদে চাকরি করতেন এবং ১৯৭৮সালে বিয়ে করার এক মাস পরই বাড়ি ছেড়ে নিখোঁজ হন।

তখন অনেক খোঁজ করার পর স্বজনরা তাকে ফিরে পাওয়ার আশাই ছেড়ে দিয়েছিলেন।

সূত্র: বিবিসি

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.