সেনাবাহিনীতে সৈনিক পদে নিয়োগ

মাহমুদা সুলতানা

বাংলাদেশ সেনাবাহিনী
সৈনিক পদে নিয়োগের
জন্য বিজ্ঞপ্তি দিয়েছে।
বাংলাদেশ সেনাবাহিনীতে
মে ২০১৮-এর বিজ্ঞপ্তিতে উল্লিখিত স্থান, তারিখ,
সময় ও জেলা
অনুযায়ী বিভিন্ন আর্মস/ সার্ভিসেস সেন্টারে
সৈনিক পদে (ট্রেড-২-এর জন্য) লোক নিয়োগের
বিজ্ঞপ্তি দিয়েছে।
সেনাবাহিনীতে যোগদানে আগ্রহী অবিবাহিত পুরুষ
প্রার্থীরা আবেদন করতে পারবেন।
লিখেছেন মাহমুদা সুলতানা


আবেদনের যোগ্যতা : বাংলাদেশের নাগরিক হতে হবে। প্রার্থীকে সাঁতার জানতে হবে।
বয়সসীমা : ২২ জুলাই ২০১৮ তারিখে প্রার্থীর বয়স ১৭ থেকে ২০ বছর হতে হবে।
শিক্ষাগত যোগ্যতা : প্রার্থীকে আবেদনের জন্য এসএসসি বা সমমান পাস হতে হবে। জিপিএ কমপে ২.৫০ পেতে হবে। তবে পেইন্টার ডেকোরেটর ও পেইন্টার পেশায় প্রার্থীকে বিজ্ঞান বিভাগ থেকে এসএসসি পাস হতে হবে। এ েেত্রও জিপিএ ২.৫০ পেতে হবে।
ট্রেড-২-এর পেশাসমূহ : কুক (মেস), কুক (ইউনিট), কুক (হাসপাতাল), ইকুইপমেন্ট অ্যান্ড বুট রিপেয়ারার (ইঅ্যান্ডবিআর), বাদক, ব্রাসব্যান্ড, কারপেন্টার, পেইন্টার ডেকোরেটর (পিডি), পেইন্টার, টিন স্মিথ (টিএস), কাটিং অ্যান্ড জয়েনিং (সিঅ্যান্ডজে) ও টেইলার।
পেশা সংশ্লিষ্ট যোগ্যতা : কুক পেশায় আবেদনের জন্য প্রার্থীকে উন্নতমানের রান্নায় পারদর্শী হতে হবে। ইকুইপমেন্ট অ্যান্ড বুট রিপেয়ারার প্রার্থীদের বুট মেরামত বা সেলাইয়ে পারদর্শী হতে হবে। টেইলার পেশায় আবেদনের জন্য সেলাইয়ের ওপর কমপে তিন মাসের প্রশিণ থাকতে হবে, বিশেষ করে প্যান্ট ও শার্ট সেলাইয়ে পারদর্শী হতে হবে। কার্পেন্টার ও কাটিং অ্যান্ড জয়েনিং পেশায় আগ্রহী প্রার্থীদের কাঠমিস্ত্রি কাজে পারদর্শী হতে হবে। পেইন্টার ডেকোরেটর ও পেইন্টার পেশায় আবেদনের জন্য প্রার্থীদের পেইন্টিং কাজে পারদর্শিতা থাকতে হবে। টিন স্মিথ পেশায় যোগদানে আগ্রহী প্রার্থীদের টিন মেরামত বা কাটার কাজে দতা থাকতে হবে। বাদক ও ব্রাসব্যান্ড পেশার েেত্র বিভিন্ন বাদ্যযন্ত্রে (ড্রাম, বিবি ক্যারিনেট, ইবি ক্যারিনেট, বিবি ট্রামপেট) পারদর্শীরা অগ্রাধিকার পাবেন।
শারীরিক যোগ্যতা : আগ্রহী পুরুষ প্রার্থীদের উচ্চতা কমপে ১.৬৮ মিটার বা ৫ ফুট ৬ ইঞ্চি থাকতে হবে। তবে বিভিন্ন ুদ্র নৃগোষ্ঠী ও সম্প্রদায়ের প্রার্থীর জন্য উচ্চতা ১.৬৩ মিটার বা ৫ ফুট ৪ ইঞ্চি থাকতে হবে। ওজন কমপে ৪৯.৯০ কেজি বা ১১০ পাউন্ড থাকতে হবে। বুকের মাপ হতে হবে স্বাভাবিক অবস্থায় ০.৭৬ মিটার বা ৩০ ইঞ্চি আর সম্প্রসারিত অবস্থায় ০.৮১ মিটার বা ৩২ ইঞ্চি।
স্বাস্থ্য পরীক্ষা : স্বাস্থ্য পরীক্ষায় যোগ্য।
বৈবাহিক অবস্থা : অবিবাহিত (তালাকপ্রাপ্ত নয়)
সাঁতার : সাঁতার জানা অত্যাবশ্যক।
ভর্তির দিন প্রার্থীদের যেসব কাগজপত্র সাথে আনতে হবে : ভর্তির দিন প্রার্থীকে শিাগত যোগ্যতার সব মূল সনদপত্র বা মার্কশিট সাথে আনতে হবে। আর ফটোকপি হলে তা সত্যায়িত হতে হবে। এ ছাড়া শিাপ্রতিষ্ঠানের প্রধানের কাছ থেকে পাওয়া স্থায়ী ঠিকানা ও জন্ম তারিখ সংবলিত মূল প্রশংসাপত্র, সংশ্লিষ্ট চেয়ারম্যান কর্তৃক অভিভাবকের সম্মতিসূচক সত্যায়িত সনদপত্র, সংশ্লিষ্ট চেয়ারম্যান কর্তৃক দেয়া জন্মসূত্রে নাগরিকত্ব ও চারিত্রিক সনদের মূলকপি, এসএসসি বা এইচএসসির প্রবেশপত্র। সদ্য তোলা নীল বা আকাশি ব্যাকগ্রাউন্ডের ৬ কপি (৫ সে.মি. দ্ধ ৪ সে.মি.) পাসপোর্ট সাইজের ও ২ কপি (২.৫ সে.মি. দ্ধ২ সে.মি.) স্ট্যাম্প সাইজের ছবি। টেইলার পদের প্রার্থীদের সেলাইসংক্রান্ত প্রশিণ সনদপত্র সাথে আনতে হবে। কোটার প্রার্থীদের েেত্র প্রয়োজনীয় সব সনদ লাগবে। ‘সেনা সদর, এজি শাখা, পিএ পরিদফতর’-এর নামে সোনালী ব্যাংক, ঢাকা সেনানিবাস, করপোরেট শাখার অনুকূলে সোনালী ব্যাংকের যেকোনো শাখা থেকে ২০০ টাকার পে-অর্ডার বা ব্যাংক ড্রাফট জমা দিয়ে তার কপি সাথে আনতে হবে। সাঁতার পরীার জন্য লাগবে প্রয়োজনীয় পোশাক। লিখিত পরীক্ষা দেয়ার জন্য কলম, পেনসিল, স্কেল, কিপবোর্ড ইত্যাদি লাগবে।
মুক্তিযোদ্ধা কোটা : মুক্তিযোদ্ধা পোষ্যদের জন্য ভর্তির শর্তপূরণ স্বাপেক্ষে ৩০% কোটা নির্ধারিত থাকবে।
নিয়োগপ্রক্রিয়া : প্রার্থীকে নির্ধারিত তারিখ ও সময়ানুযায়ী সব কাগজপত্র নিয়ে নিজ জেলার ভর্তি কেন্দ্রে উপস্থিত থাকতে হবে। স্বাস্থ্য পরীায় প্রার্থীর উচ্চতা, বুকের মাপ, সাঁতারে দতা, উচ্চতানুযায়ী ওজনের সামঞ্জস্যতা ও বিভিন্ন শারীরিক সমতা যাচাই করা হবে। পরীার দিন ব্যায়ামের উপযোগী ঢিলেঢালা পোশাক পরলে শারীরিক পরীার ধাপগুলো সহজ হবে। সাঁতারের পোশাকও সাথে রাখতে হবে।
নির্বাচনপদ্ধতি : লিখিত পরীক্ষা (বাংলা, ইংরেজি, গণিত ও সাধারণ জ্ঞান), স্বাস্থ্য পরীক্ষা ও ব্যবহারিক বা সাক্ষাৎকারের মাধ্যমে প্রার্থী নির্বাচন করা হবে। লিখিত পরীায় উত্তীর্ণদের মৌখিক পরীার জন্য ডাকা হবে।
জেলার নাম, কোটা, ট্রেড, ভর্তি পরীক্ষার স্থান, তারিখ ও সময় : নিচে বর্ণিত আর্মস/সার্ভিসেস সেন্টারগুলোয় উল্লিখিত তারিখ, জেলা ও বিজ্ঞপ্তিতে উল্লিখিত ট্রেড অনুযায়ী সকাল ৮টা থেকে ট্রেড-২তে সৈনিক পদে লোক নিয়োগের ভর্তি কার্যক্রম শুরু হবেÑ
এসিসিঅ্যান্ডএস, বগুড়া সেনানিবাসে বগুড়া ও গাইবান্ধার প্রার্থীদের ৬ মে ও জয়পুরহাট, কুড়িগ্রাম ও সিরাজগঞ্জের প্রার্থীদের ৮ মে ২০১৮ তারিখে ভর্তি কার্যক্রম চলবে।
এসিঅ্যান্ডএস, হালিশহর চট্টগ্রামে, নোয়াখালী, ফেনী ও চাঁদপুরের প্রার্থীদের ৬ মে; ব্রাহ্মণবাড়িয়া, সিলেট ও সুনামগঞ্জের প্রার্থীদের ৮ মে এবং মৌলভীবাজার ও হবিগঞ্জ জেলার প্রার্থীদের ১০ মে ২০১৮ তারিখে ভর্তি কার্যক্রম চলবে।
ইসিএসএমই, কাদিরাবাদ সেনানিবাস নাটোরে নাটোর, পাবনা ও রাজবাড়ী জেলার প্রার্থীদের ৬ মে, নওগাঁ, মানিকগঞ্জ ও মাগুরা জেলার প্রার্থীদের ৮ মে ২০১৮ তারিখে ভর্তি কার্যক্রম চলবে।
এসটিসিঅ্যান্ডএস, যশোর সেনানিবাসে নড়াইল, যশোর ও ঝিনাইদহের প্রার্থীদের ৬ মে, শরীয়তপুর, গোপালগঞ্জ ও মাদারীপুর জেলার প্রার্থীদের ৮ মে এবং সাতক্ষীরা ও ফরিদপুর জেলার প্রার্থীদের ১০ মে ২০১৮ তারিখে ভর্তি কার্যক্রম চলবে।
ইবিআরসি, চট্টগ্রাম সেনানিবাসে বান্দরবান, খাগড়াছড়ি, রাঙ্গামাটি ও কক্সবাজার জেলার প্রার্থীদের ৬ মে এবং চট্টগ্রাম, লীপুর ও কুমিল্লা জেলার প্রার্থীদের ৮ মে ২০১৮ তারিখে ভর্তি কার্যক্রম চলবে।
বিআইআরসি, রাজশাহী সেনানিবাসে মেহেরপুর ও চুয়াডাঙ্গা জেলার প্রার্থীদের ৬ মে, চাঁপাইনবাবগঞ্জ ও কুষ্টিয়া জেলার প্রার্থীদের ৮ মে এবং রাজশাহী জেলার প্রার্থীদের ১০ মে ২০১৮ তারিখে ভর্তি কার্যক্রম চলবে।
এএসসিসিঅ্যান্ডএস, জাহানাবাদ সেনানিবাস, খুলনায় খুলনা, বাগেরহাট ও ঝালকাঠি জেলার প্রার্থীদের ৬ মে, বরগুনা, বরিশাল ও ভোলা জেলার প্রার্থীদের ৮ মে এবং পটুয়াখালী ও পিরোজপুর জেলার প্রার্থীদের ১০ মে ২০১৮ তারিখে ভর্তি কার্যক্রম চলবে।
এএমসিসিঅ্যান্ডএস, শহীদ সালাউদ্দিন সেনানিবাস, ঘাটাইল, টাঙ্গাইলে টাঙ্গাইল, ময়মনসিংহ ও জামালপুর জেলার প্রার্থীদের ৬ মে এবং শেরপুর, কিশোরগঞ্জ ও নেত্রকোনা জেলার প্রার্থীদের ৮ মে ২০১৮ তারিখে ভর্তি কার্যক্রম চলবে।
ওসিঅ্যান্ডএস, রাজেন্দ্রপুর সেনানিবাসে নরসিংদী ও মুন্সীগঞ্জজেলার প্রার্থীদের ৬ মে এবং ঢাকা, গাজীপুর ও নারায়ণগঞ্জ জেলার প্রার্থীদের ৮ মে ২০১৮ ভর্তি কার্যক্রম চলবে।
ইএমইসিঅ্যান্ডএস, সৈয়দপুর সেনানিবাসে পঞ্চগড়, ঠাকুরগাঁও ও রংপুর জেলার প্রার্থীদের ৬ মে এবং দিনাজপুর, লালমনিরহাট ও নীলফামারী জেলার প্রার্থীদের ৮ মে ২০১৮ তারিখে ভর্তি কার্যক্রম চলবে।
বেতন ও সুযোগ-সুবিধা : নিয়োগপ্রাপ্তরা নির্ধারিত স্কেল অনুযায়ী বেতনভাতা, পেনশন ও নিজ ও পরিবারের জন্য ভর্তুকি মূল্যে রেশন সুবিধা পাবেন। এ ছাড়া রয়েছে বিনামূল্যে বাসস্থান ও আহার, বিনামূল্যে পোশাক, সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে নিজ ও পরিবারের চিকিৎসা সুবিধা, সেনাবাহিনী কর্তৃক পরিচালিত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে
সন্তানের পড়ালেখা ও উচ্চশিার সুযোগ। থাকবে জাতিসঙ্ঘ শান্তিরা মিশনে যাওয়ার সুযোগ ও সেনাপল্লীতে প্লট প্রাপ্তির সুবিধা।
যোগাযোগ : পরিচালক, পার্সোনেল অ্যাডমিনিস্ট্রেশন পরিদফতর, অ্যাডজুটেন্ট জেনারেল শাখা, সেনাবাহিনী সদর দফতর, ঢাকা সেনানিবাস।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.