জলঢাকার ৩০ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত

নীলফামারী সংবাদদাতা

ঝড়ে গত বৃহস্পতিবার রাতে লণ্ডভণ্ড হয়ে গেছে নীলফামারীর জলঢাকা উপজেলার ৩০টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। ক্ষতিগ্রস্ত বেশির ভাগ প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা খোলা আকাশের নিচে কাস করছে। এতে ব্যাহত হচ্ছে শিাকার্যক্রম।
উপজেলা প্রাথমিক ও মাধ্যমিক শিা অফিস সূত্রে জানা গেছে, প্রাথমিক বিদ্যালয় ২১টি ও মাধ্যমিক স্তরের নয়টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এতে তির পরিমাণ প্রায় ৬১ লাখ ১০ হাজার টাকা। কোনো কোনো প্রতিষ্ঠানে কাঁচা কগুলো দুমড়ে-মুচড়ে গেছে। কোথাও আধাপাকা শ্রেণিকক্ষের চাল উড়ে গেছে। তাই খোলা আকাশের নিচে চলছে পাঠদান।
উত্তর বগুলাগাড়ী মাস্টার পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক মিজানুর রহমান বলেন, ঝড়ে তার বিদ্যালয়ের শ্রেণিকগুলো তি হওয়ায় আকাশে একটু মেঘ দেখলেই ছুটি দেয়া ছাড়া পথ থাকে না। জলঢাকা পৌরসভা কলেজিয়েট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক ময়েন উদ্দিন জানান, তার চারটি শ্রেণিকরে কোনো অস্তিত্ব নেই। চট বিছিয়ে ও অবশিষ্ট কিছু বেঞ্চ দিয়ে পাঠদান অব্যাহত রাখছি।
জলঢাকা উপজেলা মাধ্যমিক শিা কর্মকর্তা চঞ্চল কুমার ভৌমিক বলেন, ক্ষতিগ্রস্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ও তির পরিমাণ উল্লেখ করে ইতোমধ্যে সংশ্লিষ্ট দফতরে চাহিদাপত্র পাঠানো হয়েছে। উপজেলা প্রাথমিক শিাকর্মকর্তা কাজল কুমার সরকার বলেন, সহকারী শিা কর্মকর্তাদের দিয়ে তিগ্রস্ত প্রতিষ্ঠানগুলোর তালিকা করা হয়েছে।
উপজেলা শিা কমিটির সভাপতি ও উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান সৈয়দ আলী জানান, ক্ষতিগ্রস্ত প্রতিষ্ঠানগুলোর তালিকা করে একটি চাহিদাপত্র জেলা প্রশাসক বরাবর পাঠানো হয়েছে।

 

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.