অন্ধকার ঘরে টেলিভিশন দেখা ক্ষতিকর

তোমরা টেলিভিশন দেখতে পছন্দ করো, তাই না? আমরা প্রতিদিন সবাই কম-বেশি টেলিভিশন দেখি। কেউ কেউ আবার বেশ আয়েশ করেই টেলিভিশন দেখতে বসেন। তখন দেখা যায় বেশি আরামে আর প্রশান্তিতে টেলিভিশন দেখার জন্য ঘরের দরজা-জানালা বন্ধ করে দেন। সেই সাথে ঘরের বাতিগুলোও নিভিয়ে ঘরটা অন্ধকার করে নেন। তারা ভাবেন অন্ধকার ঘরেই টেলিভিশনের পর্দায় ছবি বেশি স্বচ্ছভাবে দেখা যায়। কিন্তু ধারণাটা ভুল। সাদা আলোতেই মানুষের চোখ সব থেকে ভালো কাজ করে এবং সব থেকে বেশি পরিষ্কারভাবে দেখা যায়। তাই টেলিভিশন দেখার সময় ঘরে অবশ্যই আলো থাকা প্রয়োজন। তবে খেয়াল রাখতে হবে সে আলো যেন সরাসরি টেলিভিশনের পর্দায় না পড়ে। কারণ তাহলে কিছু আলো প্রতিফলিত হয়ে ছবিটাই নষ্ট করে তুলতে পারে। আর চিকিৎসাশাস্ত্রে অন্ধকার ঘরে টেলিভিশন দেখার প্রধান দু’টি অসুবিধা আছে :
প্রথমত, টেলিভিশনের তীব্র উজ্জ্বল আলো চোখের ভেতরে অভ্যন্তরীণ প্রতিফলন ঘটায়, যা চোখের অক্ষিপটকে ক্ষতিগ্রস্ত করে তোলে।
দ্বিতীয়ত, অন্ধকার ঘরে টেলিভিশনের পর্দার আলো এত বেশি চোখে প্রভাব ফেলে যে, তাতে চোখ সহজেই ক্লান্ত হয়ে পড়ে।
এসব ক্ষতিকর প্রভাব থেকে চোখকে রক্ষা করার জন্য টেলিভিশনের পর্দা থেকে কমপক্ষে তিন থেকে চার ফুট দূরে বসা উচিত। আর টেলিভিশনের উচ্চতা হওয়া উচিত চার ফুট, যাতে পর্দার অবস্থান দৃষ্টির সোজাসুজি হয়। এতে চোখের ক্লান্তি অনেকটা কম হবে।
নিশ্চয়ই তোমরা অন্ধকার ঘরে বসে টেলিভিশন দেখবে না। তোমরা কত্ত বুদ্ধিমান! নিজের ক্ষতি তো নিজে কেউ করে না, তাই না? আর টেলিভিশন দেখতে হয় অবসর সময়ে।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.