যুক্তরাষ্ট্রে স্কুলে গুলি, নিহত ১০
যুক্তরাষ্ট্রে স্কুলে গুলি, নিহত ১০

যুক্তরাষ্ট্রে স্কুলে গুলি, নিহত ১০

নয়া দিগন্ত অনলাইন

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাসের সান্টা ফে-র হাইস্কুলে শুক্রবার বন্দুকবাজের হামলায় অন্তত ১০ জন নিহত হয়েছে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। হতাহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। বন্দুকধারী স্কুলে প্রবেশ করে নির্বিচারে গুলি চালায় বলে বিবিসি, সিএনএনসহ আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমগুলো জানিয়েছে। হামলাকারীর পরিচয় তাৎক্ষণিকভাবে জানা যায়নি। তবে তার হাতে শর্টগান ছিল বলে জানা গেছে।

শুক্রবার স্কুল চত্বরের মধ্যে হঠাৎ করে গুলির শব্দে আতঙ্ক তৈরি হয়। স্কুল কর্তৃপক্ষ ঝুঁকি না নিয়ে তড়িঘড়ি ছাত্রদের ছুটি দিয়ে, স্কুল ক্যাম্পাস খালি করার চেষ্টা করে। এর মধ্যেই ওই বন্দুকবাজের গুলিতে অন্তত ১০ জন প্রাণ হারায় বলে বিবিসি সূত্রে খবর পাওয়া গেছে।

পুলিশ সূত্রে খবর, হাউসটন থেকে ৪৮ কিলোমিটার দক্ষিণপূর্বে সান্টা-ফে'র একটি হাইস্কুলে শুক্রবার সকালে বন্দুক হাতে হামলা হয়েছে। সন্দেহভাজন বন্দুকবাজকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে পুলিশ দাবি করে।

এই নিয়ে গত এক সপ্তাহে আমেরিকার তিনটি স্কুলে বন্দুক হামলার ঘটনা ঘটল। আর সব মিলিয়ে স্কুলে বন্দুকবাজের হামলার ঘটনা ঘটেছে ২২টি।


স্কুলটির সহকারী প্রিন্সপাল ক্রিস রিচার্ডসন জানিয়েছেন, হামলাকারী সন্দেহে একজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। সন্দেহভাজন আরও একজনকে আটক করে জিগ্যাসাবাদ চলছে।

ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী এক ব্যক্তি সংবাদ সংস্থাকে জানান, গুলির আওয়াজে ছাত্রছাত্রীরা হুড়ুোহুড়ি শুরু করে দেয়। এক ছাত্রীর পায়ে গুলি লাগতে দেখেন আর এক প্রত্যক্ষদর্শী। ঠিক কতজন ছাত্র আহত হয়েছেন, তা এখনও পরিষ্কার নয়। তবে, এক পুলিশকর্মী গুলিতে জখম হয়েছেন বলে খবর।


ফিলিস্তিনিদের ওপর ইসরাইলের হামলার ঘটনায় ওআইসির জরুরি বৈঠক ডেকেছেন এরদোগান
তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়ের এরদোগান ফিলিস্তিনিদের প্রতি সংহতি জানাতে এবং গাজায় ফিলিস্তিন বিক্ষোভকারীদের ওপর ইসরাইলী হামলায় হতাহতের ঘটনার নিন্দা জানাতে শুক্রবার ইসলামিক সহযোগিতা সংস্থা (ওআইসি)র জরুরি বৈঠক আহ্বান করেছেন।

অর্ধবছরের মধ্যে এটি এরদোগানের আমন্ত্রণে দ্বিতীয় জরুরি বৈঠক।
এরদোগান গত সোমবার ইসরাইলী বাহিনী নির্বিচারে গুলি চালিয়ে গাজা সীমান্তে ৬০ জন ফিলিস্তিনি হত্যার ঘটনাকে গণহত্যা হিসেবে এবং ইসলাইলকে জাতিবিদ্বেষী দেশ হিসেবে উল্লেখ করেন।
এরদোগানের বক্তব্যের পরে তুরস্ক ও ইসরাইলের মধ্যে কূটনৈতিক সংকট সৃষ্টি হয়। এরদোগান ফিলিস্তিনিদের ওপর হামলার ঘটনার প্রতিবাদে শুক্রবার বিশাল গণবিক্ষোভের ডাক দিয়েছেন।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম জেরুজালেমকে ইসরাইলের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতিদানের প্রতিবাদ জানিয়ে এরদোগান গত বছরের ডিসেম্বরে ওআইসি’র বিশেষ বৈঠকের আয়োজন করেছিলেন।
তিনি ইতোমধ্যেই অঙ্গীকার ঘোষণা করেছেন শুক্রবারের সম্মেলনে ফিলিস্তিনের ওপর ইসরাইলের হামলার ঘটনায় বিশ্বকে একটি কঠোর বার্তা জানানো হবে।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.