১৯ জুলাই ২০১৮

এখনো ৩০ হাজার হজযাত্রী বিমানের টিকিট কাটেননি

হজযাত্রী - ছবি : সংগৃহীত

এ বছরের হজ ফাইট শুরু হতে আর মাত্র পাঁচ দিন বাকি থাকলেও এখনো প্রায় ৩০ হাজার হজযাত্রী টিকিট কাটেননি। দ্রুত টিকিট না কাটলে সঙ্কট দেখা দিতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছে বিমান। ওই মন্ত্রণালয়ের সচিব জানিয়েছেন, এবার কোনো ফাইট খালি যেতে পারবে না এবং নির্দিষ্ট ফাইটের বাইরে নতুন করে আর কোনো ফাইট পরিচালনারও সুযোগ নেই। 

গতকাল ধর্ম মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে আসন্ন হজের প্রস্তুতি নিয়ে এক সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় ধর্মমন্ত্রী অধ্যক্ষ মতিউর রহমানের সভাপতিত্বে ধর্ম, বিমান, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, হজ অফিস, স্বাস্থ্য অধিদফতর, হাবসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও সংস্থার কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। সভায় বিমান মন্ত্রণালয়ের ভারপ্রাপ্ত সচিব ড. মহিবুল হক বলেন, আগামী ১৪ জুলাই থেকে হজ ফাইট শুরু হবে। এ বছর মোট এক লাখ ২৬ হাজার ৭৯৮ জন হজে যাবেন। এর মধ্যে বাংলাদেশ বিমান ১৮৭টি ফাইটের মাধ্যমে ৬৪ হাজার ৯৬৭ জন এবং সাউদিয়া এয়ারলাইন্স ১৮৮টি ফাইটের মাধ্যমে ৬১ হাজার ৮৩১ জন হজযাত্রী পরিবহন করবে। তিনি জানান, এ পর্যন্ত ৫১ হাজার এবং সাউদিয়ার ৪৬ হাজার ৭৫৫টি টিকিট বিক্রি হয়েছে। এখন পর্যন্ত ৩০ হাজার টিকিট অবিক্রীত রয়েছে। সচিব বলেন, এ বছর সৌদি সরকার নতুন নিয়ম করেছে। এতে কোনো ফাইট খালি যেতে পারবে না। এ ছাড়া নির্দিষ্ট ফাইট শিডিউলের বাইরে নতুন করে আর কোনো ফাইট বাড়ানোরও সুযোগ নেই। এ জন্য তিনি অতিদ্রুত হজযাত্রীদের টিকিট কাটার জন্য আহবান জানান। অন্যথায় সঙ্কট সৃষ্টি হতে পারে বলে তিনি আশঙ্কা করেন। 

সভায় ধর্মসচিব মো: আনিছুর রহমান বলেন, এ পর্যন্ত প্রায় ১৬ হাজার হজযাত্রীর ভিসা সম্পন্ন হয়েছে। কিন্তু সৌদি আরবের কারণে কিছু সমস্যা হচ্ছে। বেসরকারি হজ এজেন্সিগুলো মোয়াচ্ছাসাদের টাকা পরিশোধ করলেও ঠিকমতো এনওসি পাওয়া যাচ্ছে না। এ জন্য ভিসা পাওয়ার ক্ষেত্রে কিছুটা পিছিয়ে আছি আমরা। 

সভায় হাবের মহাসচিব শাহাদাত হোসাইন তসলিম বলেন, হজযাত্রীদের স্বাস্থ্য পরীক্ষার ক্ষেত্রে কোনো টাকা নেয়ার নিয়ম না থাকলেও কয়েকটি সরকারি হাসপাতালে ১২ শ’ টাকা করে নিচ্ছে। এ ব্যাপারে তারা প্রকাশ্যে ব্যানারও টাঙিয়েছে। এতে হজযাত্রীরা হয়রানির শিকার হচ্ছেন। এ বিষয়ে স্বাস্থ্য বিভাগের একজন কর্মকর্তা জানান, সরকারি হাসপাতালে বিনা টাকায় কোনো পরীক্ষা করা যায় না। কিছু সার্ভিস চার্জ দিতে হয়। তবে বেসরকারি হাসপাতাল থেকে তা তিন ভাগের একভাগ। তিনি বলেন, তবে কোনো হাসপাতাল হাজীদের পাঁচটি পরীক্ষার জন্য নির্দিষ্ট করে ১২ শ’ টাকা নিতে পারে না। এ বিষয়ে তিনি খোঁজখবর নিবেন বলে তিনি জানান। 

সভায় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের একজন কর্মকর্তা জানান, এ বছর হজযাত্রী পরিবহনে তিন বছরের অভিজ্ঞতা আছে এমন বিমান না হলে পরিচালনা করা যাবে না। কিন্তু বাংলাদেশ বিমান মালয়েশিয়ার যেসব বিমান ভাড়া করেছে তাদের সে যোগ্যতা আছে কি না তা খতিয়ে দেখা দরকার। 
সভায় সভাপতির বক্তৃতায় ধর্মমন্ত্রী বলেন, মানুষ একবারই হজে যায়। এ জন্য তাদের সেবায় হজ সংশ্লিষ্টদের সঠিকভাবে দায়িত্ব পালন করতে হবে। গত বছরের চেয়েও এবার হজ ব্যবস্থাপনা ভালোভাবে সম্পন্ন করার চেষ্টা চলছে বলে তিনি জানান।


আরো সংবাদ