১৩ নভেম্বর ২০১৮

সাংবাদিক মারধরের ঘটনায় জবিতে ২ ছাত্রলীগ কর্মী বহিষ্কার

সাংবাদিক মারধরের ঘটনায় জবিতে ২ ছাত্রলীগ কর্মী বহিষ্কার। - সংগৃহীত

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় (জবি) ক্যাম্পাসে সাংবাদিক ও কোটাসংস্কার আন্দোলনকারীদের ওপর হামলার ঘটনায় গণিত বিভাগের ১১তম ব্যাচের আবুল হোসেন পরাগ ও ইতিহাস বিভাগের ১২ তম ব্যাচের নূরে আলম সিদ্দিকী নামে দুই ছাত্রলীগ কর্মীকে সাময়িক বহিষ্কার করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। বুধবার বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ, তথ্য ও প্রকাশনা দপ্তর থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানা যায়।

জানা যায়, গত রোববার বিশ্ববিদ্যালয়ে কোটা সংস্কার আন্দোলনকারী কিছু শিক্ষার্থী প্রগতিশীল ছাত্রজোটের ব্যানারে বিক্ষোভ মিছিল বের করলে জবি ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা হামলা চালায়। এসময় পেশাগত কাজে বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত সাংবাদিকরা সংবাদ সংগ্রহ করতে গেলে সমকালের জবি প্রতিবেদক লতিফুল ইসলাম, ইত্তেফাকের জবি সংবাদদাতা আহসান জোবায়ের, জবিসাসের সহ-সভাপতি ও বনিক বার্তার প্রতিনিধি সামী সরকার ও আমার সংবাদের জবি প্রতিনিধি আসলাম অর্ক, ডেইলি সানের জবি প্রতিনিধি কবির হোসাইনের ওপর শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ জয়নুল আবেদীন রাসেলের কর্মীরা অতর্কিত হামলা ও মারধর করে।

সাংবাদিকদের ওপর হামলার ঘটনা তদন্ত কমিটির প্রধান ও বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. নূর মোহাম্মদ বলেন, হামলার ঘটনাটি অনেক পর্যবেক্ষণ করে চুড়ান্ত প্রতিবেদনের উপর ভিত্তি করে দুই শিক্ষার্থীকে সাময়িক বহিস্কার করেছে জবি প্রশাসন।

এ বিষয়ে জবি উপাচার্য অধ্যাপক ড. মীজানুর রহমান বলেন, যাদেরকে বহিষ্কার করা হয়েছে তারা যদি আবার শৃঙ্খলা বিরোধী কাজে জড়িত হয় তবে তাদেরকে স্থায়ী বহিষ্কারের জন্য সিন্ডিকেটে সুপারিশ করা হবে।

এছাড়া হামলার ঘটনার সঙ্গে জড়িত অন্যান্যদের মুচলেকা নিয়েছে জবি প্রশাসন। মুছলেকা দেয়া শিক্ষার্থীরা হলেন জবি শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদকের অনুসারী একাউন্টিং বিভাগের ৯ম ব্যাচের রিয়াজ, পদার্থ বিজ্ঞান বিভাগের ১২ তম ব্যাচের আকরাম সাইমুম, ১২তম ব্যাচের জয়নুল আবেদিন, মনোবিজ্ঞান বিভাগের ১০ তম ব্যাচের কামরুল হাসান,রসায়ন বিভাগের সাইফুল্লাহ বিজয়, ১২ তম ব্যাচের সাগর, ১৩তম ব্যাচের আসিফ ও দর্শন বিভাগের ১২ তম ব্যাচের মাজু।

এদিকে জবি ছাত্রলীগের সভাপতি তরিকুল ইসলাম ও সাধারণ সম্পাদক শেখ জয়নুল আবেদিন রাসেল সাংবাদিকদের ওপর হামলার ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করেন। এছাড়া হামলার ঘটনায় জড়িতরা সাংবাদিকদের কাছে ক্ষমা চান এবং ভবিষ্যতে এধরনের ঘটনায় জড়াবে না বলে প্রতিশ্রুতি দেন।


আরো সংবাদ