২০ নভেম্বর ২০১৮

তাজমহল ভেঙ্গে ফেলুন, নয়তো..

তাজমহল। ছবি - সংগৃহীত

তাজমহলের রক্ষণাবেক্ষণ সংক্রান্ত প্রশ্নে ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার ও উত্তর প্রদেশ সরকারের তীব্র সমালোচনা করেছে ভারতের সুপ্রিম কোর্ট। তাজমহলের সঠিক রক্ষণাবেক্ষণ না হলে আদালত সেটি বন্ধ করে দেবে বলে জানিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট। আদালত বলেছে, এমতাবস্থায় সরকার হয় তাহমহল ভেঙ্গে দিক নয় ভালভাবে সংরক্ষণ করুক।

পৃথিবীর সপ্তম আশ্চর্যের অন্যতম তাজমহলের রক্ষণাবেক্ষণ থেকে শুরু করে বিভিন্ন কাজ ভালভাবে হচ্ছে না বলে অভিযোগ তুলে দায়ের করা একটি মামলার পরিপ্রেক্ষিতে এমন মন্তব্য করেছে দেশের সর্বোচ্চ আদালত। একই সঙ্গে এটাও বলেছে তাজের রক্ষণাবেক্ষণ প্রসঙ্গে দুই সরকার তৎপর হলে বিদেশী মুদ্রা সংক্রান্ত সমস্যা অনেকটাই মিটে যেত।

নিজেদের বক্তব্যের সমর্থনে প্যারিসের আইফেল টাওয়ারের উদাহরণ পেশ করেন সুপ্রিম কোর্ট। বিচারপতিরা বলেন, ৮ মিলিয়ন দর্শক আইফেল টাওয়ার দেখতে যান। সেটি দেখতে ঠিক টিভি টাওয়ারের মতো। অন্যদিকে তাজমহল তার থেকে অনেক সুন্দর। এই সৌধ ভালভাবে রক্ষণাবেক্ষন করতে পারলে দেশে বৈদেশিক মুদ্রার ঘাটতির পরিমাণ অনেকটাই কমে যেত। দুই সরকারের উদ্দেশ্যে বিচারপতিরা বলেন, আপনাদের রক্ষণাবেক্ষণের গাফলতির জন্য বিপুল পরিমান বৈদেশিক মুদ্র থেকে বঞ্চিত হচ্চে ভারত। এ ব্যাপারে সরকারের আবহেলা আছে বলা মনে করে আদালত।

আলাদা করে উত্তর প্রদেশ সরকারেরও সমালোচনা করেছে সর্বোচ্চ আদালত। সুপ্রিম কোর্ট আগেই সে রাজ্য সরকারকে বলেছিল তাজের রক্ষণাবেক্ষণের জন্য তারা কী ভেবেছে সেটা বিস্তারিত ভাবে জানাতে। কিন্ত সেরকম কোনও রিপোর্ট এদিন জমা দিতে পারেনি যোগী সরকার। আর তাই ক্ষোভ প্রকাশ করে আদালত। সমালোচনার মুখে পরে তাজ ট্রাপেজিয়াম জোন( টিটিজে)।

সৌধকে রক্ষা করতে কী কী পদক্ষেপ নিতে হবে তা বলতে না পারায় এ বছরের গোড়ার দিকে আর্কিওলজিক্যাল সার্ভে অফ ইন্ডয়াকেও একহাত নেয় দেশের সর্বোচ্চ আদালত। এদিনের শুনানিতে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে ৩১ জুলাই থেকে প্রতিদিন এই মামলার শুনানি হবে।

 

আরো দেখুন : তাজমহল চত্বরে নামাজে নিষেধাজ্ঞা!

ভারতের সুপ্রিম কোর্ট দেশটির আগ্রায় অবস্থিত ঐতিহাসিক মুসলিম স্থাপনা তাজমহল চত্বরে ‘অস্থানীয়’ ব্যক্তিদের জন্য জুমার নামাজসহ সব ধরনের নামাজ আদায়ের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে।

বিচারপতি একে সিক্রি ও বিচারপতি অশোক ভূষণের সমন্বয়ে গঠিত সুপ্রিম কোর্টের একটি বেঞ্চ সোমবার এ রায় দিয়েছে।


রায়ে বলা হয়েছে, তাজমহল পৃথিবীর সপ্তম আশ্চর্যের একটি এবং এটিকে রক্ষা করা উচিত। এজন্য এটির চত্বরে অনেক মানুষ একত্রে নামাজ আদায় করতে পারবেন না।

চলতি বছরের জানুয়ারি মাসে আগ্রার স্থানীয় কর্তৃপক্ষ ‘বহিরাগত’ ব্যক্তিদের জন্য তাজমহল চত্বরে জুমার নামাজসহ অন্যান্য নামাজ আদায় নিষিদ্ধ করে।  কিন্তু এ নিষেধাজ্ঞার বিরুদ্ধে মুসলমানরা আদালতে শরণাপন্ন হন।

আগ্রার মুসলমানরা বলছেন, নামাজ আদায়ের ক্ষেত্রে তাদের সঙ্গে ভারতের অন্যান্য স্থানের কিংবা বিদেশ থেকে আগত মুসলমানদের কোনো পার্থক্য করা স্থানীয় কর্তৃপক্ষের উচিত হবে না।

ভারতের পুরাতত্ত্ব বিভাগ কয়েক বছর আগে তাজমহল চত্বরে বিদেশি নাগরিকদের নামাজ আদায়ের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছিল।

তাজমহল পরিচালনা কমিটির সভাপতি মুনাওয়ার আলী বলেছেন, এই ঐতিহাসিক স্থাপনার চত্বরে ধর্মীয় অনুষ্ঠান পালনে বিধিনিষেধ আরোপ করা যাবে না।


আরো সংবাদ