১৯ নভেম্বর ২০১৮

এক ধোনি-ভক্তের কাণ্ড!

টিকেটের আদলে বানানো বিয়ের কার্ড - সংগৃহীত

টিকিটের উপর লেখা চেন্নাই সুপার কিংস বনাম চেন্নাই সুপার কুইন। ম্যাচ ডে ১২ সেপ্টেম্বর, ২০১৮। টিকিটের জন্য কোনো মূল্য লাগবে না। ভালোবাসা ও আশীর্বাদসহ মাঠে এলেই হলো।

এভাবে মাঠে আসার আমন্ত্রণ পেলে যে কারো আপ্লুত হয়ে পড়ার কথা। হয়েছেও তাই। চেন্নাই সুপার কিংসের ভক্ত বিনোদের এই আমন্ত্রণে সবাই খুব মজাই পেয়েছেন। তবে তিনি কোনো ম্যাচে আসার আমন্ত্রণ জানাননি কাউকে। বরং নিজের বিয়েতে উপস্থিত থাকার আমন্ত্রণ জানিয়েছেন অতিথিদের।

ঘরের মাঠে খেলা হলে আইপিএলের দল চেন্নাই যেমন আদলের টিকিট ছাপায়, ঠিক তেমন ডিজাইনে নিজের বিয়ের কার্ড ছাপালেন সিএকের এই সুপারফ্যান।

বিনোদ বলছেন, আমি ধোনি আর চেন্নাইয়ের অন্ধ ভক্ত। সব সময়ই ভাবতাম দলের প্রতি আমার ভালোবাসা জাহির করার জন্য আলাদা কিছু একটা করব। বিয়ে ঠিক হওয়ার সাথে সাথেই এক বন্ধুর সাথে যোগাযোগ করি। ও গ্রাফিক্স ডিজাইনার। ও আমাকে এমন কার্ড বানিয়ে দিয়েছে। আমার সেই বন্ধুও চেন্নাইয়ের সমর্থক। আমরা দু'জনে মিলেই এই পরিকল্পনা করেছি।

উল্লেখ্য, চেন্নাইয়ের অধিনায়ক ধোনির কাছ থেকে একবার একটা ব্যাট উপহার পেয়েছিলেন বিনোদ। সে কথা তিনি নিজেই বলেছেন, ''২০১৫-তে একবার চেন্নাইয়ের কর্মকর্তারা আমাকে অবাক করে দিয়েছিলেন। হঠাৎ করেই মাঠে আমার নাম ঘোষণা করা হলো। ওটা ছিল ঘরের মাঠে চেন্নাইয়ের শেষ ম্যাচ। তার পর ধোনির সই করা একটা ব্যাট আমাকে দলের পক্ষ থেকে উপহার হিসাবে দেয়া হয়েছিল।''

 

আরো পড়ুন : ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজ হারের পর যা বললেন কোহলি

গতকাল শেষ হওয়া সিরিজে স্বাগতিক ইংল্যান্ডের কাছে নাস্তানাবুদ হলেও আসন্ন অস্ট্রেলিয়া সফরে স্বাগতিকদের বিপক্ষে তার দলের প্রতিদ্বন্দ্বিতামুলক ক্রিকেট খেলার বিষয়ে আশাবাদী ভারতীয় অধিনায়ক বিরাট কোহলি। বিদেশের মাটিতে সব সময়ই হতাশাজনক পারফরমেন্স করা ভারত এবারও ইংল্যান্ডে নিজেদের রেকর্ডের গন্ডি থেকে বেরিয়ে আসতে পারেনি। পাঁচ ম্যাচের টেস্ট সিরিজ ৪-১ ব্যবধানে হেরেছে ভারত।

ওভালে গতকাল সিরিজের পঞ্চম ও শেষ ম্যাচের শেষ দিনে ইংল্যান্ডের কাছে ১১৮ রানে পরাজিত হয় টেস্ট র‌্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষ দল কোহলির নেতৃত্বাধীন ভারত।

তবে বরাবরের ন্যায় সিরিজ হারলেও এ সফরকে ইতিবাচক হিসেবে দেখা কোহলি আসন্ন অস্ট্রেলিয়া সফরে ভালো কিছু করতে চান। যদিও অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে এখন পর্যন্ত কোনো টেস্ট সিরিজ জিততে পারেনি ভারত।

ভারতীয় অধিনায়ক বলেন, ‘আমার কাছে মুল বিষয় হচ্ছে আপনি কোন ধরনের মানসিকতা নিয়ে ক্রিকেট খেলেন। চতুর্থ ম্যাচ শেষে আমরা বলেছিলাম বিনা লড়াইয়ে হারতে রাজি নই এবং সেটা আমরা করিনি।’

‘এই সিরিজে খেলোয়াড়দের ব্যক্তিগত চরিত্র সঠিকভাবে দেখা গেছে এবং এটাকে আমি একটা সুযোগ হিসেবে দেখছি। কোনো বিদ্বেষ হিসেবে নয়। কারণ আপনি সব সময় জিততে থাকলে অনেক ভুল ভ্রান্তি আপনার নজরে আসবে না। আপনি ভুলগুলো অনুধাবন করতে পারবেন না, যেগুলো নিয়ে আপনাকে কাজ করতে হবে।’

সিরিজে সর্বোচ্চ ৫৯৩ রান সংগ্রহকারী কোহলি বলেন, ভারত বিভিন্ন সময়ে ইংল্যান্ডের ওপর ভারত চাপ সৃস্টি করেছে। তবে গুরুত্বপূর্ণ মুহূর্তে সেটা কাজে লাগাতে পারেনি।

তিনি বলেন, ‘ব্যাটিং কিংবা বোলিং কোন দিক থেকেই আমরা বেশি সময় সে চাপটা ধরে রাখতে পারিনি। যে কারণে তারা ওই সময়ে আমাদের চেয়ে সুযোগটা বেশি কাজে লাগিয়েছে।’

সব দিক থেকেই ভারত বিশ্বের সেরা দলগুলোর একটি। তবে এশিয়ার বাইরে নিজেদের শেষ নয় সিরিজের একটিও জিততে পারেনি। কিন্তু অনেক বিষয় বিবেচনায় আসন্ন অস্ট্রেলিয়া সফরে ভারত ফেবারিট। নিঃসন্দেহে নিজেদের সেরা আক্রমণ বিভাগ নিয়ে অস্ট্রেলিয়ার মোকাবেলা করতে যাওয়া ভারতের জন্য একটা সুখবর। কেননা গত মার্চে দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে বল টেম্পারিং কেলেঙ্কারিতে নিষিদ্ধ থাকা স্টিভ স্মিথ ও ডেভিড ওয়ার্নারকে ছাড়াই মাঠে নামতে হবে অস্ট্রেলিয়াকে। এ ছাড়া অসিদের পেস আক্রমণের ফিটনেস নিয়েও যথেষ্ট সন্দেহ রয়েছে।

দল নিয়ে আগামী ডিসেম্বরে অস্ট্রেলিয়া সফরে নিজের আত্মবিশ্বাস সম্পর্কে জানতে চাইলে কোহলি বলেন, ‘দলের উন্নতি সঠিক পথেই আছে। পরিস্থিতি অনুকুলে থাকার সময়টা আমাদের বুঝতে হবে এবং সেই অবস্থাকে আরো সুদৃঢ় ও নিশ্চিত করতে প্রতিপক্ষ যাতে ঘুড়ে দাঁড়াতে না পারে তা সুনিশ্চিত করতে হবে। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজে যা প্রায় শ'ই হয়নি, অনুকুল পরিস্থিতি কাজে লাগানোর পরিবর্তে প্রতিপক্ষের হাতে তুলে দিয়েছি।’

সিরিজের প্রথম বল থেকেই প্রতিদ্বন্দ্বিতা গড়ে তোলার আশাবাদ জানিয়েছেন কোহলি।


আরো সংবাদ