২০ নভেম্বর ২০১৮

মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ নিয়ে কেন লুকোচুরি

মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ নিয়ে কেন লুকোচুরি - সংগৃহীত

সুন্দরী প্রতিযোগীতার আয়োজন বাংলাদেশে নতুন নয়। তবে নামটা ‌মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ হওয়া এবং এই প্রতিযোগীতার চ্যাম্পিয়ান সরাসরি বিশ্ব সুন্দরী প্রতিযোগীতায় দেশের প্রতিনিধিত্ব করার ব্যপারটি নতুন। এ কারণেই মিস বাংলাদেশ নিয়ে আলোচনাটাও একটু বেশি।

২০১৭ সালে প্রথমবারের মতো যখন এই প্রতিযোগিতার আয়োজন হয়। তখন দর্শক এবং গণমাধ্যম উভয় জায়গা থেকেই ব্যপক আগ্রহ লক্ষ্য করা গেছে। এই আগ্রহে ছেদ পরে প্রতিযোগীতার গ্র্যান্ড ফিনালের দিন থেকেই। কারণ চ্যাম্পিয়ান হওয়া জান্নাতুল নাঈম এভ্রিল প্রতিযোগিতার শর্ত ভঙ্গ করে নিবন্ধন করেছিলেন। কিন্তু নিবন্ধনের শর্ত ভঙ্গের বিষয়টি কেন প্রতিযোগীতার শেষে প্রকাশ পেলো তার কোন সঠিক উত্তর না দিয়ে আয়োজন প্রতিষ্ঠান অন্তর শোবিজের চেয়ারম্যান স্বপন চৌধুরী প্রতিযোগীতার প্রথম রানার আপ জেসিয়া ইসলামকে বিশ্ব সুন্দরী প্রতিযোগীতায় বাংলাদেশর প্রতিনিধি হিসাবে পাঠান।

বিষয়টি নিয়ে নানাভাবে সমালোচনা হলেও স্বপন চৌধুরী এগুলোকে কোন পাত্তা দেননি। এই নিয়ে স্বপন চৌধুরী ও এভ্রিল ভিন্ন কথা বলেছেন গণমাধ্যমে। যার ফলে এই প্রতিযোগীতা আবারো অনুষ্ঠিত হবে কিনা আর হলেও কি নিয়মে হবে সেটা নিয়ে ছিল নানা প্রশ্ন।

এসব প্রশ্নের তোয়াক্কা না করে গণমাধ্যমকে কোন কিছু না জানিয়ে নতুন করে সুন্দরী প্রতিযোগীতা শুরুর খবর পাওয়া গেছে। যেই প্রতিযোগীতার সাথে দেশের নাম রয়েছে সেটা আয়োজনের ক্ষেত্রে কেন এই লুকোচুরি? প্রশ্ন করা হলে ‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’ প্রতিযোগিতার আয়োজক প্রতিষ্ঠান অন্তর শোবিজের চেয়ারম্যান স্বপন চৌধুরী বলেন, ‌'নিজের টাকা দিয়ে অনুষ্ঠান বানাচ্ছি, ঘোষণা দেওয়ার কী আছে? গত বছর ছিল প্রথমবারের মতো আয়োজন, তাই সংবাদ সম্মেলন করে ঘোষণা দিয়েছিলাম।’ ।

স্বপন চৌধুরী জানান, ১৬ সেপ্টেম্বর থেকে ঢাকার বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন করপোরেশনে (বিএফডিসি) ‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’ প্রতিযোগিতার বাছাই কার্যক্রম শুরু হবে। চলবে টানা কয়েক দিন। নাম নিবন্ধনের কোনো ঘোষণা না এলেও হঠাৎ শোনা গেল বাছাই কার্যক্রমের খবর।

কীভাবে এই প্রক্রিয়া সম্পন্ন হচ্ছে? স্বপন চৌধুরী দাবি করেন, এ বছর ফেব্রুয়ারিতে নাকি নাম নিবন্ধনের প্রক্রিয়া শুরু হয়। বিষয়টা একেবারে নিজেদের মতো করছে তাদের প্রতিষ্ঠান। সারা দেশ থেকে নাকি ৩০ হাজারের মতো প্রতিযোগী এবার ‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’ প্রতিযোগিতায় অনলাইনে নাম নিবন্ধন করেছেন।

শুক্রবার রাতে তাদের মধ্য থেকে ১২০০ প্রতিযোগীকে বাছাই করা হবে। এই প্রতিযোগীরা আগামী কয়েক দিন বিচারকদের মুখোমুখি হবেন। গ্র্যান্ড ফিনালের জন্য কয়েক ধাপে সেরা ১০ জন প্রতিযোগীকে চূড়ান্ত করা হবে।

স্বপন চৌধুরী জানান, আগামী অক্টোবর মাসের প্রথম সপ্তাহে বিচারকদের রায়ে নির্বাচিত সেরা ১০ প্রতিযোগীকে নিয়ে গ্র্যান্ড ফিনালে অনুষ্ঠান আয়োজন করা হবে। সেদিন বিচারকদের রায়ে যিনি নির্বাচিত হবেন, তিনিই ‘মিস ওয়ার্ল্ড’ প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণের সুযোগ পাবেন।

এদিকে গত ২৭ জুলাই ‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’ প্রতিযোগিতার আয়োজক স্বপন চৌধুরী বলেছেন, ‘আগামী সপ্তাহে আসতে পারে আনুষ্ঠানিক ঘোষণা। নাম নিবন্ধন আগস্টে শুরু হলেও যাবতীয় কার্যক্রম শুরু হবে সেপ্টেম্বর থেকে।’

২০১৭ সালের ২৯ সেপ্টেম্বর রাজধানীর বসুন্ধরা আন্তর্জাতিক কনভেনশন সেন্টারে অনুষ্ঠিত হয় ‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’ প্রতিযোগিতার প্রথম আসর।

গ্র্যান্ড ফিনালের মঞ্চে সেদিন চ্যাম্পিয়ন হিসেবে নাম ঘোষণা করা হয় জান্নাতুল নাঈম এভ্রিলের। পরে চ্যাম্পিয়নকে নিয়ে বিচারকদের অনেকে আপত্তি জানান। একই সময়ে এভ্রিলের বিরুদ্ধে তথ্য গোপনের অভিযোগ ওঠে। এরপর আয়োজক আর বিচারকদের মধ্যে চ্যাম্পিয়ন এভ্রিলকে নিয়ে অনেক জল ঘোলা হয়। পরে বিচারকদের নিয়ে রাজধানীর একটি পাঁচ তারকা হোটেলে সংবাদ সম্মেলন করে নতুন চ্যাম্পিয়ন জেসিয়া ইসলামের নাম ঘোষণা করা হয়। সেই আয়োজনের পর অনেকেই ধারণা করেছে, এরপর বুঝি ‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’ প্রতিযোগিতার আয়োজন আর হবে না। সব গুঞ্জন উড়িয়ে দিয়ে আয়োজক প্রতিষ্ঠানের চেয়ারম্যান স্বপন চৌধুরী বলেন, ‘এত চিন্তার কিছু নেই। মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ প্রতিযোগিতা তো অবশ্যই হবে। কার্যক্রমও শুরু হয়ে গেছে।’

স্বপন চৌধুরী বলেন, ‘আমাদের সঙ্গে বিশ্ব সুন্দরী প্রতিযোগিতার আয়োজক প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে যোগাযোগ অব্যাহত রয়েছে। এবারের আয়োজন গত বছরের চেয়ে এক মাস পেছানো হয়েছে। আমরা তো এমনিতেও গত বছর এই সময় মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ প্রতিযোগিতার ঘোষণা দিয়েছিলাম। এবার তার চেয়ে কিছু দেরি হচ্ছে। তবে আমরা আয়োজনটা করছি, এটা নিশ্চিত।’

‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’ জেসিয়া ইসলাম চীনের সানাইয়া শহরে বিশ্বসুন্দরী প্রতিযোগিতার ৬৭ তম আসরে অংশ নেন। বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করে তিনি শেষ পর্যন্ত সেরা চল্লিশে জায়গা করে নেন। এবার ‘মিস ওয়ার্ল্ড’ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হবে যুক্তরাষ্ট্রে। গত বছর বিশ্ব সুন্দরীর মুকুট জয় করেন ভারতের মানুষি ছিল্লার। বিশ্বের ১০৮টি দেশের প্রতিযোগীকে পেছনে ফেলে ‘মিস ওয়ার্ল্ড ২০১৭’ মুকুট পরেন তিনি।

এবারের আয়োজন নিয়ে স্বপন চৌধুরী বলেন, ‘গত বছর কিছু ভুল হয়েছে, এবার যেন আর সে ধরনের কিছু না ঘটে, সেদিকে আমাদের খেয়াল থাকবে। নতুনত্ব রাখার চেষ্টা করব।’

প্রতিযোগিতার বিচারক হিসেবে কারা থাকছেন? স্বপন চৌধুরী বলেন, ‘আমরা এরই মধ্যে শুভ্র দেব, তারিন, ইমি, সুজনসহ আরও কয়েকজনের সঙ্গে কথা বলেছি। তাঁরা সেরা ১০ প্রতিযোগী বাছাইয়ের কাজ করবেন। গ্র্যান্ড ফিনালেতে বাছাইপর্বের বিচারকদের পাশাপাশি থাকবেন কয়েকজন অতিথি বিচারক।’ এরপর শুভ্র দেবের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি প্রথম আলোকে বলেন, ‘আমার সঙ্গে কয়েক দিন আগে আয়োজক প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে বিচারক হওয়ার বিষয়ে আলোচনা হয়েছে। কিন্তু কবে থেকে শুরু হবে, সে বিষয়ে কিছুই জানি না। তা ছাড়া আমার সঙ্গে তাদের কোনো চুক্তি হয়নি।’


আরো সংবাদ