২১ নভেম্বর ২০১৮

কোহলির অভাব অনুভব করবে ভারত : জহির আব্বাস

বিরাট কোহলি - ফাইল ছবি

নিয়মিত অধিনায়ক বিরাট কোহলিকে ছাড়া আসন্ন এশিয়া কাপ ক্রিকেটে মাঠে নামবে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ভারত। তাই এশিয়া কাপে কোহলির অভাব অনুভব করবে ভারত বলে মনে করেন পাকিস্তানের সাবেক অধিনায়ক জহির আব্বাস।

পাশাপাশি এশিয়ার কাপের ১৪তম আসরে পাকিস্তানকে ফেভারিট বলছেন আব্বাস। তিনি বলেন, ‘কোহলির না থাকাটা ভারতের জন্য বড় চিন্তার কারন হবে। ব্যাটিং-এ কোহলির অভাব অনুভব করবে ভারত। কারন কোহলি বর্তমানে বিশ্বসেরা ব্যাটসম্যান। একাই ম্যাচ ঘুড়িয়ে দেয়ার সামর্থ্য রাখে সে। কোহলি না থাকায় এবারের আসরে ফেভারিট পাকিস্তান। শিরোপা জয়ের ভালো সুযোগ রয়েছে তাদের।’

ছয়টি দলকে নিয়ে বৃহস্পতিবার থেকে সংযুক্ত আরব আমিরাতে শুরু হচ্ছে এশিয়া কাপের ১৪তম আসর। দলের সেরা ব্যাটসম্যান কোহলিকে ছাড়া শিরোপা ধরে রাখার মিশন শুরু করবে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ভারত। সদ্যই ইংল্যান্ডের মাটিতে পাঁচ ম্যাচের সিরিজ শেষ করলো ভারত। তাই কোহলিকে বিশ্রামে দিয়েছে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড।

কোহলি না থাকায় কাগজে-কলমে শক্তির বিচারে অনেকাংশেই পিছিয়ে পড়েছে ভারত। তাই কোহলির না থাকাটা ভারতকে ভোগাবে বলে মনে করেন পাকিস্তানের আব্বাস। পাকিস্তানের একটি দৈনিক পত্রিকায় আব্বাস বলেন, ‘কোহলি হল ভারতের সবচেয়ে বড় ম্যাচ-উইনার। দলের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ সদস্য। ভারতীয় দল নিঃসন্দেহে এশিয়া কাপে কোহালির অভাব অনুভব করবে। তবে এটাও ঠিক, ভারতের এই দলটি বেশ ভারসাম্যপূর্ণ। দলে বেশ কয়েকজন দারুণ ওয়ানডে ক্রিকেটার রয়েছে। যারা দলের জয়ের জন্য নিজেদের উজার করে দিতে পারে।’

কোহলি না থাকায় এবারের আসরে নিজ দেশ পাকিস্তানকে ফেভারিট মানছেন আব্বাস। শিরোপা জয়ের ক্ষেত্রে পাকিস্তানকেই এগিয়ে রাখছেন তিনি, ‘সাম্প্রতিক সময়ে পাকিস্তান যেভাবে খেলছে, তাতে এশিয়া কাপে তারাই ফেভারিট। শিরোপা জয়ের জন্য তারাই এগিয়ে। পাকিস্তানের ব্যাটিং লাইন আপ বেশ শক্তিশালী। সবাই দারুন ফর্মে রয়েছে। বোলাররা নিয়মিত উইকেট নিতে পারছে। তাই পাকিস্তানের ভালো সম্ভাবনা রয়েছে। এরপরই রয়েছে ভারত। আমার মনে হয়, ভারত-পাকিস্তানের মধ্যেই এশিয়া কাপে শ্রেষ্ঠত্বের লড়াই হবে।’

আগামী ১৯ সেপ্টেম্বর এশিয়া কাপের সবচেয়ে আর্কষনীয় ম্যাচে লড়বে ভারত ও পাকিস্তান। এ ম্যাচেও পাকিস্তান জিতবে বলে জানান আব্বাস। তিনি বলেন, ‘চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির ফাইনালে ভারতকে হারিয়েছে পাকিস্তান। ঐ স্মৃতি পুরনো হলেও এশিয়া কাপে ভারতের বিপক্ষে ভালো করতে অনুপ্রেরণা দিবে পাকিস্তানকে। কাজেই, ঐ ম্যাচে ফেভারিট হিসেবেই খেলতে নামবে পাকিস্তান।’


আরো সংবাদ