২০ অক্টোবর ২০১৮

কেএফসির ফাস্ট ফুডে ‘কাঁচা মুরগির হৃৎপিণ্ড’

টিমোথি তার ফেসবুক পেজে কেএফসি থেকে ফাস্টফুড়ের খাবারে কাঁচা মুরগির হৃৎপিণ্ড পাওয়ার ছবিটি পোস্ট করেছেন। কেএফসি কর্তৃপক্ষ পরে দুঃখ প্রকাশ করেন। - ছবি: মেইল অস্ট্রেলিয়া

বিশ্বব্যাপী জনপ্রিয় ফাস্ট ফুড চেইন কেএফসি’র খাবারে মুরগির একটি কাঁচা হৃৎপিণ্ড পাওয়া গেছে। এরপর এ নিয়ে ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়েছে প্রতিষ্ঠানটি। অস্ট্রেলিয়ায় কেএফসির একটি শাখা থেকে রাতের খাবার কেনার পর সেখানে হৃৎপিণ্ড খুঁজে পায় এক তরুণ। খবর মেইল অনলাইন অস্ট্রেলিয়া ।

ডেইলি মেইল জানায়, গত সপ্তাহে টিমোথি নামের ২১ বছর বয়সী ওই তরুণ মেলবোর্নে কেএফসির একটি শাখা থেকে রাতের খাবারের জন্য একটি ‘অরিজিনাল টেন্ডারস বক্স (ওটিবি)’ নিয়ে আসেন। পরে ছোট ছোট টুকরা করা চিকেনের টেন্ডারের ভেতর একটি কাঁচা হৃৎপিণ্ড খুঁজে পান তিনি।

টিমোথি ডেইলি মেইল অস্ট্রেলিয়াকে বলেন, আমি বক্সের ভেতরের চিকেনের ছোট ছোট টুকরাগুলো দেখার সময় খেয়াল করি যে এই খাবার ঠিকঠাক নেই। এটি অন্যগুলোর থেকে আলাদা এবং কেমন যেনো কালো কালো। আমি প্রথম যখন এটি ধরে দেখলাম তখন আমার কোনো ধারণা ছিল না যে এটি আসলে কী।

পরে ওই তরুণ কেএফসি অস্ট্রেলিয়ার ফেসবুক পেইজে প্রকাশ্যে এ বিষয়ে অভিযোগ তোলেন। তিনি সেখানে লেখেন, উফ, কেএফসি তোমরা কি আমাকে ব্যাখ্যা করবে বিশ্বের মধ্যে কেন আমিই আমার খাবারের মধ্যে একটা কাঁচা মুরগির হৃৎপিণ্ড পেলাম? এটা কি তোমাদের জন্য খুব স্বাভাবিক না-কি আমি সৌভাগ্যবান?

টিমোথি বলেছেন, মেলবোর্নের দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলে কেএফসির ন্যারে ওয়ারেন শাখার নিয়মিত গ্রাহক ছিলেন তিনি। দুই সপ্তাহের মধ্যে অন্তত একবার তিনি কেএফসি থেকে খাবার নিয়ে আসতেন।

২১ বছর বয়সী এই তরুণ কেএফসির মেলবোর্ন শাখার ম্যানেজারের কাছে অভিযোগ করেছিলেন। পরে তাকে খাবারের টাকা ফেরত দেয়া হয়।

এই ভুলের জন্য ক্ষমা চেয়েছে কেএফসি অস্ট্রেলিয়া। তারা আরো বলছে, খাবার তৈরির সময় আরো বেশি যত্নবান হওয়ার জন্য কর্মীদের নির্দেশ দিয়েছেন তারা।

 

আরো পড়ুন: রাজধানীতে কী খাচ্ছি আমরা?

নাজমুল হোসেন, ০৫ জুন ২০১৮


আমরা মাছে-ভাতে বাঙালি হলেও এখন ধান উৎপাদনের বিভিন্ন প্রক্রিয়া থেকে শুরু করে রাইসমিলে চাল প্রক্রিয়াজাতকরণ পর্যন্ত বিভিন্ন কীটনাশক ও ভেজাল মেশানো হচ্ছে। খাদ্যে ভেজাল মেশানোর প্রবণতা ইদানীং ভয়ঙ্কর ও বহুমাত্রিক রূপ ধারণ করেছে। আর এ কারণেই হয়তো রমজান মাস এলেই রাজধানীসহ সারা দেশে শুরু হয় ভেজালবিরোধী অভিযান। রাজধানীতে চলমান অভিযানের ফলে সবার মনেই প্রশ্ন জেগেছে প্রতিনিয়ত 
কী খাচ্ছি আমরা! রাজধানীর ভেজালবিরোধী অভিযানের আদ্যোপান্ত নিয়ে লিখেছেন নাজমুল হোসেন

রমজান মাসজুড়ে চলমান ডিএমপির বিশেষ অভিযানের অংশ হিসেবে রাজধানীতে ভ্রাম্যমাণ আদালত পচা ও বাসি খাবার রাখা এবং বিক্রির দায়ে অসংখ্য প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা করেছে। অবাক করার বিষয় হলো, এর মধ্যে নামীদামি অনেক প্রতিষ্ঠান রয়েছে। 
ডিএমপির বিশেষ অভিযানের অংশ হিসেবে গত ২০ মে দুপুরে ডিএমপির নির্বাহী

ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ মশিউর রহমানের নেতৃত্বে ডিবির একটি দল রাজধানীতে খাদ্যদ্রব্যে ভেজালবিরোধী ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে। পচা ও বাসি খাদ্যদ্রব্য রাখা ও বিক্রির দায়ে রাজধানীর নিউমার্কেট এলাকার ৯টি ফাস্টফুড দোকানিকে চার লাখ ৩০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। ওই ভ্রাম্যমাণ আদালত পচা ও বাসি খাবার রাখা এবং বিক্রির দায়ে নিউমার্কেট এলাকার কিংস ফাস্টফুডের মো: জহিরকে ৫০ হাজার টাকা, ক্যাপ্রে ফাস্টফুডের মো: সোহাগকে ৫০ হাজার টাকা, পেঞ্জি জুস কর্নারের মো: ইব্রাহিমকে ৫০ হাজার টাকা, ওয়েলকাম ফাস্টফুডের মো: তৌহিদুল ইসলামকে ১০ হাজার টাকা, ফুড কর্নারের মো: মুসা বাহাদুরকে এক লাখ টাকা, আল-আমিন ফুডের ড. ইউনুছকে ৫০ হাজার টাকা, সৈকত ফাস্টফুডের মো: মোশারফ হোসেনকে ৫০ হাজার টাকা, ক্যাপিটাল ফাস্টফুডের মো: রাজিবকে ৫০ হাজার টাকা ও আল জাবের ফাস্টফুডের ফয়সালকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করেন।

কামরাঙ্গীরচর থানা এলাকায় গত ২৪ মে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের ভ্রাম্যমাণ আদালত ভেজালবিরোধী অভিযান পরিচালনা করে দুই লাখ ৬০ হাজার টাকা জরিমানা করেছে। ডিএমপির নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ মশিউর রহমানের নেতৃত্বে ডিবির একটি দল রাজধানীর কামরাঙ্গীরচর থানা এলাকায় খাদ্যদ্রব্যে ভেজালবিরোধী ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন।

ভ্রাম্যমাণ আদালত কামরাঙ্গীরচর থানা এলাকার মোহাম্মদ আলী ফুডের মাহবুব আকন্দকে ৩০ হাজার টাকা, নাসির ইন্ডাস্ট্রিজের মো: আবুল হাসেমকে এক লাখ টাকা, হাবিব ফুডের রুবেলকে ৩০ হাজার টাকা এবং একই থানাধীন খোলামুরাঘাটের বিউটিফুল সেমাইর আজাদকে এক লাখ টাকা জরিমানা করেন। 

রাজধানীর বেইলি রোডের নামীদামি রেস্টুরেন্টে অভিযান পরিচালনা করে দেড় লাখ টাকা জরিমানা করেছেন ডিএমপির ভ্রাম্যমাণ আদালত। গত ২৭ মে দুপুরে ডিএমপির নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ মশিউর রহমানের নেতৃত্বে ডিবির একটি দল রাজধানীর বেইলি রোড এলাকায় খাদ্যদ্রব্যে ভেজালবিরোধী ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন। ওই ভ্রাম্যমাণ আদালত অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে খাবার রাখার অভিযোগে বেইলি রোডের বুমারস ক্যাফেকে এক লাখ টাকা জরিমানা করেন। এ ছাড়াও বেইলি রোডের ঝইঅজজঙ ক্যাফেকে বিএসটিআইর অনুমোদনবিহীন সস রাখার দায়ে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করেন।
রাজধানীর ধানমন্ডির নানদুস ও ক্রিমসনকাপকে চার লাখ টাকা জরিমানা করেছেন ডিএমপির ভেজালবিরোধী ভ্রাম্যমাণ আদালত। রমজান মাসজুড়ে চলমান ডিএমপির বিশেষ অভিযানের অংশ হিসেবে গত ৩১ মে দুপুরে ডিএমপির নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ মশিউর রহমানের নেতৃত্বে ডিবির একটি দল রাজধানীর লালবাগের ঢাকেশ্বরী এলাকায় খাদ্যদ্রব্যে ভেজালবিরোধী ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন।

ভ্রাম্যমাণ আদালত ধানমন্ডির ২৭ নম্বর রোডে অবস্থিত নানদুসকে মেয়াদোত্তীর্ণ খাদ্যদ্রব্য ও বিএসটিআইর অনুমোদন ছাড়া সস রাখার দায়ে দুই লাখ টাকা জরিমানা করেন। একই অপরাধে ধানমন্ডির ২৭ নম্বর রোডের ক্রিমসনকাপকে দুই লাখ টাকা জরিমানা করেন। এছাড়াও গত শুক্রবার অভিযান চালিয়ে বিভিন্ন অনিয়মের দায়ে ফখরুদ্দিন বিরিয়ানিসহ ১০ প্রতিষ্ঠানকে সাড়ে সাত লাখ টাকা জরিমানা করেছেন র্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত।


স্বপ্নকে ১০ লাখ টাকা জরিমানা

সুপারশপ স্বপ্নের বনানী আউটলেটকে ১০ লাখ টাকা জরিমানা করেছেন র্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র্যাব) ভ্রাম্যমাণ আদালত। মেয়াদোত্তীর্ণ পণ্য বিক্রি, ওজনে কম দেয়া, পণ্যের গায়ে লেখা দামের চেয়ে বেশি দামে পণ্য বিক্রি করাসহ বিভিন্ন অভিযোগে এই জরিমানা করা হয়। 

বনানীতে ‘স্বপ্ন’-এর আউটলেটে র্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত অভিযান চালিয়ে প্রায় দেড় ঘণ্টা বিভিন্ন পণ্যের মান খতিয়ে দেখে দলটি। এরপর বিভিন্ন অনিয়ম পাওয়ায় ওই আউটলেটকে ১০ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়।

ম্যাজিস্ট্রেট সারওয়ার আলম বলেন, স্বপ্নের বনানী সুপারশপে দেখা গেছে, তারা বিভিন্ন ব্র্যান্ডের কোমল পানীয়র মেয়াদ শেষ হওয়ার পর তারিখ পরিবর্তন করে সেগুলো বিক্রি করছেন। এ ছাড়া যেসব দুধ বা জুসের মেয়াদ আগেই শেষ হয়েছে তা বিক্রি করছেন। একই সুপারশপে দেখা যায়, স্টোররুমে তারা মেয়াদোত্তীর্ণ ও মেয়াদ আছে, এমন পণ্য একসাথে রেখেছে। এ ছাড়া গরুর গোশত ৪৫০ টাকায় বিক্রির কথা থাকলেও তারা বিক্রি করছিলেন ৫৫০ টাকায়। এই সুপারশপে একটি পণ্যের গায়ে লেখা আছে ৯৮ টাকা আর তারা নিচ্ছিলেন ১৬৭ টাকা। এ ছাড়াও পাঁচ কেজির পেঁয়াজে ২০০ গ্রাম কম দেয়ার প্রমাণ পাওয়া গেছে। এসব অভিযোগে স্বপ্নের বনানী সুপারশপকে জরিমানা করা হয়েছে।

আগোরাকে ৫ লাখ টাকা জরিমানা

ভেজালবিরোধী অভিযানে রাজধানীর মিরপুরে আগোরা সুপারশপে পচা মাছ বিক্রির দায়ে পাঁচ লাখ টাকা জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। ডিএমপির মিরপুর মডেল থানা পুলিশ, ডিবি পুলিশ ও বিএসটিআইর সহযোগিতায় গত ২৯ মে মিরপুর সনি সিনেমা হলের পাশের আগোরা সুপারশপে এ অভিযান চালানো হয়।

অভিযানে সুপারশপটিতে পচা শুকনো পটোল, পচাগলা রুই মাছ ও রুপচাঁদা মাছ বিক্রি করতে দেখা যায়। ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন ডিএমপির নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মশিউর রহমান। অভিযান শেষে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, আগোরায় ভালো মানের পণ্য কেনার আস্থা নিয়ে আসেন ক্রেতারা। কিন্তু এখানে এসে দেখা গেল ভালো মাছের সাথে পচাগলা মাছও বিক্রি করা হচ্ছে। ১০ কেজি রুপচাঁদা ও রুই মাছ জব্দ করা হয়েছে, যা বিক্রি ও খাওয়ার অনুপযোগী।

প্রতিষ্ঠানটির কর্মকর্তারা দায় স্বীকার করায় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইনের ৪৫, ৫১ ও ৫৩ ধারায় মিরপুর আগোরাকে পাঁচ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। পাশাপাশি প্রতিষ্ঠানটির ফ্লোর ইনচার্জ মিজানুর রহমান ও ক্যাশিয়ার কাউসারকে তিন মাসের কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে।

মীনাবাজারকে ৩ লাখ টাকা জরিমানা

লালবাগের ঢাকেশ্বরী রোডের মীনাবাজারকে তিন লাখ টাকা জরিমানা করেছেন ডিএমপির ভেজালবিরোধী ভ্রাম্যমাণ আদালত। গত ৩০ মে দুপুরে ডিএমপির নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ মশিউর রহমানের নেতৃত্বে ডিবির একটি দল রাজধানীর লালবাগের ঢাকেশ্বরী এলাকায় খাদ্যদ্রব্যে ভেজালবিরোধী ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন।
ওই ভ্রাম্যমাণ আদালত পচা কাতল মাছ, চিংড়ি, মুরগির গোশত, পচা লিচু, কলা ও বিভিন্ন শাকসবজি রাখার দায়ে দেড় লাখ টাকা ও বিএসটিআইর অনুমোদন ছাড়া ড্রিংকিং ওয়াটার, কোমলপানীয় ও নেভিয়া ক্রিম রাখার দায়ে দেড় লাখ টাকা করে জরিমানা করেন। রমজান মাসজুড়ে চলমান ডিএমপির ভেজালবিরোধী অভিযান ইতোমধ্যে সাধারণ মানুষ ও বিভিন্ন মহলে প্রশংসিত হয়েছে। এ অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে জানিয়েছে ডিএমপি কর্তৃপক্ষ।

ফখরুদ্দিন বিরিয়ানিকে ৫ লাখ টাকা জরিমানা


শুক্রবার সকাল ১০টা থেকে বেলা ৩টা পর্যন্ত র্যাব সদর দফতরের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্র্রেট সারওয়ার আলমের নেতৃত্বে সাবেক রমনা থানার পাশে ফখরুদ্দিন বিরিয়ানির রান্নাঘরে দেখা যায় হালিম তৈরিতে মেয়াদোত্তীর্ণ গুঁড়ো ও ছত্রাকযুক্ত বিস্কুট মেশানো হচ্ছে। এর দায়ে ফখরুদ্দিন বিরিয়ানিকে পাঁচ লাখ টাকা জরিমানা করে আদালত।


আরো সংবাদ