১৭ নভেম্বর ২০১৮

সারা দেশে এখন নির্বাচনী উৎসব বিরাজ করছে : ওবায়দুল কাদের 

ওবায়দুল কাদের - সংগৃহীত

‘মনোনয়নপত্র বিক্রির মধ্য দিয়ে নির্বাচনের যাত্রা শুরু হয়েছে। নির্বাচন সামনে রেখে সারা বাংলাদেশে উৎসবমুখর পরিবেশ বিরাজ করছে। পাবলিক এখন ইলেকশন মুডে আছে। সবাই ইলেকশনের প্রস্তুতি নিয়ে আছে। তারা ইলেকশন করতে চায়। এর বাইরে যারা নির্বাচনবিরোধী তৎপরতা চালাবেন, জনগণই তাদের প্রতিরোধ করবে।’

শুক্রবার (৯ নভেম্বর) সকালে দলের মনোনয়ন ফরম বিক্রির পর সাংবাদিকদের সাথে  এ কথা বলেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। 

ওবায়দুল কাদের আরও বলেন, ‘জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সাথে আওয়ামী লীগের সংলাপের ফলাফল শূন্য এটা বলা যাবে না। তারা (ঐক্যফ্রন্ট) যে তালিকা দিয়েছে তা নিয়ে কাজ শুরু হয়েছে।’

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক জানান, প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার মনোনয়নপত্র সংগ্রহের মধ্য দিয়ে মনোনয়ন পত্র বিক্রি কার্যক্রম শুরু হয়েছে। প্রথমে প্রধানমন্ত্রীর পক্ষে দুটি ফরম সংগ্রহ করা হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, ‘আজ থেকে মনোনয়নপ্রত্যাশীদের ধানমন্ডির রাজনৈতিক কার্যালয়ের ৮টি বুথ থেকে মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করতে হবে। এই আটটি বুথ আটটি বিভাগের জন্য। আওয়ামী লীগের মনোনয়ন ফরম কেনার আগ্রহ প্রচণ্ড। আগামী ১১ নভেম্বর রোববার বিকাল সাড়ে ৩টায় মনোনয়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান প্রধানমন্ত্রীর সভাপতিত্বে পার্লামেন্টের বোর্ড সভা অনুষ্টিত হবে। পার্লামেন্টের বোর্ডে মনোনয়ন বিক্রির শেষ তারিখ ঠিক করা হবে।’

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে কাদের বলেন, ‘নির্বাচনের আইন মেনেই তফসিল ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন। নির্বাচন কমিশনের অধীনের সব বিষয়। তফসিল ঘোষণার পর আমরা একটা নিয়মের মধ্যে চলে গেছি। তফসিল ঘোষণার কারণে তারা (বিএনপি) আন্দোলনের কমসূচি দেবে এটা গণতন্ত্রের পরিপন্থী। তাদের আন্দোলনে জনগণ সায় দেবে না।’

আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার পক্ষে মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেন গোপালগঞ্জের বাসিন্দা ও আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদ সদস্য কাজী আকরাম উদ্দিন, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক শেখ আবদুল্লাহসহ স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতারা। আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের তাদের হাতে ফরম তুলে দেন।

এ সময় আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ, আব্দুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক আ ফ বাহাউদ্দিন নাছিম, আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন, মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল, দফতর সম্পাদক আবদুস সোবহান গোলাপ, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী, বন ও পরিবেশ সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক আব্দুস সবুর, উপ-দফতর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া, কার্যনির্বাহী সদস্য এস এম কামাল হোসেন, রেমন্ড আরেং প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার পক্ষে গোপালগঞ্জ-৩ আসন থেকে ফরম তোলার বিষয়টি নির্দিষ্ট করে জানানো হলেও অন্যটির সংসদীয় আসনের নাম বলা হয়নি। এ বিষয়ে এক প্রশ্নের জবাবে কাদের বলেন, ‘অন্যটি কাল জানতে পারবেন।’

এরপর রংপুর-৬ সংসদীয় আসন থেকে স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরীর পক্ষ থেকে ফরম সংগ্রহ করেন ডেপুটি স্পিকার ফজলে রাব্বি মিয়া, চিফ হুইপ আ স ম ফিরোজ, হুইপ আতিকুর রহমান আতিক। ওবায়দুল কাদেরসহ আওয়ামী লীগ নেতারা ফরম হস্তান্তর করেন। এরপর ওবায়দুল কাদেরের পক্ষে নোয়াখালী-৫ আসন থেকে ফরম সংগ্রহ করেন স্থানীয় নেতারা।

 


আরো সংবাদ