১৭ নভেম্বর ২০১৮

মেসি রোনালদো ব্যালন ডি’অর জিতবেন না : এমবাপে

বিশ্বকাপ ট্রফি হাতে কিলিয়ান এমবাপে - ছবি : এএফপি

ফ্রান্সের ফুটবল সেনসেশন কিলিয়ান এমবাপে বলেছেন, ফুটবলের শ্রেষ্ঠ তারকা হিসেবে এখনো নিজেদের অবস্থান ধরে রেখেছেন লিওনেল মেসি ও ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো; কিন্তু দলকে বিশ্বকাপ শিরোপা পাইয়ে দেয়ায় তার নিজেরই ব্যালন ডি’অর খেতাব জয়ের সম্ভাবনা বেশী।

রাশিয়া বিশ্বকাপে ফ্রান্সের শিরোপা জয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা পালন করেন ১৯ বছর বয়সি এ ফুটবল তারকা। আসরে চার গোল করেছেন এমবাপে। তন্মধ্যে একটি গোল রয়েছে ফাইনালে, ক্রেয়েশিয়ার বিপক্ষে। শিরোপা নির্ধারণী ম্যাচে দ্বিতীয় কোন টিনএজার হিসেবে গোলটি করেছেন তিনি। এর আগে ১৯৫৮ সালে বিশ্বকাপের ফাইনালে গোল করেছিলেন ব্রাজিলীয় কিংবদন্তী পেলে। ম্যাচে ৪-২ গোলে ক্রোয়েশিয়াকে হারিয়ে বিশ্বসেরার মুকুট মাথায় পড়ে ফ্রান্স। আসরের ‘ইয়ং প্লেয়ার অফ দ্যা টুর্নামেন্ট’ নির্বাচিত হন তিনি।

এরপর প্যারিস সেন্ট জার্মেইয়ের (পিএসজি) হয়ে লীগ ওয়ানেও সর্বোচ্চ গোলদাতার আসনটি দখলে নিয়েছেন এমবাপে। ফরাসি লীগের শিরোপা জয়ের পথে ক্লাবের হয়ে ১১টি গোল করেছেন এই উদীয়মান তারকা।

বর্ষসেরা ফুটবল তারকার টানা ১০টি খেতাব সমান ভাগে জয় করে নিয়েছেন মেসি ও রোনালদো। এমবাপের মতে তারা এখনো সেরার আসনেই আছেন। বার্তা সংস্থা এএফপিকে দেয়া সাক্ষাৎকারে এই ফরাসি আন্তর্জাতিক বলেন, ‘তবে এই মুহুর্তে তাদের একজনও ভাল করতে পারছেন না। তারপরও আমরা বলতে পারব না তাদের সম্ভাবনা নেই। কারণ তখনই মেসি-রোনালদো যুগের অবসান ঘটবে যখন অন্য কেউ তাদের চেয়ে ভাল করবে।’

তরুণ এই স্ট্রাইকার যোগ করেন, ‘আমি এটিও মনে করিনা তাদের মধ্যে থেকে কেউ এবছর ব্যালন ডি’অর খেতাব জয় করতে পারবেন। কারণ এটি ছিল বিশ্বকাপের বছর। যে কারণে এবারের খেতাব প্রদানের ক্ষেত্রে ওই আসরটি বেশী প্রাধান্য পাবে।’

বিশ্বকাপে এমবাপের ফ্রান্স বিশ্বকাপ শিরোপা জয় করলেও শেষ ষোল থেকে বিদায় নিয়েছে মেসির আর্জেন্টিনা ও রোনালদোর পর্তুগাল। এমবাপে বলেন, ‘আপনি যদি একেবারেই ফর্মে থাকা খেলোয়াড়কে এই খেতাব দিতে চান, তাহলে কাউকে খুঁজে পাবেন না। এই বছর তারা আবারো সেরার আসনে ফিরছে। ইউরোপে মেসি সেরা গোলদাতার আসনে আছেন, আর চ্যাম্পিয়ন্স লীগে সর্বোচ্চ গোলদাতা ছিলেন রোনালদো।’

ফ্রান্সের হয়ে সর্বশেষ ব্যালন ডি’অর খেতাব জয় করেছিলেন জিনেদিন জিদান। জাতীয় দলকে ১৯৯৮ সালের বিশ্বকাপ এনে দিয়ে এই খেতাবটি জিতে নিয়েছিলেন তিনি। এমবাপে বলেন, ‘সত্যিকার অর্থে এবার আমি এই খেতাব জয়ের আশা করছি। কারণ আমরা বড় কিছু অর্জন করেছি। আমরা একটি ইতিহাস রচনা করেছি। এর পুরস্কারটি পেলে সেটি হবে দারুণ বিষয়।’

ভোটে বিশ্বকাপের সেরা খেলোয়াড় নির্বাচিত হয়েছেন ক্রোয়েশিয়া তারকা লুকা মডরিচ। এবারের ব্যালন ডি’অর খেতাবের জন্য তিনিও ফেভারিট। মডরিচ এমবাপের চেয়ে ১৪ বছরের বড়। সুতরাং নিজের দলের তরুণ তারকা হিসেবে এমবাপেরও সুযোগ আছে।

জয়ের জন্য খেলি:
আগামী বড় দিনের আগ মুহুর্তে ২০ বছরে পৌঁছবেন এমবাপে। ২০১৭ সালে মোনাকো ছেড়ে ১৮০ মিলিয়ন ইউরোতে পিএসজিতে যোগ দিয়েছেন তিনি। যেটি দলবদলের ইতিহাসে সর্বকালের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ। পিএসজি সতীর্থ নেইমারের ২২২ মিলিয়ন ইউরোর দলবদলটি এখনো পর্যন্ত সর্বোচ্চ আসনে রয়েছে।

তবে মাঠের বাইরে বাণিজ্যিক বাজারে রোনালদোর প্রায় সমকক্ষে পৌঁছে গেছেন এমবাপে। তার নামে গড়া ‘কেএম’ এর ব্র্যান্ড পাওয়ার এখন রোনালদোর ‘সিআরসেভেন’ ব্র্যান্ডের প্রায় সমকক্ষে চলে এসেছে। এমবাপে বলেন, ‘এ বিষয়ে আমি কিছু জানিনা। কারণ ‘সিআর সেভেন’ একটি বিশাল ব্যাপার। তিনি আন্তর্জাতিক বাজারে এটি গড়তে সক্ষম হয়েছেন। আমরাটি এখনো সে রকম তারকা খ্যাতি পায়নি। ধীরে ধীরে আমারটি পরিবর্তিত হচ্ছে।’

এদিকে শুধুমাত্র একটি বিশ্বকাপ শিরোপা জয় করে সন্তুষ্ট থাকতে রাজি নন এমবাপে। আগামীতে কী করতে চান, জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আমি যে কয়টি বিশ্বকাপে খেলব তার সবকটি জয় করতে চাই। আমি জয়ের জন্যই খেলি। আমি যদি চারটি বিশ্বকাপে খেলতে পারি, তাহলে চারটিই জয় করতে চাই। আমরা ধাপে ধাপে এগুবো। আমি ইতোমধ্যে একটি জিতে নিয়েছি। আপনাকে আপনার ক্লাবের সাথে এবং জাতীয় দলের সাথে খেলে এ জন্য প্রস্তুত হতে হবে। আপনাকে সব সময় জয়ের লক্ষ্য নির্ধারণ করতে হবে।’

মেসি ও রোনালদোর অবসরের পর সুপার স্টার হবার পথে যাচ্ছেন কিনা জানতে চাইলে জবাবে এমবাপে বলেন, ‘আমি সব কিছুর নিয়ন্ত্রক নই। সময়ই সব বলে দেবে। এটি শুধু মাঠের নিয়ন্ত্রণ করলেই চলবে না। চতুর্দিকের সবকিছুই অনুকূলে থাকতে হবে। এটি সহজ কাজ নয়। আমি এখনো শিক্ষা নিচ্ছি। প্রতিটি চ্যালেঞ্জকে একের পর এক অতিক্রমে সহায়তা করার জন্য আমারও চতুর্দিকে কিছু মানুষ থাকতে হবে।’


আরো সংবাদ