১৭ নভেম্বর ২০১৮

ইন্দোনেশিয়ায় প্রতিরক্ষা মেলায় অংশ নিচ্ছে বাংলাদেশী ডিফেন্স জার্নাল

ইন্দোনেশিয়ার উপ রাষ্ট্রপতি ইন্দোডিফেন্স এক্সপো ও ফোরাম উদ্বোধন করেন -

ইন্দোনেশিয়ার রাজধানী জাকার্তায় শুরু হয়েছে বিশ্বের অন্যতম বৃহৎ অস্ত্র মেলা। গত ৭ নভেম্বর দেশটির উপ রাষ্ট্রপতি জুসুপকালা জাকার্তা আন্তর্জাতিক এক্সপো প্রাঙ্গণে মেলার উদ্বোধন করেন। ইন্দোনেশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে আয়োজিত ‘ইন্দোডিফেন্স ২০১৮ এক্সপো ও ফোরাম’ নামের এই মেলায় বিভিন্ন দেশের অস্ত্র প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান ছাড়াও বিশ্বসেরা প্রতিরক্ষা জার্নালগুলো অংশগ্রহণ করছে।

বাংলাদেশ থেকে প্রথমবারের মতো কোন অস্ত্র মেলায় অংশ নিচ্ছে বাংলাদেশ ডিফেন্স জার্নাল। লাল-সবুজের পতাকাও এজন্য উড়েছে মেলায়। পৃথিবীখ্যাত প্রতিরক্ষা পত্রিকা জেনস্ডিফেন্স উইকলি, এশিয়ান ডিফেন্স জার্নালের পাশাপাশি বাংলাদেশ ডিফেন্স জার্নাল ইভেন্টের মিডিয়া সহযোগী হিসাবে ইন্দোনেশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় কর্তৃক আমন্ত্রিত হয়েছে।

চারদিনব্যাপী অনুষ্ঠিত ইন্দোডিফেন্স এক্সপো ও ফোরামে পৃথিবীর উল্লেখযোগ্য অস্ত্র ও সমরপোকরণ প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠানগুলো অংশ নিচ্ছে। স্বাগতিক দেশ হিসাবে ইন্দোনেশিয়ায় তৈরী ট্যাংক, সাজোয়া যান, ওয়্যারলেস কমিউনিকেশন সরঞ্জামসহ বিভিন্ন সামগ্রীর ব্যাপক উপস্থিতি সকলের নজর কেড়েছে।

মেলায় নানা ধরনের সমরাস্ত্র ও উপকরণ নিয়ে এসেছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, তুরস্ক, মালয়েশিয়া, রাশিয়া, ইউক্রেন, বেলারুস, সিঙ্গাপুর, চীন, ভারত, পাকিস্তান, বেলজিয়াম, ফিনল্যান্ড, ফ্রান্স, ইতাতি, অস্ট্রেলিয়াসহ আরো অনেক দেশ। বিশালাকৃতির সামরিক ট্রাক, এ্যাটাক ড্রোন, ইলেক্ট্রনিক ওয়ারফেয়ার সরঞ্জাম, রাডার, সিগন্যাল ইকুইপমেন্ট, মর্টার, কামান, মেশিনগান, রাইফেলসহ বিভিন্ন ধরনের অস্ত্র ও সরঞ্জাম স্থান পেয়েছে বিশালাকৃতির মাঠে ও একাধিক হলে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সাথে রক্তক্ষয়ী যুদ্ধের মধ্য দিয়ে স্বাধীন হওয়া ভিয়েতনামের স্টলে থরে থরে সাজানো আছে সেদেশের নিজস্ব প্রযুক্তিতে তৈরি আধুনিক সব অস্ত্র যা মেলায় আগতদের যারপর নাই বিস্মিত করেছে।

মেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন নিউজিল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া, মালয়েশিয়া, সংযুক্ত আরব আমিরাত, সিঙ্গাপুর, ব্রুনেই, সৌদি আরব, থাইল্যান্ড ও ইরানের প্রতিরক্ষা মন্ত্রী অথবা সশস্ত্র বাহিনীর প্রধানগণ।

৭ নভেম্বর থেকে ৯ নভেম্বরপর্যন্ত মেলা শুধুমাত্র রেজিস্টার্ড ভিজিটর ও অংশগ্রহনকারীদেরজন্য উন্মুক্ত ছিল। ১০ নভেম্বর খোলা থাকবে সকল শ্রেনীর মানুষের জন্য।


আরো সংবাদ