১৭ নভেম্বর ২০১৮

দুর্বৃত্তের এলোপাতাড়ি গুলিতে ব্যবসায়ী নিহত

-

রাজধানীর পল্লবীতে দুর্বৃত্তের এলোপাতাড়ি গুলিতে মহিউদ্দিন ওরফে মোহন খান (৪২) নামের এক জুট ব্যবসায়ী নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় হাসান আলী (৪১) নামে আরেক বেকারি ব্যবসায়ী আহত হন। গতকাল শুক্রবার রাত ৮টায় প্যারিস রোডের ডি ব্লকে এ ঘটনা ঘটে। পরে তাদেরকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নেয়া হলে চিকিৎসক মোহনকে মৃত ঘোষণা করেন। পুলিশ বলছে, পূর্বশত্রুতার জেরে এ ঘটনা ঘটতে পারে।
কিশোরগঞ্জ জেলার করিমগঞ্জ উপজেলার পানাহার গ্রামের মৃত রাশিদ খানের ছেলে মোহন। থাকতেন মিরপুর ১০ নম্বর সেকশনের প্যারিস রোডের ডি ব্লক উদয়ন স্কুলসংলগ্ন ২১ নম্বর বাসায়। এলাকার জুট পট্টিতে তার জুটের ব্যবসা এবং কালশি রোডে বিসমিল্লাহ হার্ডওয়্যার নামের আরেকটি ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান রয়েছে। আর আহত হাসান একই সেকশনের ফকিরবাড়ি ৯ নম্বর রোডের মেঘনা বেকারিসংলগ্ন ৩ নম্বর বাসায় থাকেন। মেঘনা বেকারি থেকে পণ্য কিনে এলাকার বিভিন্ন দোকানে সরবরাহ করেন তিনি।
প্রত্যদর্শী আলআমিন নামে এক মুদি দোকানি জানান, রাত ৮টায় তার দোকানের পাশে দাঁড়িয়ে ছিলেন মোহন। এ সময় এক দুর্বৃত্ত হঠাৎ এলোপাতাড়ি গুলি চালাতে থাকে। এতে মোহনসহ দুইজন গুলিবিদ্ধ হয়ে মাটিতে পড়ে গেলে ওই দুর্বৃত্ত পালিয়ে যায়। আহত হাসান বলেন, ঘটনাস্থলের পাশে একটি দোকান থেকে বেকারির টাকা সংগ্রহের সময় পেছনে অনেক গুলির শব্দ শুনতে পান। সাথে সাথে তার হাতে গুলি লাগে। পরে স্থানীয়রা তাদেরকে উদ্ধার করে ঢামেকে নিয়ে যান।
পল্লবী থানার ইন্সপেক্টর (অপারেশন) ইমরানুল ইসলাম জানান, নিহত মোহনের পেটে ও বুকে তিনটি গুলি লেগেছে। হাসানের ডান হাতের কনুইয়ে দু’টি গুলিবিদ্ধ হয়েছে। হাসানকে ঢামেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আগে একবার ব্যবসায়িক দ্বন্দ্বে মোহন গুলিবিদ্ধ হয়েছিলেন। সেই ঘটনার জেরেই এ ঘটনা কি না বা অন্য কোনো ঘটনা আছে কি না তা জানার চেষ্টা চলছে।


আরো সংবাদ