১১ ডিসেম্বর ২০১৮

আন্তর্জাতিক তদন্ত কমিটির শুনানিতে হাজির হননি জাকারবার্গ

আন্তর্জাতিক তদন্ত কমিটির শুনানিতে হাজির হননি জাকারবার্গ - ছবি : সংগৃহীত

ব্রিটিশ রাজনৈতিক পরামর্শক প্রতিষ্ঠান ক্যামব্রিজ অ্যানালিটিকা ফেসবুকের ৮ কোটি ৭০ লাখ গ্রাহকের ব্যক্তিগত তথ্য হাতিয়ে নিয়েছে। এ ঘটনায় বিশ্বের জনপ্রিয় সোস্যাল মিডিয়া জায়ান্টকে জরিমানা করে যুক্তরাজ্য। সম্প্রতি এ জরিমানার বিরুদ্ধে আপিল করেছে ফেসবুক। ক্যামব্রিজ অ্যানালিটিকা কেলেঙ্কারির ঘটনায় ব্রিটিশ সংসদীয় কমিটি জাকারবার্গকে একাধিকবার তাদের শুনানিতে হাজির হতে বলেছিল। তবে জাকারবার্গ ব্রিটিশ আইনপ্রণেতাদের সামনে হাজির হননি। তবে ক্যামব্রিজ অ্যানালিটিকা কেলেঙ্কারির ঘটনায় মার্কিন সিনেট ও ইউরোপিয়ান পার্লামেন্টের শুনানিতে হাজির হয়েছিলেন জাকারবার্গ। উভয় শুনানিতে ফেসবুক ব্যবহারকারীদের ব্যক্তিগত তথ্য হাতিয়ে রাজনৈতিক কাজে ব্যবহারের ঘটনায় দায় স্বীকার করে ক্ষমা চেয়েছেন জাকারবার্গ।

ফেসবুকের মাধ্যমে ভুয়া সংবাদ ছড়ানোর বিষয়ে সাক্ষ্য দিতে প্রতিষ্ঠানটির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) মার্ক জাকারবার্গের ওপর চাপ বাড়ছে। সাত দেশের আইনপ্রণেতাদের সমন্বয়ে গঠিত একটি যৌথ শুনানিতে অংশ নিতে জাকারবার্গের প্রতি আহ্বান জানানো হয়েছিল। তবে সে শুনানিতে অংশ নিতে অস্বীকৃতি জানিয়েছেন জাকারবার্গ। সোস্যাল মিডিয়া জায়ান্টটি তাদের পলিসি সলিউশন বিভাগের ভাইস প্রেসিডেন্ট রিচার্ড অ্যালানকে শুনানিতে পাঠানোর সিদ্ধান্ত জানিয়েছেন। ফেসবুকের মাধ্যমে ভুয়া সংবাদ ছড়ানো বিষয়ে গতকাল শুনানিটি অনুষ্ঠিত হয়।
এতে উপস্থিত ছিলেন আর্জেন্টিনা, ব্রাজিল, কানাডা, আয়ারল্যান্ড, লাটভিয়া, সিঙ্গাপুর ও যুক্তরাজ্যের শীর্ষস্থানীয় আইনপ্রণেতারা। যৌথ শুনানিতে অংশ নিতে জাকারবার্গ আগ্রহী নন, এমন একটি চিঠি সংশ্লিষ্ট দেশের কর্মকর্তাদের কাছে পাঠিয়েছে ফেসবুক। এতে বলা হয়েছে, জাকাররার্গের পক্ষে সব দেশের পার্লামেন্টের শুনানিতে হাজির হওয়া সম্ভব নয়।
জাকারবার্গের কাছে পাঠানো যৌথ চিঠিতে বলা হয়, সংসদীয় কমিটি এখনো মনে করে তথ্য গোপনীয়তা, নিরাপত্তা ও তথ্য শেয়ার বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্নের উত্তর দিতে মার্ক জাকারবার্গই উপযুক্ত ব্যক্তি। যৌথ শুনানিতে অংশগ্রহণ বিষয়ে জাকারবার্গ যে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন, তা প্রতিষ্ঠানটিকে বিশ্বব্যাপী সঙ্কটে ফেলতে পারে। এসব দেশে ফেসবুক নিয়ন্ত্রণ বা শাস্তির মুখে পড়তে পারে।


আরো সংবাদ