১২ ডিসেম্বর ২০১৮

শ্রীপুরে আশা জাগাচ্ছে ইউরোপের বারবন রেড টার্কি

শ্রীপুরে আশা জাগাচ্ছে ইউরোপের বারবন রেড টার্কি - ছবি : সংগৃহীত

ইউরোপ ও আমেরিকা মহাদেশের বারবন রেড টার্কি, গায়ের পালক লাল-সাদা বর্ণের। স্বভাবজাত সাধারণ টার্কির মতো হলেও এরা জাতে অনেক উন্নত। লালন-পালন ও খরচ সাধারণ হলেও গোশত উৎপাদন হয় দিগুণ। বাংলাদেশে এ বারবন রেড টার্কি মাত্র ৭ থেকে ৮টি খামারে লালন-পালন হয়ে থাকে। এর মধ্যে গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার ভাংনাহাটি গ্রামে ডক্টরস্ টার্কি ফার্মের বারবন রেড টার্কির চাষ হচ্ছে।

ডক্টরস্ টার্কি ফার্মের স্বত্ত্বাধিকারী ডা. এমরানুল হক মন্ডল জানান, ২ বছর আগে লন্ডন থেকে বারবন রেড টার্কির একশ ও বগুড়া জেলার ধুনট উপজেলা থেকে ২ শ’ ডিম সংগ্রহ করে তা ইনকিউবেটরে সাহায্যে বাচ্চা ফুটিয়েছেন। এর মধ্যে কিছু ডিম নষ্ট হয়ে যায়। বাকীগুলো থেকে পর্যায়ক্রমে সফলতা এসেছে। বর্তমানে তার ফার্মে প্রাপ্ত বয়স্ক প্রায় ৩ শ’ মতো বারবন রেড টার্কি রয়েছে। এছাড়াও দুই বছরে প্রায় ৬ শ’টির বেশি টার্কি বিক্রি করে ভালো আয় হয়েছে।
বর্তমানের এ টার্কির বাজার মূল্য সাধারণ টার্কির চেয়ে বেশি। যেখানে এক মাস বয়সী সাধারণ টার্কির বাচ্চা ৩ শ’ টাকা থেকে সাড়ে ৩ শ’ টাকা জোড়া বিক্রি হয় সেখানে এক মাস বয়সী বারবন রেড টার্কি একটি বাচ্চা ১৫ শ’ থেকে ২ হাজার টাকায় বিক্রি করা হচ্ছে। আর প্রাপ্তবয়স্ক সাধারণ টার্কি সেখানে ৭-৮ কেজি ওজনের হয়, সেখানে প্রাপ্ত বয়স্ক বারবন রেড টার্কির ওজন ১৪-১৫ কেজি ছাড়িয়ে যায়। বারবন রেড ও সাধারণ টার্কি খাবারের মধ্যেও কোন পার্থক্য নেই। এরা দিনে ২৫০ গ্রাম পর্যন্ত খাবার খেয়ে থাকে। সাধারণ টার্কির মতোই বারবন রেড টার্কি ঘাস লতাপাতা ছাড়াও পোল্ট্রি ফিড খেয়ে থাকে। তিনি জানান, এ ২৫০ গ্রাম খাবারের মধ্যে খামার থেকে ১৩০ গ্রাম খাবার সরবরাহ করা হয়, বাকী খাবার তারা প্রাকৃতিক পরিবেশ থেকে পেয়ে থাকে। এতে খাবার হিসেবে দৈনিক প্রতি বারবন রেড টার্কির পেছনে ব্যয় হয় সাড়ে তিন থেকে চার টাকা।

তিনি আরো জানান, রেড বারবন টার্কি আয়ুকাল ৬ বছর। তবে এরা চার বছর পর্যন্ত স্বাভাবিক ভাবে ডিম দিয়ে থাকে। এরা একাধারে ১০-১২ দিন ডিম দেয়ার পর কিছুদিন ডিম দেয়া বন্ধ রাখে। তবে রেড বারবন টার্কি মাংস খুব সুস্বাদু।

এব্যাপারে গাজীপুর জেলা প্রাণি সম্পদ কর্মকর্তা দীপক রঞ্জন রায় বাসসকে জানান, বাংলাদেশে বারবন রেড টার্কির খুবই সম্ভাবনা রয়েছে। এদের গঠন দৃষ্টি নন্দন ও মাংস উৎপাদনে অন্যান্য টার্কির চেয়ে দ্বিগুণ। দেশীয় আবহাওয়ায় এ টার্কির চাষ করলে অনেক লাভবান হওয়া সম্ভব।


আরো সংবাদ

ঢাকা-৪ আসনে বিএনপি প্রার্থীর বাসা লক্ষ্য করে ককটেল নিক্ষেপ নজরুল চেয়ারম্যান রিজভী সদস্যসচিব ঢাকা-১৭ আসনে বিএনপি নেতা জামান মোল্লার উদারতা অবজার্ভা ওয়ার্ল্ড ওয়াইড এডুকেশন সেন্টারের পরিচালক আমিনুর রহমানের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা ১৭ ডিসেম্বর থেকে খিলগাঁও এক্সচেঞ্জের ‘৭২৫’ গ্রুপের টেলিফোন নম্বর পরিবর্তন মতাসীন দল নির্বাচন বানচালের ষড়যন্ত্র করছে : নূর হোসাইন কাসেমী ১০ গায়েবি মামলায় বিএনপির দুই শীর্ষ নেতার জামিন অনাবাসী বাংলাদেশী প্রকৌশলীদের প্রথম সম্মেলন ফেব্রুয়ারিতে সেনাবাহিনীকে বিচারিক ক্ষমতা দিয়ে অবিলম্বে নির্বাচনের পরিবেশ তৈরি করুন : মুফতি রেজাউল করীম আবদুল হাই মাশরেকী ছিলেন চেতনাবোধ জাগ্রত করার কবি দুই ও পাঁচ টাকা মূল্যমানের নতুন নোট ইস্যু আজ

সকল