১৬ জানুয়ারি ২০১৯

এই ঘটনা সবার মন ছুঁয়ে যাবে

মা-মেয়ের সাথে রেস্টুরেন্টে সিংড়া থানার ওসি মনিরুল ইসলাম - ছবি : নয়া দিগন্ত

ঘটনাটা অতি সাধারণ মনে হবে। কিন্তু আসলে কী তাই? কারণ সন্তানের প্রতি মায়ের ভালোবাসা অসীম আর মায়ের প্রতি সন্তানের? সে ভালোবাসাও অসীম। শাহানা বেওয়ার আর তার মায়ের গল্পটা শুনলে সে ভালোবাসারই ঘ্রাণ পাবেন।

শাহানার বয়স ৫৫ বছর। তার মা আয়শার ৮০। তাদের বাড়ি সিংড়া পৌর শহরের পরানহাটি মহল্লায়।

ঘটনা সোমবার সন্ধ্যার। শাহানা তার মাকে সিংড়ার বিখ্যাত এক রেস্টুরেন্ট খাওয়াতে এনেছেন। ঠিক ওই সময় রেস্টুরেন্টে খেতে যান সিংড়া থানার ওসি মনিরুল ইসলাম।

সেখানে গিয়ে তিনি দু'জন বৃদ্ধা মহিলাকে খেতে দেখে একটু আশ্চর্য হন। কাছে গিয়ে তাদের সাথে কথা বলেন। সেখানে আসার কারণ জিজ্ঞেস করেন।

তখন শাহানা ওই রেস্টুরেন্টে আসার কারণ জানান। জানান পুরো ঘটনা।

শাহানার ভাষ্য, আমার দুই মেয়ে এক ছেলে। ছেলের সংসারে থাকি। দুই মেয়ের মধ্যে শিউলি বড় তার বিয়ে হয়েছে নঁওগা জেলার সাপাহার উপজেলায় এবং ছোট মেয়ে শাবানার বিয়ে হয়েছে সিংড়া উপজেলার মুষ্টিগর গ্রামে। মেয়েরা মাঝে মাঝে আমাকে 'কুটুম বাড়ি' রেস্টুরেন্টে নিয়ে এসে বিভিন্ন রকম খাবার খাওয়ায়। এজন্য ভাবি, আমার বৃদ্ধা মাকেও আমি এই রেস্টুরেন্টে খাওয়াবো। মাকে একদিন বলার পরে আশ্চর্য হয়ে আমাকে জিজ্ঞেস করেন, চলনবিলের কুটুম বাড়ি আবার কি? আজ আমি আমার মাকে এখানে নিয়ে এসে অনেক রকম খাবার খাওয়ালাম, আমি খুব খুশি।'

কথাগুলো খুব মন দিয়ে শুনেন ওসি মনিরুল ইসলাম। এমন বিরল ঘটনা শুনে আশ্চর্য হন ওসি। এবং মা-মেয়েকে মিষ্টি খাওয়ান।

এই ঘটনায় অভিভূত সিংড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনিরুল ইসলাম বলেন, এ যুগে এমন বিরল ঘটনা চোখেই পড়ে না। আমি একটা বার্তা সবার মাঝে পৌঁছে দিতে চাই, সেটা হলো- এমন সৌহার্দপূর্ণ আচরণ এবং ভালোবাসা যদি প্রতিটি ঘরে ঘরে থাকে তাহলে এই পৃথিবী হবে আরো সুন্দর। পৃথিবীতে থাকবে শুধু ভালোবাসা আর মায়া-মমতা।


আরো সংবাদ