১৬ জানুয়ারি ২০১৯

টয়লেটের চেয়েও বেশি নোংরা স্মার্টফোন

-

কেউ যদি ভেবে থাকেন টয়লেটই সবচেয়ে নোংরা জায়গা, যেখানে জীবাণুর আস্তানা, তাহলে নিজের স্মার্টফোনটা একবার পরীক্ষা করিয়ে নিতে পারেন। কারণ আপনার খালি চোখ সেটা ধরতে পারবে না।

জেনে রাখুন, এই স্মার্টফোনেই আছে টয়লেট সিটের চেয়ে দশগুণ বেশি রোগ-জীবাণু। যুক্তরাজ্যের বাসিন্দাদের নিয়ে সম্প্রতি এই গবেষণা চালিয়েছে ইসুরেন্স প্রাদানকারী যুক্তরাজ্যভিত্তিক প্রতিষ্ঠান ‘ইনসুরেন্স টু গো’। তাদের গবেষণাতেই উঠে এসেছে এমন চাঞ্চল্যকর তথ্য।

এই গবেষণায় দেখা গেছে, স্মার্টফোনের পর্দা, ব্যাক বাটন, লক বাটন এবং হোম বাটনে টয়লেট আসন এবং ফ্ল্যাশের চেয়ে বেশি জীবাণু থাকে।

গবেষণায় আরো উঠে এসেছে, এক তৃতীয়াংশের বেশি স্মার্টফোন ব্যবহারকারী পরিষ্কার তরল বা এ ধরনের কিছু দিয়ে স্মার্টফোন পরিষ্কার করেন না। এক প্রতিবেদনে বিষয়টি জানিয়েছে ব্রিটিশ ট্যাবলয়েড ‘দ্য মিরর’।

যুক্তরাজ্যের বাসিন্দারা প্রতি ছয় মাসে দেশটির ২০ জনের মধ্যে মাত্র একজন স্মার্টফোন পরিষ্কার করেন বলেও প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে। জনপ্রিয় তিন স্মার্টফোন গ্রাহকদের নিয়ে এই গবেষণা চালানো হয়। গবেষণায় বায়ুজীবি ব্যাকটেরিয়া, ছত্রাক এবং জীবাণুর বাসস্থান পরীক্ষা করা হয়েছে।

জীবাণুর বাসস্থান যদি প্রতি বর্গ সেন্টিমিটারে একক শূন্য হয় তবে এটি আক্রান্ত নয় বলে ধরা হয়। স্মার্টফোন পর্দায় এই এককের পরিমাণ পাওয়া গেছে ২৫৪.৯, যেখানে টয়লেট আসন ও ফ্ল্যাশে এককের পরিমাণ মাত্র ২৪।

স্মার্টফোনের এই জীবাণু ত্বক এবং স্বাস্থ্যের উপর মারত্মক প্রভাব ফেলতে পারে। এটি ত্বক নোংরা হওয়া এবং ত্বকের সমস্যার একটা বড় মাধ্যম। যা ব্রণের কারণ। নিয়মিত স্মার্টফোন পরিষ্কার করলে ব্যাকটেরিয়া মুক্ত থাকবে।

ইনসুরেন্স টু গো’র কর্মকর্তা গ্যারি বিস্টোন বলেন, আমরা সাধারণত সব সময়ই স্মার্টফোন সাথে নিয়ে ঘুরি। এভাবেই নানা জায়গা থেকে ওই ফোনে বাসা বাঁধে জীবাণু।

বর্তমানে বিশ্বজুড়ে স্মার্টফোন ব্যবহারের মাত্রা বেড়েই চলেছে। মূলত ভার্চুয়াল জগতে সর্বক্ষণ থাকার উপায় হিসেবে ব্যবহৃত হচ্ছে স্মার্টফোন। বিশেষজ্ঞদের মতে, সাম্প্রতিক গবেষণায় জীবাণুর বিস্তারে স্মার্টফোনের ভূমিকার বিষয়টি জোরালো হয়েছে।


আরো সংবাদ