১৬ জানুয়ারি ২০১৯

অবস্থান স্পষ্ট করলেন মাহবুব তালুকদার

মাহবুব তালুকদার - ফাইল ছবি

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের শুরু থেকেই নানা অসঙ্গতি নিয়ে সরব ছিলেন নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুকদার। সে হিসেবে তিনি বিরোধী শিবিরের প্রশংসা কুড়িয়েছিলেন। কিন্তু নির্বাচন সম্পন্ন হওয়ার পর তার একটি বক্তব্যকে ঘিরে তাকে নিয়ে বিরূপ একটি পরিবেশের সৃষ্টি হয়। বিরোধী দলগুলো সে নির্বাচনে ব্যাপক অনিয়মের উল্লেখ করে এর ফলাফল প্রত্যাখ্যান করেছে।

গত ৩ জানুয়ারিতে নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের উদ্যোগে আয়োজিত ধন্যবাদ জ্ঞাপন অনুষ্ঠানে মাহবুব তালুকদারের যে বক্তব্যকে ঘিরে আলোচনা-সমালোচনার সৃষ্টি হয়েছে সে ব্যাপারে তিনি একটি ব্যাখ্যা দিয়েছেন।

আজ মঙ্গলবার সাংবাদিকদের সাথে তিনি এ বিষয়ে কথা বলেছেন। লিখিত বক্তব্যে মাহবুব তালুকদার বলেছেন, ‘নির্বাচনের বিশ্বাসযোগ্যতা ও গ্রহণযোগ্যতা নিয়ে ধন্যবাদ জ্ঞাপন অনুষ্ঠানে আমি কোনো কথা বলিনি। কেমন নির্বাচন হয়েছে—সাংবাদিকদের এহেন প্রশ্নের জবাবে আমি আগে বলেছি, নিজেদের বিবেককে জিজ্ঞাসা করুন, তাহলে এ প্রশ্নের জবাব পেয়ে যাবেন। এখনো আমি সে কথাই বলি। আমার অবস্থানের কোনো পরিবর্তন হয়নি।’

তিনি বলেন, ‘গত ৩ জানুয়ারিতে নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের উদ্যোগে আয়োজিত ধন্যবাদ জ্ঞাপন অনুষ্ঠানে আমি যে বক্তব্য রাখি, তাতে কিছু বিভ্রান্তি সৃষ্টি হয়েছে। অনেক সাংবাদিক আমাকে প্রশ্ন করেছেন, আমি আমার অবস্থান পরিবর্তন করেছি কি না। এ সম্পর্কে বিভ্রান্তির অবসান ঘটাতে বিষয়টি স্পষ্ট করা প্রয়োজন।’

তিনি বলেন, ‘আমি বক্তব্যে বলেছি, অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন উপহার দিয়েছি। ইতোপূর্বে ১৭ ডিসেম্বর ২০১৮ তারিখের বক্তব্যে আমি বলেছিলাম, সব দল অংশগ্রহণ করলে অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন বলা হয়। সুষ্ঠু নির্বাচনের সাথে এর সম্পর্ক নেই। নির্বাচন অংশগ্রহণমূলক হওয়া একটা প্রাথমিক প্রাপ্তি। আসল কথা হচ্ছে, নির্বাচন গ্রহণযোগ্য হচ্ছে কি না এবং বিশ্বাসযোগ্য হচ্ছে কি না। নির্বাচন গ্রহণযোগ্য ও বিশ্বাসযোগ্য না হলে অংশগ্রহণমূলক হলেও কোনো লাভ নেই।’

মাহবুব তালুকদার আরো বলেন, ‘গত ৩ জানুয়ারির অনুষ্ঠানটি ছিল ধন্যবাদ জ্ঞাপন অনুষ্ঠান। কাউকে প্রশংসাসূচক কথা বলে ধন্যবাদ জানাতে হয় এবং সেটাই সৌজন্যের প্রকাশ। আমার ধন্যবাদ জ্ঞাপন বক্তব্যকে রাজনৈতিকভাবে বিচার-বিশ্লেষণ করা ঠিক হবে না।’


আরো সংবাদ