১৬ জানুয়ারি ২০১৯

ইরানের পক্ষে গোয়েন্দাবৃত্তির অভিযোগে ইসরাইলি মন্ত্রীর কারাদণ্ড

-

ইরানের পক্ষে গোয়েন্দাবৃত্তির দায়ে নিজেদের এক সাবেক মন্ত্রীকে ১১ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে ইসরাইলের আদালত। জ্বালানি, নিরাপত্তা, রাজনৈতিক ও নিরাপত্তা বাহিনীর নানা স্থাপনার বিষয়ে তথ্য পাচারের দায়ে তাকে এ সাজা দেয়া হয়।

ইসরাইলের আইন মন্ত্রণালয় জানায়, ‘রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে মারাত্মক ধরনের গোয়েন্দাবৃত্তি ও অন্য দেশের কাছে তথ্য পাচারের দায়ে’ ইসরাইলের সাবেক জ্বালানি ও অবকাঠামো মন্ত্রী গোনেন সেগেভকে ১১ বছরের সাজা দিয়েছে আদালত।

গোনেন সেগেভ ১৯৯৫-৯৬ সালে ইসরাইলের জ্বালানি ও অবকাঠামো মন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। এ সময়কালে ইসরাইল-ফিলিস্তিন বিষয়ক অসলো শান্তিচুক্তি বিষয়ে সরকারের সাথে তার মতনৈক্য হলে তাকে দলচ্যুত করা হয়। পরে ইসরাইল সরকার ডাক্তার হিসেবে তার সব ধরনের লাইসেন্স বাতিল করে দিলে গত দশ বছর ধরে তিনি নাইজেরিয়াতে ডাক্তারি পেশায় নিয়োজিত ছিলেন।

ইসরাইলের নিরাপত্তা দফতর থেকে জানানো হয়, ইরানের নিরাপত্তা সংস্থা ২০১২ সালে নাইজেরিয়াতে অবস্থিত তাদের দূতাবাসের মাধ্যমে ইসরাইলের বিরুদ্ধে গোয়েন্দাবৃত্তির জন্য তার সাথে চুক্তিবদ্ধ হয়৷ এ সময় সেগেভ দু’বার ইরান ভ্রমণ করেছেন বলেও ধারণা করা হচ্ছে।

তার বিরুদ্ধে গোয়েন্দাবৃত্তির অভিযোগ আনা হলে তাকে ইসরাইলে ফেরত আনে সরকার।

এদিকে সেগেভকে উদ্ধৃত করে ইসরাইলি সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ অস্বীকার না করলেও ইরানের গোয়েন্দা সংস্থাকে ধোঁকা দেয়ার জন্য এ কাজ করেন বলে দাবি করেছেন তিনি।

২০১৮ সালের জুলাই থেকে সেগেভের বিরুদ্ধে আনা অভিযেগের বিচার শুরু হয়। তবে বিচার প্রক্রিয়াটি উন্মুক্ত ছিল না।

সেগেভের বিরুদ্ধে এর আগেও মাদকদ্রব্য পাচার, ভুয়া কূটনৈতিক পাসপোর্ট ব্যবহার ও ক্রেডিট কার্ড জালিয়াতিসহ নানা অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডে জড়িত থাকার প্রমাণ পাওয়া গেছে।

সূত্র : ডয়চে ভেলে


আরো সংবাদ