১৬ জানুয়ারি ২০১৯

মিয়ানমারে রয়টার্স সাংবাদিকদের আপিল খারিজে পেন্স উদ্বেগ

-

রোহিঙ্গা নিধনযজ্ঞের খবর সংগ্রহের কারণে মিয়ানমারে কারাবন্দী রয়টার্সের দুই সাংবাদিকের আপিল আদালত খারিজ করে দেয়ায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্স। টুইটারে দেয়া পোস্টে তিনি বলেন, আদালত গণতন্ত্রের একটি মৌলিক পরীক্ষায় ব্যর্থ হয়েছে। শুক্রবার সন্ধ্যায় পেন্স বলেন, মিয়ানমারের আদালত দুই সাংবাদিকের সাজা বহাল রেখেছে, যা খুবই বিরক্তিকর। গণতন্ত্রের মৌলিক পরীক্ষায় ব্যর্থ হয়েছে আদালত।
তিনি বলেন, মুক্ত ও স্বাধীন সংবাদমাধ্যমের জন্য মিয়ানমারের উচিত এই সাংবাদিকদের অবিলম্বে মুক্তি দেয়া। পুরো দুনিয়া এ ঘটনা দেখছে। এর আগে শুক্রবার রোহিঙ্গা নিধনযজ্ঞের খবর সংগ্রহ করতে গিয়ে সাত বছরের কারাদণ্ড পাওয়া রয়টার্সের দুই সাংবাদিকের আপিল খারিজ করে দেয় মিয়ানমারের আদালত। তাদের বিরুদ্ধে কথিত রাষ্ট্রীয় গোপনীয়তার আইন ভঙ্গের অভিযোগ আনা হয়েছে। আদালত বলেছে, অভিযুক্তরা নিজেদের নির্দোষ প্রমাণে পর্যাপ্ত তথ্যপ্রমাণ উপস্থাপনে ব্যর্থ হয়েছে।
মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের উপ মুখপাত্র রবার্ট পালাদিনো বলেন, এ রায় শুধু মতপ্রকাশের স্বাধীনতা নিয়ে নয়, বরং আইনের শাসনের প্রতি মিয়ানমারের প্রতিশ্রুতি নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে। রাখাইনে রোহিঙ্গা গণহত্যা নিয়ে অনুসন্ধানের সময় ৩২ বছর বয়সী ওয়া লোন ও ২৮ বছরের কিয়াও সোয়ে ও নামের রয়টার্সের দুই সাংবাদিককে আটক করে মিয়ানমার। তাদের বিরুদ্ধে ব্রিটিশ ঔপনিবেশিক আমলের রাষ্ট্রীয় গোপনীয়তা আইনে অভিযোগ আনা হয়। পরে ওই দুই সাংবাদিককে দোষী সাব্যস্ত করে সাত বছরের কারাদণ্ড দেয় একটি আদালত।


আরো সংবাদ