২৪ আগস্ট ২০১৯

নুহাশপল্লীতে হুমায়ূন আহমেদের ৭ম মৃত্যুবার্ষিকী পালন

নুহাশপল্লীতে হুমায়ূন আহমেদের ৭ম মৃত্যুবার্ষিকী পালন - নয়া দিগন্ত

নন্দিত কথা সাহিত্যিক হুমায়ুন আহমদের ৭ম মৃত্যুবার্ষিকী শুক্রবার যথাযোগ্য মর্যাদায় গাজীপুরে পালিত হয়েছে। এদিন সকালে নিহতের ভাই-বোন, শ্বশুর এবং নুহাশপল্লীর কর্মচরী ও ভক্তসহ হিমু পরিবহণের সদস্যরা কবর জেয়ারত ও কবরে পুষ্পস্তবক অর্পন করেন। লেখকের স্ত্রী মেহের আফরোজ শাওন এবং তার দুই ছেলে নিশান ও নিনিদ দেশের বাইরে থাকায় তারা গাজীপুরে অনুষ্ঠিত হুমায়ুন আহমদের ৭ম মৃত্যুবার্ষিকীর কর্মসূচীতে যোগ দিতে পারেননি। দিবসটি উপলক্ষে হুমায়ূন আহমেদের পরিবারের পক্ষ থেকে গাজীপুরের নুহাশপল্লীতে নানা আয়োজন করেছে।

হুমায়ুন আহমদের শ্বশুর প্রকৌশলী মোহাম্মদ আলী ও নুহাশপল্লীর কর্মচারীরা শুক্রবার সকাল ১০টার দিকে গাজীপুরের নুহাশ পল্লীতে হুমায়ুন আহমদের সমাধিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ এবং কবর জিয়ারত করেন। পরে সকাল সাড়ে ১০টার দিকে লেখকের ছোট ভাই কার্টুনিস্ট এবং মাসিক উন্মাদের সম্পাদক ও প্রকাশক মো. আহসান হাবীব, তার স্ত্রী আফরোজা আমিন, বোন সুফিয়া হায়দার, রোকসানা আহমেদ, অন্য প্রকাশের প্রধান নির্বাহী মোঃ মাজহারুল ইসলাম, আগামি প্রকাশনীর ওসমান গনি, অভিনেতা সৈয়দ হাসান সোহেল প্রমূখ লেখকের কবরে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান এবং আত্মার মাগফেরাত কামনা করে মোনাজাত করেন। এসময় হিমু পরিবারের সদস্য, হিমু পরিবহনের সদস্য, নুহাশ পল্লীর কর্মকর্তা কর্মচারী এবং স্থানীয় সড়কঘাট হাফেজিয়া মাদ্রাসার শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন।

দিবসটি উপলক্ষ্যে প্রখর রোদকে উপেক্ষা করে হুমায়ূন আহমেদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে এদিন উপস্থিত হয়েছিলেন লেখকের ভক্ত ও অনুরাগীরা। ‘হিমু’রাও এদিন তাদের কর্মসূচি ও হিমু পরিবহন নিয়ে উপস্থিত হয়েছিল গাজীপুরের নুহাশ পল্লীতে হুমায়ুনের সমাধিস্থলে।

আহসান হাবিব জানান, হুমায়ূন আহমেদের সকল স্বপ্ন বাস্তাবায়ন করা সম্ভব হয়নি। তবে তার অনেক স্বপ্নই বাস্তবায়িত হয়েছে। ক্যান্সার হাসপাতাল নির্মাণসহ অনেক স্বপ্ন বাস্তবায়নের পথে রয়েছে। তিনি প্রকাশক ও সংশ্লিষ্টদের প্রতি হুমায়ূন আহমেদের লেখাগুলো নির্ভুলভাবে প্রকাশের অনুরোধ করেছে। তিনি আরো বলেন, হুমায়ূন আহমেদকে নিয়ে পারিবারিকভাবে একটি মিউজিয়াম স্থাপনেরও পরিকল্পনা রয়েছে। তাকে নিয়ে একটি আর্কাইভ নির্মাণ করা হয়েছে। অনেকে হুমায়ূন আহমেদকে নিয়ে গবেষণা করছেন। এ আর্কাইভ গবেষণা কাজে সহায়তা করবে।

হিমু পরিবহণের সভাপতি মো. আসলাম হোসেন জানান, তারা সকালে ঢাকা,ফরিদপুর, নরসিংদী ও গাজীপুর থেকে ৬০জন হিমু নুহাশ পল্লীর কর্মসূচীতে যোগ দেন। হিমুরা একযোগে ৪০ জেলায় একযোগে তাদের প্রিয় লেখকের স্মরণে নানা কর্মসূচী পালন করছে। তার মধ্যে বৃক্ষরোপন, চলচ্চিত্র প্রদর্শনী, বইমেলা রয়েছে। হিমুদের উদ্যোগে ইতোমধ্যে ১০টি জেলা পাঠাগার স্থাপন করা হয়েছে।

শাওনের বাবা প্রকৌশলী মোহাম্মদ আলী জানান, শাওন চলচ্চিত্র বিষয়ক ৬মাস ব্যাপী এক প্রশিক্ষণ নিতে নিশাদ ও নিনিদকে সঙ্গে গত মে মাসে আমেরিকা গেছেন। এজন্য তারা এ কর্মসূচীতে যোগ দিতে পারেননি। তবে শাওন নিউয়র্কে স্বামীকে নিয়ে একটি স্মরনসভায় যোগ দেবেন।

নুহাশ পল্লীর ব্যবস্থাপক সাইফুল ইসলাম বুলবুল জানান, দিবসটি উপলক্ষ্যে সকাল থেকে কোরানখানির আয়োজন করা হয়েছে। এছাড়া স্যারের আত্মার মাগফিরাত কামনা করে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। দুপুরে এলাকার বিভিন্ন মাদ্রাসার এতিম শিশু ছাড়াও অতিথিদের দুপুরের খাওয়ার আয়োজন করা হয়। এতিম শিশু ছাড়াও হিমু পরিবারের সদস্যরাসহ বিভিন্ন এলাকা থেকে আগত অতিথি, এলাকার লোকজন ও হুমায়ুন স্যারের পরিবারের লোকজন এ নুহাশ পল্লীতে আসেন। এছাড়াও নেত্রকোণায় হুমায়ুন আহমেদের শহীদ স্মৃতি বিদ্যাপীঠে হুমায়ুন আহমেদকে নিয়ে নানা কর্মসূচি আয়োজন করা হয়েছে।

জনপ্রিয় এ লেখক ১৯৪৮ সালের ১৩ নবেম্বর নেত্রকোণা জেলার কেন্দুয়া উপজেলার কুতুবপুরে জন্মগ্রহণ করেন। বাবা ফয়জুর রহমান আহমেদ ও মা আয়েশা ফয়েজের প্রথম সন্তান তিনি। জনপ্রিয় এই উপন্যাসিকের বিচরণ ছিল নাটক-চলচ্চিত্রেও। ১৯৭১সনে মুক্তিযুদ্ধর সময় পাকসেনারা তাকে হত্যার জন্য গুলি ছুড়লেও অলৌকিক ভাবে তিনি বেঁচে যান। হুমায়ুন আহমেদ শুধু সাহিত্য রচনা করেননি। তিনি নাটক ও সিনেমায় এ সাহিত্য রূপ দিয়েছিলেন। তার প্রথম টিভি নাটক “এইসব দিনরাত্রি” বিপুল জনপ্রিয়তা এনে দিয়েছিল। তার উল্লেখযোগ্য উপন্যাসের মধ্যে রয়েছে নন্দিত নরকে, লীলাবতী, কবি, শঙ্খনীল কারাগার, গৌরীপুর জংশন, নৃপতি, বহুব্রীহি, দারুচিনি দ্বীপ, শুভ্র, নক্ষত্রের রাত, শ্রাবণ মেঘের দিন, জোছনা, জননীর গল্প প্রভৃতি।

২০১১সালে তার অন্ত্রে ক্যান্সার ধরা পরলে পরের বছরের মাঝামাঝি সময় তার অন্ত্রে অস্ত্রোপচার করা হয়। কিন্তু পরবর্তীতে ইন্ফেকশন হয়ে ২০১২সালের ১৯জুলাই এ পৃথিবী থেকে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করে তাকে পরপারে চলে যেতে হয়। হুমায়ূন আহমেদ নিজের প্রতিষ্ঠিত নুহাশ পল্লীতেই শেষ ঠাঁই নিয়েছেন।


আরো সংবাদ