১৫ নভেম্বর ২০১৯

ফতুল্লায় মাদ্রাসা থেকে দুই জেএমবি সদস্য গ্রেফতার

নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় একটি মাদ্রাসায় অভিযান চালিয়ে জঙ্গি সংগঠন জেএমবির দুই সক্রিয় সদস্যকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-১১ এর সদ্যরা। শনিবার দিবাগত রাতে মাদ্রাসার কক্ষে গোপন বৈঠক করা অবস্থায় মেহেদী হাসান ওরফে মুরাদ (২৪) ও আমানউল্লাহ (৩৩) নামে দুইজনকে গ্রেফতার করা হয়।

এ সময় তাদের কাছ থেকে বিপুল পরিমাণ উগ্রবাদী বই, লিফলেট ও ল্যাপটপ জব্দ করা হয়েছে।

রোববার দুপুরে র‌্যাব-১১ এর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ আলেপ উদ্দিন (পিপিএম) প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে জানান, মেহেদী হাসান মুরাদের বাড়ি নারায়ণগঞ্জ জেলার বন্দর থানা এলাকায়। তিনি ২০১০ সালে স্থানীয় স্কুল হতে এসএসসি ও ২০১২ সালে নারায়ণগঞ্জের একটি কলেজ হতে এইচএসসি পাশ করে এবং ২০১৬ সালে ঢাকার বেসরকারি একটি বিশ্ববিদ্যালয় হতে বিএসসি (টেক্সটাইল) সম্পন্ন করে।

তিনি ২০১৪ সালে কথিত এক বড় ভাইয়ের মাধ্যমে জেএমবিতে যোগদান করে। জেএমবিতে যোগদানের পর নারায়ণগঞ্জসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে জেএমবির সদস্যদের সাথে যোগাযোগ করে আসছিল। অনলাইন হতে উগ্রবাদী বই ও ভিডিও ডাউনলোড করে বিতরণ করে জেএমবি’র সদস্য সংগ্রহের লক্ষ্যে নারায়ণগঞ্জসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে দাওয়াতি শাখার কাজ করে আসছিল।

প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে আরো জানানো হয়, মেহেদী হাসানের মাধ্যমেই আমানউল্লাহ উগ্রবাদী চেতনায় উদ্বুদ্ধ হয়ে জেএমবিতে যোগদান করে। আমানউল্লাহর বাড়ি পিরোজপুর জেলার কাউখালী থানা এলাকায়। তিনি বরিশালের স্থানীয় একটি মাদ্রাসা হতে কামিল পর্যন্ত পড়াশুনা সম্পন্ন করে নারায়ণগঞ্জের একটি মাদ্রাসায় শিক্ষকতা করেছিলেন।

শিক্ষকতার পাশাপাশি ছদ্মবেশে জেএমবির দাওয়াতি শাখার কার্যক্রম পরিচালনা করে। মাদ্রাসায় তার কক্ষটি আলাদা থাকায় জেএমবি সদস্যদেরকে নিয়ে গোপন বৈঠক করতো।

তারা দীর্ঘদিন যাবৎ গোপনে সংগঠিত হয়ে নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গী সংগঠন জেএমবির কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে। আইন শৃংখলা বাহিনীর উপর হামলা ও জেল হতে আটককৃত জেএমবির সদস্যদের মুক্ত করার পরিকল্পনা করাসহ সংগঠনের জন্য তহবিল সংগ্রহ করে বিভিন্ন ধরণের নাশকতামূলক কর্মকান্ড করার অপতৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছে বলে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতারকৃতরা স্বীকার করেছে বলেও জানায় র‌্যাব।

গ্রেফতারকৃত আসামিদের বিরুদ্ধে আইনানুগ কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন রয়েছে বলে জানান র‌্যাব কর্মকর্তা মোঃ আলেপ উদ্দিন (পিপিএম)।


আরো সংবাদ