১৮ নভেম্বর ২০১৯

সা’দ পন্থীদের আঞ্চলিক ইজতেমা শুরু

সার্বিক নিরাপত্তার মধ্যদিয়ে শরীয়তপুর-চাঁদপুর মহাসড়ক ঘেষে বুড়িরহাট উচ্চবিদ্যালয় মাঠে মাওলানা সা’দ পন্থীদের ৩ দিনব্যাপী আঞ্চলিক ইজতেমা শুরু হয়েছে। বৃহস্পতিবার বাদ ফজর জিম্মাদার সাথী মাওলানা শফিউল্লাহ’র আম বয়ানের মধ্য দিয়ে তিনদিন ব্যাপী এ আঞ্চলিক ইজতেমার কার্যক্রম শুরু হয়।

বৃহস্পতিবার দুপুর পর্যন্ত কাকরাইল মসজিদের ২৫টি তাবলীগ জামাতসহ শরীয়তপুর জেলার ৬টি উপজেলার তাবলীগ জামায়াতের মুসল্লিরা ইজতেমা ময়দানে নিজ নিজ অবস্থান নিয়েছেন। শরীয়পুরের ইজতেমাস্থল এখন মুখরিত বিভিন্ন এলাকার মুসল্লিদের সমাগমে। মুসল্লিরা কোরআন তেলাওয়াত, জিকির, তাসবিহ, ত ‘লিম ও বয়ান শুনে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন। শুক্রবার দক্ষিণাঞ্চলের সর্ববৃহৎ জু’ময়ার জামাত অনুষ্ঠিত হবে শরীয়তপুরের আঞ্চলিক ইজতেমা ময়দানে।

বৃহস্পতিবার ইজতেমা ময়দানে গিয়ে দেখা গেছে, মুসল্লিরা সড়ক পথে বাস, টেম্পু. নসিমন, করিমন ও ইজিবাইকসহ বিভিন্ন যানবাহনে করে জিকির করতে করতে আসছেন শরীয়তপুরের বুড়িরহাট ইজতেমা ময়দানে। ইজতেমায় বয়ান হচ্ছে বাংলা ভাষায়।

এতে আল্লাহর মাহাত্ম্য, আখেরী নবী হযরত মুহাম্মদ (সাঃ) এর সুন্নাহ, এবং তার উম্মত হিসাবে করণীয়, দাওয়াতের মেহনতের তরতিব এবং দৈনন্দিন জীবনের অত্যাবশ্যকীয় আমল নিয়েই আলোচনা করছেন তাবলীগ জামাতের মুরব্বিরা।

ইজতেমা ময়দানে নিরাপত্তা ব্যবস্থায় পুলিশ প্রশাসনকে সহায়তা করার জন্য মুসল্লিরাও শুসৃংখল ভাবে ইজতেমা মাঠে নিরাপত্তার দায়িত্ব পালন করছেন। এছাড়াও র‌্যাব ও সাদা পোশাকধারীসহ বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থার লোকজন ইজতেমা এলাকার নিরাপত্তা নিশ্চিত করছেন। আগত মুসল্লিদের চিকিৎসা ও স্বাস্থ্যসেবা সেবা প্রদান ও বিশুদ্ধ পানীয় পানির ব্যবস্থা করেছেন।

এছাড়াও শরীয়তপুরের পুলিশ প্রশাস এবং জেলা স্বাস্থ্য বিভাগের পক্ষ থেকে ইজতেমা ময়দানে তিন দিনের জন্য ফ্রি মেডিকেল টিম ও জরুরী স্বাস্থ্যসেবা ব্যবস্থা করা হয়েছে। আগামী ৯ নভেম্বর শনিবার দুপুর ১২টায় আখেরী মুনাজাতের মধ্য দিয়ে শরীয়তপুরের আঞ্চলিক ইজতেমা শেষ হবে।

তাবলীগ জামাতের আয়োজকের দায়িত্বে ইন্তেজামিয়া আমির মোঃ নুরুজ্জামান বেপারী জানান, ইজতেমা ময়দানের মধ্যে ৪টি খেত্তা ও ২৪টি পয়েন্ট রয়েছে। বুধবার বিকাল থেকেই বিভিন্ন এলাকা থেকে তাবলীগ জামায়াতের মুসল্লিরা ময়দানে আসতে শুরু করেছে।

শরীয়তপুরের পুলিশ সুপার আবদুল মোমেন পিপিএম বলেন, শরীয়তপুর- চাঁদপুর মহাসড়কের পাশের্^র বুড়িরহাট উচ্চবিদ্যালয় মাঠে আঞ্চলিক ইজতেমার মুসল্লিদের জন্য ৩ স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। ২শ’ ৭৯ জন  পোশাকধারী পুলিশ সদস্যদের পাশাপাশি ৩৪ জন সাদা পোশাকের আইনশৃঙ্খলা বাহিনী মুসল্লিদের নিরাপত্তা দায়িত্বে নিয়োজিত থাকবেন। তাবলীগ জামায়াতের শতাধিক মুসল্লিরাও নিরাপত্তার কাজে প্রশাসনকে সহায়তা করবে।

এছাড়াও র‌্যাব-৮ মাদারীপুর ক্যাম্প থেকে র‌্যাব সদস্যরা পুরো ইজতেমা ময়দানে নিরপত্তা বিষয়ে কাজ করছে। নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে সুন্দর ও সুশৃংখলভাবে ইজতেমা শেষ করতে প্রশাসনের পক্ষ থেকে সকল প্রকার সহায়তা দেয়া হবে। আশা করছি, শরীয়তপুরের আঞ্চলিক ইজতেমা সুন্দর এবং সফল ভাবে শেষ হবে।


আরো সংবাদ