০৯ ডিসেম্বর ২০১৯

সাজেদাপুত্রদের দ্বন্দ্বে আ’লীগের সম্মেলন স্থগিত

ফরিদপুরের নগরকান্দা সালথা উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন স্থগিত হয়ে গেছে। আগামীকাল শনিবার এ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিলো।

তবে ফরিদপুরের এই নগরকান্দা ও সালথা উপজেলা নিয়ে গঠিত ফরিদপুর-২ সংসদীয় আসনের সদস্য ও সংসদ উপনেতা সৈয়দা সাজেদা চৌধুরীর দুই ছেলের বিবাদের জের ধরে এ সম্মেলন স্থগিত হয়ে যায় বলে জানা গেছে।

তবে দলীয় তর‌ফ থেকে দাবি করা হয়েছে, সম্মেলনের এক বিশেষ অতিথি অসুস্থতার কারণে আসতে পারছেন না বলে এটি স্থগিত করা হয়েছে।

এ ঘটনার পর সংসদ উপনেতার কনিষ্ঠ পুত্র শাহাদাব আকবর ওরফে লাবু চৌধুরী ফেসবুকে তার নিজস্ব আইডি ‘লাবু চৌধুরী’তে আজ শুক্রবার দুপুর ১১টা ৫৯ মিনিটে ‘বিশেষ সংবাদ’ শিরোনাম দিয়ে এ খবরটি প্রচার করেন।

এদিকে শাহদাব আকবর লাবু চৌধুরী সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আরো জানান, কিছু সময় আগে ঢাকা বিভাগের সাংগঠনিক সম্পাদক এর দায়িত্বপ্রাপ্ত ও আগামী ১৬ নভেম্বর নগরকান্দা সালথা ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনের বিশেষ অতিথি মাহবুল হাসান চৌধুরী নওফেল আমাকে ফোন করে শারীরিক অসুস্থতার কারণে সম্মেলনে উপস্থিত থাকতে পারবেন না বলে জানান। মাহবুব চৌধুরী আগামী ১৯ নভেম্বর চিকিৎসার জন্য বিদেশে গমন করবেন। তিনি দেশে ফেরার পর পরবর্তীতে নতুন করে সম্মেলনের তারিখ দেবেন।

ওই ঘোষণায় শাহদাব আকবর আরও বলেন, আপনারা আরও লক্ষ্য করেছেন যে, একটি কুচক্রী মহল (অনুপ্রবেশকারী) বার বার আপনাদের প্রিয় নেত্রী সৈয়দা সাজেদা চৌধুরীর বিরুদ্ধে অবস্থান নেন।

‘তারা এ সম্মেলন ঘিরেও নানা অভিসন্ধিমূলক কুৎসা রটনা করেছেন’ - মন্তব্য করে শাহদাব আকবর বলেন, আমরা এইসব ষড়যন্ত্রকারীদের রাজনৈতিকভাবে প্রতিহত করে নগরকান্দার মাটি থেকে গণতান্ত্রিক পন্থায় নির্মূল করবো।

উল্লেখ্য, গত ৮ ও ৯ নভেম্বর যথাক্রমে সালথা ও নগরকান্দায় আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভা করে ১৬ নভেম্বর এই দুই উপজেলার সম্মেলনের তারিখ ঘোষণা দেওয়া হয়।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জাতীয় সংসদের ফরিদপুর-২ (নগরকান্দা ও সালথা) সংসদীয় আসনের সাংসদ সৈয়দা সাজেদা চৌধুরীর সহকারী একান্ত সচিব মো: সফিউদ্দিন বলেন, ঢাকা বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক অসুস্থ থাকায় এ সম্মেলন স্থগিত করা হয়েছে। তিনি বলেন, দ্রুততম সময়ে এ সম্মেলনের আয়োজন করা হবে।

অপরদিকে সংসদ উপনেতার জেষ্ঠ্য পুত্র আয়মন আকবর বাবলু চৌধুরী তার ভাই লাবু চৌধুরীর বিরুদ্ধে দলে অনুপ্রবেশকারীদের নিয়ে সম্মেলন আয়োজনের অভিযোগ করে বলেন, আমি নগরকান্দা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি হওয়া সত্ত্বে তারা আমাকে ও উপজেলা আওয়ামী লীগের অনেক শীর্ষ নেতাকে না জানিয়েই একতরফাভাবে এই সম্মেলন অনুষ্ঠানের উদ্যোগ নিয়েছিল। যেখানে অনুপ্রবেশকারীদের দিয়ে তারা দল গঠনের পাঁয়তারা চালাচ্ছে।

সালথা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি দেলোয়ার হোসেন শাহদাব আকবরের এ ঘোষণার প্রতি তার সমর্থন ব্যক্ত করে বলেন, বিধিবহির্ভূত সম্মেলন বন্ধ করায় আমি খুশী হয়েছি।

তিনি বলেন, শাহদাব আকবর দলে ‘অনুপ্রবেশকারীদের’ প্রতিহত ও নির্মূল করার যে প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন তার সাথে আমি একমত।


আরো সংবাদ