১২ ডিসেম্বর ২০১৯

নিখোঁজের ২ দিন পর মেডিক্যাল ছাত্রের লাশ উদ্ধার

নয়ন চন্দ্র দে - ছবি : নয়া দিগন্ত

নিখোঁজের দুই দিন পর নয়ন চন্দ্র দে (২৪) নামে ফরিদপুর মেডিক্যাল কলেজের (ফমেক) পঞ্চম বর্ষের এক শিক্ষার্থীর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। আজ শনিবার সকালে শহর সংলগ্ন মুন্সিবাজার বাইপাস সড়কের পাশে একটি স’মিল থেকে গলায় দড়ি ঝোলানো অবস্থায় তার লাশ উদ্ধার করা হয়। গত বৃহস্পতিবার সকালে হোস্টেল থেকে বেরিয়ে নিখোঁজ ছিলেন নয়ন। মানসিকভাবে বিপর্যস্ততার কারণে তিনি আত্মহত্যা করেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

নয়নের বাড়ি ফেনী জেলার দাগনভূঞা উপজেলার আজিজ ফাজিলপুর এলাকায়। তার বাবার নাম মৃত দিলীপ চন্দ্র নাথ। গত শুক্রবার নয়নের নিখোঁজের ব্যাপারে ফমেক কর্তৃপক্ষের তরফ থেকে কোতয়ালী থানায় একটি সাধারণ ডায়রি করা হয়।

ফরিদপুর মেডিক্যাল কলেজের অধ্যক্ষ এসএম খবিরুল ইসলাম জানান, গত বৃহস্পতিবার নয়নের পরীক্ষা ছিল। কিন্তু সে অনুপস্থিত ছিলেন। দুপুর ১টার দিকে ছাত্ররা আমাকে জানায় নয়নকে পাওয়া যাচ্ছে না। পরে সিসি টিভি ফুটেজে দেখা যায়, সকাল ৯টার দিকে থ্রি কোয়ার্টার একটি প্যান্ট ও টি শার্ট পড়ে ছাত্রাবাস থেকে বের হয় নয়ন। এ সময় তার মোবাইল ফোন ও মানিব্যাগ রুমে রেখে যায়। এ ব্যাপারে কোতয়ালী থানায় সাধারণ ডায়রি করা হয়েছে।

নয়নের বন্ধু মো: ওয়াকিফ উল আলম জানান, নয়নের আকাঙ্ক্ষা ছিল একজন সার্জন হওয়ার। কিন্তু আঙ্গুলে সমস্যা থাকার কারণে সে সার্জন হতে পারবে না- এটা জানার পর সে হতাশায় ভুগছিলো। বেশকিছু দিন যাবত নয়ন মানসিকভাবে বিপর্যস্ত ছিল।

নিখোঁজ নয়নের ভাই উত্তম কুমার নাথ জানান, একজন সার্জন হতে পারবে না জেনে সে খুবই হতাশ হয়ে পড়েছিলো। সহপাঠীকে ‘আমি একটু আসছি’ বলে গত বৃহস্পতিবার সে রুম থেকে বের হয়।

এ ব্যাপারে কোতয়ালী থানার এসআই এনায়েত হোসেন বলেন, সকাল ৯টার দিকে মুন্সিবাজার বাইপাস সড়কে একটি স’মিল থেকে নয়ন চন্দ্র দে’র লাশ উদ্ধার করা হয়। স’মিলের দড়ি দিয়েই তার লাশটি আড়ার সাথে ঝুলানো ছিলো। ময়নাতদন্তের পর বিষয়টি পরিস্কার হবে এটি আত্মহত্যা কিনা।


আরো সংবাদ