২৪ জানুয়ারি ২০২০

ফরিদপুরে সাড়ে ৪ বছরের শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ দাদার বয়সী ব্যক্তির বিরুদ্ধে

-

ফরিদপুরে বাড়ির পাশের দাদার বয়সী ৫৫ বছরের এক অটোরিকশা চালকের বিরুদ্ধে চকলেটের প্রলোভন দেখিয়ে সাড়ে ৪ বছরের এক মেয়েশিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। অসুস্থ ওই শিশুটিকে আজ সোমবার সকালে ফরিদপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

তবে অসুস্থ ওই শিশুকে হাসপাতালে আনতে বাধা দিয়ে বিষয়টি সালিশে মীমাংসার চেষ্টা করা হয় বলেও অভিযোগ পাওয়া গেছে।

সদর উপজেলার ঈশান গোপালপুর ইউনিয়নের চাঁদপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

ওই শিশুটির বাবা একজন রাজমিস্ত্রি (২৫)। তিনি অভিযোগ করে বলেন, গতকাল রোববার দুপুরে মেয়েকে ফুফুর কাছে রেখে পাতা ঝাড়– দিতে যান তার স্ত্রী। এসময় বাড়ির পাশের প্রতিবেশী অটোরিকশা চালক আব্দুল হাই মল্লিক (৫৫) চকলেটের প্রলোভন দেখিয়ে তার মেয়েকে ঘরের মধ্যে ডেকে নিয়ে মুখ চেপে ধর্ষণ করেন।

নির্যাতিতা শিশুটির মা জানান, প্রতিবেশী এক ভাবি তার মেয়েকে না দেখতে পেয়ে নাম ধরে ডাকতে থাকেন। একপর্যায়ে আব্দুল হাই মল্লিকের ঘর থেকে সে বের হয়ে এসব কথা জানায়। তিনি জানান, এসময় তার মেয়ের রক্তক্ষরণ হচ্ছিলো। মেয়েকে নিয়ে হাসপাতালে যেতে চাইলে তাদের বাধা দেয় আব্দুল হাই মল্লিকের স্বজনরা।

ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক ফারজানা আক্তার জানান, শিশুটির চিকিৎসা চলছে। ডাক্তারী প্রতিবেদন না পাওয়া পর্যন্ত এব্যাপারে কোনো মন্তব্য করতে পারছি না।

এদিকে, শিশুটির বাবা অভিযোগ করেন, ঈশান গোপালপুর ওয়ার্ড যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক শামীম মল্লিক রোববার সন্ধ্যায় আব্দুল হাই মল্লিকের বাড়িতে একটি সালিশ করেন। ওই সালিসে এব্যাপারে আর ‘বাড়াবাড়ি না করার জন্য তাদের বলা হয়’ এবং আব্দুল হাই মল্লিকের সাথে তার মিলমিশ করিয়ে দেন।

এঘটনায় রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত থানায় কোনো অভিযোগ দাখিল করা হয়নি। শিশুটির বাবা বলেন, তিনি বর্তমানে তার মেয়ের চিকিৎসা নিয়ে ব্যস্ত আছেন। সুস্থ হওয়ার পর এ ব্যাপারে তিনি আইনগত ব্যবস্থা নেবেন।

এব্যাপারে শামীম মল্লিকের বক্তব্য জানা যায়নি। তবে ঈশান গোপালপুর ইউনিয়নের ইউপি চেয়ারম্যান ও জেলা যুবলীগের সদস্য শহিদুল ইসলাম মজনুর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, এব্যাপারে তিনি কিছু জানেন না। তার জানা মতে, শামীম মল্লিক ঢাকায় থাকেন।

তিনি বলেন, এ জাতীয় কোনো ঘটনা ঘটে থাকলে তা গুরুতর ও ন্যাক্কারজনক। তিনি বলেন, যে এ ঘটনা ঘটিয়েছে তাকে অবশ্যই শাস্তি পেতে হবে ।

ফরিদপুর কোতয়ালী থানার দ্বিতীয় কর্মকর্তা উপ-পরিদর্শক (এসআই) বেলাল হোসেন বলেন, পুলিশ খবর শুনে হাসপাতালে অসুস্থ ওই শিশুটিকে দেখে এসেছে। তিনি বলেন, এ ব্যাপারে শিশুটির বাবাকে মামলা করতে পরামর্শ দেয়া হয়েছে।


আরো সংবাদ