২২ ফেব্রুয়ারি ২০২০

সেই গলাকাটা হত্যা মামলার বাদীর রহস্যজনক মৃত্যু

টাঙ্গাইলের নাগরপুরে গলাকেটে হত্যা মামলার বাদী মো. উজ্জল মিয়ার (৩৮) ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে নাগরপুর থানা পুলিশ। নিহত উজ্জল মিয়া উপজেলার ধুবড়িয়ার পূর্বপাড়া গ্রামের মৃত বদ্দু মিয়ার ছেলে। গত ১৭ ডিসেম্বর উজ্জল মিয়ার ছেলে বিপ্লবের গলাকাটা লাশ ধুবড়িয়ার কুষ্টিয়া বিলের পাশে সরিষাক্ষেত থেকে উদ্ধার করে পুলিশ। এ নিয়ে গত ১৮ ডিসেম্বর দৈনিক নয়া দিগন্তে ‘নাগরপুরে তরুণকে গলাকেটে হত্যা’ শিরোনামে প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। ছেলে হত্যার ঘটনায় নিহতের বাবা উজ্জল মিয়া সেসময় বাদী হয়ে নাগরপুর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছিলেন।

এলাকাবাসী ও পরিবার সূত্রে জানা যায়, মঙ্গলবার (২৮ জানুয়ারি) সকালে নিহত উজ্জল তার স্ত্রীকে নিয়ে ঢাকায় যাওয়ার প্রস্তুতি নেয়ার কথা বলে বাড়ি থেকে বের হয়। একপর্যায়ে দুপুর গড়িয়ে বিকেল হলেও তিনি বাড়ি ফেরেননি। বিকেলে স্থানীয়রা লক্ষীদিয়া গ্রামের শোভা মিয়ার মেহগনি বাগানে গলায় লুঙ্গি পেঁচিয়ে ফাঁস নিয়ে ঝুলন্ত অবস্থায় উজ্জলের লাশ দেখতে পায়। পরে খবর পেয়ে সন্ধ্যায় থানা পুলিশ ঘটনাস্থল গিয়ে লাশ উদ্ধার করে।

এ বিষয়ে নাগরপুর থানার পুলিশ ইন্সপেক্টর (তদন্ত) গোলাম মোস্তফা মন্ডল জানান, মঙ্গলবার বিকেলে নিহত উজ্জল মিয়ার লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ বিষয়ে একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের করা হয়েছে। এটি হত্যা নাকি আত্মহত্যা, সেটা ময়নাতদন্তের পর জানা যাবে।


আরো সংবাদ