১৪ ডিসেম্বর ২০১৯

বিশ্বসাহিত্যের টুকিটাকি

-

প্রথম উপন্যাস লিখেই বেস্ট সেলার লেখক স্টিফানে
স্টিফানে লরেকে একজন ভাগ্যবান তরুণ ঔপন্যাসিকই বলতে হবে। কেননা ৩৮ বছর বয়সে একটিমাত্র উপন্যাস লিখেই তিনি বেস্ট সেলার লেখকের তালিকায় নাম লিখিয়েছেন। তার এই উপন্যাসের নাম ‘দ্য ডিশ ওয়াশার’। তিনি নিজে একজন রেস্তোরাঁকর্মী ও মালিকও বটেÑ কখনো কখনো তাকে রেস্তোরাঁর বাসনকোসন মানে ডিশ ওয়াশ করতে হয়, ধুতে হয়। তিনি এই কাজের পাশাপাশি লেখালেখির সাথেও যুক্ত। অর্থাৎ কাজের ফাঁকে লেখেন। স্টিফানের জন্ম কানাডার কুইবেক অঞ্চলে, ১৯৮৩ সালে। তার এই ডেব্যু উপন্যাসটি ২০১৭ সালের কানাডার গভর্নর জেনারেলস অ্যাওয়ার্ডের জন্য শর্ট লিস্টে স্থান পেয়েছিল। এ বছরই এটি ইংরেজি ভাষায় অনূদিত হয়। স্টিফানে যে এলাকায় বেড়ে উঠেছেন, সেখানে ফরাসি ভাষা প্রচলিত। ফলে বইটি লেখা হয়েছিল ফরাসি ভাষায়। উপন্যাসটি কুইবেকের প্রি দে লাইব্রেরিস ডু কুইবেক পুরস্কারে ভূষিত হয়। পরে কুইবেক সেংগোর পুরস্কারও লাভ করে। এ বছরের আগস্টে ‘বিবলিওসিস’ প্রকাশনা সংস্থা এর ইংরেজি অনুবাদ প্রকাশ করে। অনুবাদ করেন পাবলো ট্রাউস। স্টিফানে নিজের বইটিকে হালকা মেজাজের বই বলে বর্ণনা করেছেন। এটি ১৯ বছর বয়সী এক হোটেল কর্মীর কাহিনী। তার ভাষা বৈশিষ্ট্য অনন্য বলে সমালোচকদের অভিমত।

গ্রিসে অ্যাথেন্স বুক ফেয়ার
সম্প্রতি গ্রিসের রাজধানী অ্যাথেন্সে হয়ে গেল অ্যাথেন্স বুক ফেয়ার ২০১৯। অ্যাথেন্সের কালচারাল অর্গানাইজেশন অ্যান্ড হিস্ট্রিক্যাল আর্কাইভের সহযোগিতায় অ্যাসোসিয়েশন অব বুক পাবলিশার্স এই মেলার আয়োজন করে। গ্রিস হচ্ছে প্রাচীন ইতিহাস-ঐতিহ্য ধারণকারী দেশ। গ্রিক ভাষার পাশাপাশি ইংরেজি ভাষার বইও সে দেশে ভালো চলে। ২৫০টির বেশি প্রকাশনা সংস্থা এ বইমেলায় অংশ নেয়। পক্ষকালব্যাপী এই মেলা উপলক্ষে নতুন বই যেমন প্রকাশ ও প্রদর্শন করা হয়েছে, সেই সাথে হয়েছে আলোচনা, সমালোচনা ও লেখক-পাঠক মিলনমেলা। এ বছর মেলার সাথে যুক্ত হয়েছে প্রযুক্তি। কারণ এথেন্স ইউরোপীয় নগরী হওয়ার কারণে প্রযুক্তিতে এগিয়ে থাকবে, এটাই স্বাভাবিক। মেলার সাফল্যে কর্তৃপক্ষ খুশি। খুশি লেখক-পাঠকেরাও।

 


আরো সংবাদ