১২ নভেম্বর ২০১৯

আরো ৯ জেলায় ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেত

-

শনিবার বিকেল বা সন্ধ্যায় বাংলাদেশের উপকূলীয় এলাকায় আঘাত হানার কথা ছিল ভয়ঙ্কর ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’। তবে এটা বিকেল বা সন্ধ্যায় বাংলাদেশের কোনো এলাকায় আঘাত হানেনি। তবে শনিবার মধ্যরাতের দিকে এটি বাংলাদেশের বিভিন্ন এলাকায় আঘাত হানতে পারে বলে জানা গেছে। এছাড়া বাংলাদেশ সময় শনিবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে ঘূর্ণিঝড় বুলবুল ভারতের পশ্চিমবঙ্গে আঘাত হেনেছে বলে ভারতীয় সংবাদ মাধ্যমে জানানো হয়েছে।

এর আগে ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের তাণ্ডবের আশঙ্কায় মোংলা ও পায়রা সমুদ্রবন্দরে ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেত ও চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দরে ৯ নম্বর মহাবিপদ সংকেত ঘোষণা করা হয়। তবে আবহাওয়া অধিদপ্তরের সর্বশেষ বিশেষ বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী, মোংলা ও পায়রা সমুদ্রবন্দরকে ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেত দেখিয়ে যেতে বলার পাশাপাশি একইসাথে দেশের ৯টি উপকূলীয় জেলাকেও ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে।

ওই ৯টি উপকূলীয় জেলা হলো- ভোলা, বরগুনা, পটুয়াখালী, বরিশাল, পিরোজপুর, ঝালকাঠি, বাগেরহাট, খুলনা ও সাতক্ষীরা। এই জেলাগুলোর অদূরবর্তী দ্বীপ ও চরসমূহও ওই সংকেতের আওতায় থাকবে। এরই মধ্যে ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের ক্ষয়ক্ষতি মোকাবেলায় উপকূলীয় জেলা সাতক্ষীরায় সেনাবাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে।

ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ এর প্রভাবে এই ৯টি জেলাসহ চট্টগ্রাম, নোয়াখালী, লক্ষ্মীপুর, ফেনী, চাঁদপুর এবং তাদের অদূরবর্তী দ্বীপ ও চরগুলোর নিম্নাঞ্চল স্বাভাবিক জোয়ারের চেয়ে ৫-৭ ফুট অধিক উচ্চতার জলোচ্ছ্বাসে প্লাবিত হতে পারে।


আরো সংবাদ