১২ ডিসেম্বর ২০১৯

পবিপ্রবিতে ছাত্র বিক্ষোভ, প্রশাসনিক ভবনে তালা

পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (পবিপ্রবি) সিএসই অনুষদের স্বতন্ত্র ইউনিটসহ ৯ দফা দাবিতে চলমান ছাত্র বিক্ষোভে উত্তাল হয়ে ওঠেছে ক্যাম্পাস। বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা সোমবার পুনরায় প্রশাসনকি ভবন তালাবদ্ধ করে প্রধান গেটে অবসস্থান কর্মসূচি ও সমাবেশ করায় ভিসি-রেজিষ্ট্রার কার্যালয়ের সকল কর্মকর্তা-কর্মচারীসসহ বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন অবরুদ্ধ হয়ে পড়েছে।

স্বতন্ত্র ইউনিট চালু, পবিপ্রবি’র নামের যথার্থতা রক্ষায় ইঞ্জিনিয়ারিং অনুষদের আওতাধীন রেখে সিএসই’র সাথে ইসিই, ইইই, এমই ডিপার্টমেন্ট চালুসহ ৯ দফা বাস্তবায়নের দাবিতে সোমবার (১১ নভেম্বর) সকাল সাড়ে ১০টার দিকে সিএসই অনুষদের সকল সেমিষ্টারের শিক্ষার্থীরা প্রশাসনিক ভবনের সামনে বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে অবস্থান কর্মসূচি শুরু করে। সমাবেশের একপর্যায়ে বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা প্রশাসনিক ভবনের প্রধান গেট তালাবদ্ধ করে দেয়। এতে রেজিষ্ট্রারসহ প্রশাসনিক ভবনের সকল বিভাগের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা অবরুদ্ধ হয়ে পড়েন।

সমাবেশে বক্তৃতা করেন- আবদুল্লাহ মো: নাঈম, ইসরাক বিশাল, তানভির আহম্মেদ খান, মো: ইমরান খান প্রমুখ। বক্তারা বলেন, সিএসই অনুষদের স্বতন্ত্র ইউনিট হিসেবে স্বীকৃতি, ভর্তি পরিক্ষায় অংশগ্রহণের জন্য ন্যূনতম রেজাল্ট ৮.০০, ভর্তি পরিক্ষার সম্পূর্ণ বিবরণসহ নম্বর প্রকাশ, নতুন ইঞ্জিনিয়ারিং বিষয় খোলা, ক্লাসরুম, শিক্ষক ও ল্যাব সংকট দূর করাসহ একাডেমিক সকল কার্যক্রম অটোমেশন করতে হবে।

কম্পিউটার সায়েন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং অনুষদের শিক্ষার্থী আবদুল্লাহ নাঈম বলেন, আমরা যৌক্তিক দাবি নিয়েই আন্দোলনে এসেছি। আমাদের দাবি মানা না হলে সকল ধরণের ক্লাস-পরীক্ষা বর্জনসহ আরো কঠোর কর্মসূচি দেয়া হবে। এর আগে গত ৭ নভেম্বর বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিষ্ট্রার বরাবরে উল্লেখিত ৯ দফা দাবি সম্বলিত একটি স্মারকলিপি পেশ করা হয়।

পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার অধ্যাপক ড. স্বদেশ চন্দ্র সামন্তের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি এ ব্যাপারে কোনো বক্তব্য দিতে অনীহা প্রকাশ করেন।


আরো সংবাদ