১১ ডিসেম্বর ২০১৯

শেষ সময় পর্যন্ত দেখবেন বুয়েট শিক্ষার্থীরা

-

শিক্ষাথী‌দের তিন দফা দা‌বি পূর‌ণে প্রশাসনের চেয়ে নেয়া তিন সপ্তাহ সময়ের শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত দেখবেন আন্দোলনরত বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। শিক্ষার্থীদের তিন দফা দাবির মধ্যে ছিল আবরার হত্যায় অভিযুক্তদের বু‌য়েট থেকে আজীবন বহিষ্কার, হলগুলোতে ইতোপূর্বে র‌্যাগিংয়ে জড়িতদের শাস্তি নিশ্চিত করা ও অপরাধের মাত্রা অনুযায়ী শাস্তির বিধান স্পষ্ট করা।

জানতে চাইলে বুয়েটের একজন শিক্ষার্থী জানান, আমাদের তিন দফা পূরণে ভি‌সি স্যার তিন সপ্তাহ সময়ে চেয়েছিলেন। এখন মাত্র এক দফা পূরন হয়েছে। র‌্যাগে অভিযুক্তদের শাস্তি এখনো নিশ্চিত হয়নি। এছাড়া আমরা বলেছিলাম অপরাধের মাত্রা অনুযায়ী শাস্তির বিধান স্পষ্ট করার। তিনি বলেন, আবরার হত্যায় অভিযুক্ত‌দের বু‌য়েট থেকে আজীবন বহিষ্কার করা হয়েছে তা‌তে আমরা স্বস্তিবোধ করছি।

বু‌য়ে‌টের ১৭তম ব্যা‌চের অপর এক শিক্ষার্থী ব‌লেন, আমরা আশা করছি বুয়েট প্রশাসন বু‌য়েটের নিরাপত্তা ও সার্বিক বিবেচনায় আমাদের দাবিগুলো পূরণ করবেন। তিনি বলেন, দীর্ঘদিন থেকে ক্ষমতাসীন রাজনৈতিক ছাত্র সংগঠনের নেতা-কর্মীদের কাছে সাধারণ শিক্ষার্থীরা জিম্মি হয়ে পড়েছিল। বিভিন্ন সময়ে তারা প্রশাসনের কাছে অপরাধগুলোর অভিযোগ জানিয়ে আসলেও কোনো প্রতিকার পায়নি। ছোট ছোট ঘটনায় প্রশাসন কোন প্রতিকারমূলক ব্যবস্থা না নেয়ায় প‌রে আবরার হত্যার মত ঘটনা ঘটেছে। আমরা আশা করব দ্রুত সময়ে বুয়েটের স্বাভাবিক পরিবেশ ফিরে আসবে। তা‌তে করে আমরা একাডেমিক কার্যক্রমে ফিরে যাব ।

১৬তম ব্যাচের আহসান উল্লাহ হ‌লের এক শিক্ষার্থী বলেন, এরই মধ্যে আমরা এক মাস পিছিয়ে গেছি। এক মাস আ‌গে আমাদের পরীক্ষার তারিখ ঘোষণা করার কথা থাকলেও আবরার হত্যার ঘটনায় আন্দোলনরতদের তিন দফা দাবি পূরণ না হওয়ায় প্রশাসন পরীক্ষার তারিখ ঘোষণা করতে পারেনি। আমরা আশা করছি অভিযুক্তদের যেমন স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করা হয়েছে পাশাপাশি র্যা‌গে জড়িতদের শাস্তির আওতায় এনে বুয়েটের স্বাভা‌বিক পরিবেশ ফিরে আসবে এবং আমরা একাডেমিক কার্যক্রমে ফিরে যাব।

বৃহস্প‌তিবার মধ্যরা‌তে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদ হত্যার ঘটনায় ছাত্রলীগের নেতাসহ অভিযুক্ত‌দের আজীবন বহিষ্কার করেছে বুয়েট প্রশাসন।

এছাড়া শিক্ষার্থীকে বিভিন্ন মেয়াদে শাস্তি দেয়া হয়েছে। আবরার হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় গঠিত তদন্ত কমিটির প্রতিবেদনের ভিত্তিতে বোর্ড অফ প্রেসিডেন্ট অ্যান্ড ডিসিপ্লেনা‌রি বোর্ড  সিদ্ধান্ত নেয়।

বৃহস্পতিবার রাতে ছাত্রকল্যাণ পরিদপ্তরের পরিচালক অধ্যাপক ড. মিজানুর রহমান খান স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, আজীবন বহিষ্কার করা ২৬ জনের মধ্যে ২৫ জন পুলিশের অভিযোগপত্র অনুযায়ী অভিযুক্ত। এছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়ের শৃঙ্খলা ভঙ্গের কারণে আরও ছয়জনকে বিভিন্ন মেয়াদে শাস্তি প্রদান করা হয়ে‌ছে। জানা যায়, বহিষ্কৃতদের মধ্যে ১২জন বুয়েট শাখা ছাত্রলীগের বিভিন্ন পদে ছিলেন। অপর আসামিরাও ছাত্রলীগের কর্মী বা সমর্থক ছিলেন। এর আগে গত ১৩নভেম্বর আবরার হত্যার ঘটনায় ২৫জনকে আসামি করে আদালতে অভিযোগপত্র জমা দেয় গোয়েন্দা পুলিশ। গ্রেফতারকৃত আসামিরা আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। তাদের জবানবন্দিতে হত্যাকাণ্ডে অপর আসামিদের সম্পৃক্ততা উঠে আসে।


আরো সংবাদ