২২ জানুয়ারি ২০২০

জাবি ভিসির দুর্নীতির খতিয়ান প্রকাশ

জাবি ভিসির বিরুদ্ধে ২২৮ পৃষ্ঠার দুর্নীতির খতিয়ানে প্রকাশ করা হয়েছে - ছবি : নয়া দিগন্ত

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি ফারজানা ইসলামের দুর্নীতির খতিয়ান প্রকাশ করেছে ‘দুর্নীতির বিরুদ্ধে জাহাঙ্গীরনগর’। আজ মঙ্গলবার বিকালে নতুন কলা ভবনে এক সংবাদ সম্মেলনে এ খতিয়ান প্রকাশ করা হয়।

২২৮ পৃষ্ঠার এ খতিয়ানে ভিসি অধ্যাপক ফারজানা ইসলামের নানা অনিয়ম, দুর্নীতি ও স্বেচ্ছাচারিতা, মহাপকিল্পনায় গলদ ও আন্দোলনে হামলার তথ্যচিত্র প্রকাশ করা হয়।

দুর্নীতির খতিয়ান সংকলনের প্রথমে বলা হয়, ‘বিশ্ববিদ্যালয় পরিচালনার বিধিগুলো ভিসিকে ক্ষমতার যে উচ্চাসনে বসায় তার সাথে সরকারনির্ভরতা ও অনুগত দলগুলোর চাপ ভিসিকে ঠেলে দেয় দুর্নীতি, স্বেচ্ছাচার, অনিয়ম ও সন্ত্রাসের দিকে। এক্ষেত্রে দুর্নীতির প্রধান ক্ষেত্র হয়ে উঠে উন্নয়ন ও নিয়োগ। বিশ্ববিদ্যালয়কেন্দ্রীক উন্নয়ন প্রকল্প এবং শিক্ষক-কর্মকর্তা ও কর্মচারী নিয়োগের কর্তৃত্ব ভিসি পদটিকে লোভনীয় করে তোলে।’

খতিয়ান প্রকাশকালে আন্দোলনকারী অধ্যাপক জামাল উদ্দিন রুনু বলেন, ‘জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিকতর উন্নয়নের জন্য একটা বড় বাজেট আসার পরেই ভিসির আসল রূপ বেরিয়ে আসে। যখন শিক্ষক শিক্ষার্থীরা এসব অনিয়মের বিরুদ্ধে কথা বলেছে তখনি তিনি হামলা মামলা দিয়েছেন। গত ৫ নভেম্বরে ভিসির নির্দেশে আন্দোলনকারীদের ওপর ছাত্রলীগের একাংশের হামলার পর ফারজানা ইসলাম ভিসি পদে থাকার নৈতিক অধিকার হারিয়েছেন।’

এছাড়াও দুর্নীতিবিরোধী ইশতেহারে সমস্ত বাণিজ্যিক কোর্স ও বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনার বাণিজ্যিক ব্যবহার বন্ধ করা, ভিসি প্যানেল নির্বাচন ব্যতীত ভিসি নিয়োগ না করা, ছাত্র সংসদ নির্বাচনের মাধ্যমে সিনেট পূর্ণাঙ্গ করাসহ সাত দফা প্রস্তাব জানানো হয়।

এসময় সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন দুর্নীতির বিরুদ্ধে জাহাঙ্গীরনগরের মুখপাত্র অধ্যাপক রায়হান রাইন, অধ্যাপক আব্দুল জব্বার হাওলাদার, অধ্যাপক খবির উদ্দিন, অধ্যাপক জামাল উদ্দিন রুনু, অধ্যাপক তারেক রেজা, অধ্যাপক মির্জা তাসলিমা সুলতানা, অধ্যাপক শামীমা সুলতানা ও সহযোগী অধ্যাপক খন্দকার হাসান মাহমুদসহ বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন, ছাত্রফ্রন্ট, জাহাঙ্গীরনগর সাংস্কৃতিক জোট এবং বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের নেতাকর্মীরা।


আরো সংবাদ