২৬ মার্চ ২০১৯

ভোটের জেরে 'একঘরে' গ্রাম

রাজশাহীর তানোরের কলমা গ্রাম - বিবিসি

একাদশ জাতীয় নির্বাচনে সহিংসতার জের ধরে রাজশাহীতে কলমা নামের একটি গ্রাম অনেকটা 'একঘরে' হয়ে পড়েছে বলে জানিয়েছেন স্থানীয়রা।

এখন কেউ যেমন এই গ্রামে যাচ্ছেন না, সেখানকার লোকজনের সাথে মিশছেন না, তেমনি ওই গ্রামের কাউকে আশেপাশের গ্রামেও প্রবেশ করতে দেয়া হচ্ছে না বলে জানাচ্ছেন সেখানকার স্থানীয় বাসিন্দারা। তবে পরিস্থিতি শান্ত করতে চেষ্টা করছে প্রশাসনের কর্মকর্তারা।

গ্রামটি ঘুরে সংবাদদাতা আনোয়ার আলী বলছেন, ''গ্রামের মানুষজন ভীত সন্ত্রস্ত এবং এলাকার দোকানপাটই বেশিরভাগই বন্ধ। গ্রামের যে রাস্তা দিয়ে বাস চলাচল করতো, সেখানে এখন আর কোনো বাস বা যানবাহন চলাচল করছে না। গ্রামের যে রিক্সা ভ্যানগুলো আছে, তারা একগ্রাম থেকে আরেকগ্রামেও যেতে পারছে না।''

স্থানীয়দের সাথে কথা বলে তিনি জানান, ঘটনার সূত্রপাত হয় নির্বাচনের কয়েক দিন আগে থেকে। কলমা গ্রামটির বেশিরভাগ বাসিন্দাই বিএনপি সমর্থক, যাদের সাথে আওয়ামী লীগ কর্মীদের কয়েকদিন ধরেই উত্তেজনা চলছিল।

নির্বাচনের আগের দিন বিকালে স্থানীয় কলমা বাজারে, আওয়ামী লীগ সমর্থিত কলমা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও তার কর্মী-সমর্থকদের ধাওয়া করে মারধর করা হয়। ফলে নির্বাচনের পর দিন থেকে গ্রামের দুইদিকে পাহারা বসায় আওয়ামী লীগ কর্মী-সমর্থকরা। তারা গ্রামে যেমন কাউকে ঢুকতে দেয়নি, তেমনি কাউকে বের হতেও দেয়নি - এমনটাই বলছেন সাংবাদিক আনোয়ার আলী।

ধানের শীষে ভোট দেয়ায় অবরুদ্ধ : বিএনপি নেতা

তানোর উপজেলা চেয়ারম্যান ও বিএনপি নেতা মিজানুর রহমান দাবি করেন, ওই গ্রামের লোকজন বিএনপির প্রার্থীকে ভোট দেয়ার কারণেই তাদের 'অবরুদ্ধ' করে রাখা হয়েছে।

তিনি বলেন, ''নির্বাচনের তিন দিন আগে থেকে যুবলীগের 'ময়না বাহিনী' নামে নেতাকর্মীরা বিভিন্ন এলাকায় গিয়ে লাঠিসোটা নিয়ে বিএনপির নির্বাচনী অফিস ক্যাম্পগুলো ভাঙচুর করছিল। তারা যখন এভাবে কলমা ইউনিয়নে বিএনপির তিন নেতার বাসায় ভাঙচুর করে।"

"ভোটের আগের দিন তারা কলমা বাজারে গেলে তাদের সাথে এলাকার লোকের গণ্ডগোল হয়। কেন ভোট দিয়েছে বিএনপিকে- তার জের ধরেই ভোটের পরদিন থেকে তারা ওই এলাকার বিদ্যুৎ লাইন বন্ধ করে দিয়েছে, সেচের চাবি নিয়ে নিয়েছে, বাসচালকদের নিষেধ করে দিয়েছে যেন গ্রামের ভেতর থেকে না যায়।''

তিনি জানান, ''এখন আমরা সব এলাকা শূন্য। বিএনপির কোনো নেতাকর্মী এলাকায় নেই, সবাই বাইরে বাইরে আছি।''

সহিসংতার কারণেই বর্জন : যুবলীগ নেতা

কলমা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও উপজেলা যুবলীগের সভাপতি লুৎফর রহমান বলছেন, গ্রামটি অবরোধের কোনো ঘটনা ঘটেনি, বরং সহিংসতার কারণে গ্রামটিকে বর্জন করা হয়েছে।

তিনি বলছেন, ''২৭ তারিখে কলমা বাজারে আমাদের একটি ক্যাম্প ভাঙচুর করে। নির্বাচনের আগের দিন সেখানে আবার পোস্টার লাগানোর জন্য সেখানে গেলে আমাদের ওপর হামলা করা হয়। আমি কোনোরকম পালিয়ে আসি, আমার পাঁচ-ছয়জন নেতাকর্মীকে জখম করে।''

''ওই গ্রামের লোকজনের তাণ্ডব দেখার পরে আমরাই আতঙ্কে আছি ওই গ্রামের ভেতর ঢুকতে। তাই আমরা কেউ সেখানে যাচ্ছি না। আমাদের ছেলেমেয়েদের সেখানে স্কুলে পাঠাচ্ছি না।"

তিনি বলছেন, "অন্য গ্রামের সবাই তাদের বর্জন করেছে, ওদের সাথে আমরা কেউ মেলামেশা করছি না। হয়তো তারাও ভয়ে বের হচ্ছে না।''

কাউকে সহিংসতায় না জড়ানোর জন্য স্থানীয় এমপি ওমর ফারুক চৌধুরী সবাইকে আহবান জানিয়েছেন বলেও তিনি বলছেন।

তবে গ্রামটিকে অবরুদ্ধ করে রাখা হয়েছে বা তাদের ভয়ভীতি দেখানোর অভিযোগ সত্য নয় বলে তিনি জানান।

গ্রামের বাইরে যাওয়ার চেষ্টায় 'মারধর'
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক গ্রামটির একজন বাসিন্দা অবশ্য বলছেন, তাদের গ্রামের কয়েকজন বাসিন্দা, অটোরিকশা চালক গ্রাম থেকে অন্যত্র যাওয়ার চেষ্টা করছে মারধর করে ফেরত পাঠানো হয়েছে। ফলে এখন আর কেউ গ্রাম থেকে বের হওয়ার চেষ্টা করছেন না।

স্থানীয় সংবাদদাতারা বলছেন, আওয়ামী লীগ ও বিএনপির স্থানীয় নেতাকর্মীদের নিয়ে শনিবার ও রোবার গ্রামবাসীর সাথে বৈঠক করে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করার চেষ্টা করছে প্রশাসন।

প্রশাসন বলছে ভুল বোঝাবুঝি
তানোর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা চৌধুরী মোঃ গোলাম রাব্বী বিবিসি বাংলাকে বলছেন, ''এটা আসলে ভুল বোঝাবুঝির একটি বিষয়। নির্বাচনের আগে থেকেই একটি রেষারেষি ছিল।"

"সেই কারণেই ওই গ্রামের লোকজন অন্য গ্রামে যেতে পারছে না। আওয়ামী লীগের লোকজন যেমন ওই গ্রামে যেতে ভয় পাচ্ছে, ওই গ্রামের লোকজনও অন্য গ্রামে যেতে ভয় পাচ্ছে।''

তিনি জানান, ''তাদের সাথে কথা বলে আমরা বিষয়টি সুরাহা করে দিয়েছি, যে সবাই সবজায়গায় যেতে পারবে বা আসতে পারবে। ভয়ভীতির কোনো কারণ নেই।"

"প্রশাসনের পক্ষ থেকে নেতাকর্মীসহ সবাইকে আমরা বুঝিয়েছি, পুলিশও সতর্ক রয়েছে।''


আরো সংবাদ

মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উপলক্ষে সেনা ও নৌবাহিনীতে অনারারি কমিশন প্রদান স্বাধীনতা দিবসের বাণীতে বিএনপি সার্বভৌমত্বকে বিপন্ন করতে দেশী-বিদেশী মহল ততপর শেখ হাসিনার হাতেই বাংলাদেশ নিরাপদ : পানিসম্পদ উপমন্ত্রী রাষ্ট্রবিরোধী অপপ্রচারের অভিযোগে সাবেক ছাত্রদল নেতা আশেক গ্রেফতার এক মিনিট ব্ল্যাকআউট কর্মসূচি পালন ঘুষ না খাওয়ার শপথ পড়ালেন অর্থমন্ত্রী ঘুষ না খাওয়ার শপথ পড়ালেন অর্থমন্ত্রী ষ ঘুষ না খাওয়ার শপথ পড়ালেন অর্থমন্ত্রী ষ নারায়ণগঞ্জের এমপি খোকাকে নির্বাচনী এলাকা ছাড়ার নির্দেশ বিএনপি নেতা রবিউল আউয়ালের সন্ধান দাবি মানবতাবিরোধী অপরাধ মামলায় গাইবান্ধার ৯ জনের বিরুদ্ধে তদন্ত প্রতিবেদন

সকল