২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯

প্রিয়া সাহার অভিযোগ ‘ভয়ঙ্কর মিথ্যাচার’ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়

-

বাংলাদেশে সংখ্যালঘু জনগোষ্ঠী নির্যাতিত হচ্ছে বলে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের কাছে বাংলাদেশী নাগরিক প্রিয়া সাহা যে অভিযোগ করেছেন সরকার তাকে ‘ভয়ঙ্কর মিথ্যা’ বলে অভিহিত করেছে।
গতকাল পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে জানায়, বাংলাদেশ সরকার প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের কাছে প্রিয়া সাহার ভয়ঙ্কর মিথ্যা অভিযোগের কঠোর প্রতিবাদ এবং তার বক্তব্যের তীব্র নিন্দা জানাচ্ছে। প্রিয়া সাহার এ চরম মিথ্যাচার এবং সাজানো গল্পের পেছনে অশুভ উদ্দেশ্য রয়েছে। তার বক্তব্যের লক্ষ্য ছিল বাংলাদেশের ইমেজ ক্ষুণœ করা।
বিবৃতিতে বলা হয়, ১৮ জুলাইয়ের একটি ভিডিওর প্রতি বাংলাদেশ সরকারের দৃষ্টি আকৃষ্ট হয়েছে। এতে প্রিয়াকে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের সাথে কথা বলতে দেখা যায়। প্রিয়া এ সময় ট্রাম্পকে জানান, বাংলাদেশে হিন্দু, বৌদ্ধ ও খ্রিষ্টান সম্প্রদায়ের তিন কোটি ৭০ লাখ মানুষ নিখোঁজ রয়েছে। মুসলিম মৌলবাদীরা তার জমি দখল করে নিয়েছে বলে অভিযোগ করে হিন্দু, বৌদ্ধ ও খ্রিষ্টান সম্প্রদায়ের লোক যাতে বাংলাদেশে বসবাস করতে পারে সে জন্য ট্রাম্পের সহযোগিতা কামনা করেন প্রিয়া সাহা।
বিবৃতিতে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলেছে, বাংলাদেশ ধর্মীয় স্বাধীনতা ও সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির বাতিঘর, এখানে সব বিশ্বাসের লোক দীর্ঘকাল ধরে শান্তিতে বসবাস করে আসছে। মিয়ানমার থেকে জোরপূর্বক বাস্তুচ্যুত ১১ লাখের বেশি রোহিঙ্গাকে অস্থায়ীভাবে আশ্রয় দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল বাংলাদেশ। বাংলাদেশের মানবিক আচরণ ও উদারতার প্রশংসা করেছে গোটা বিশ্ব।
বিবৃতিতে বলা হয়, প্রিয়া এসব কথা যখন ট্রাম্পকে বলছিলেন তখন ওয়াশিংটনে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দফতরের আয়োজনে ধর্মীয় স্বাধীনতাবিষয়ক মন্ত্রীপর্যায়ের আন্তর্জাতিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হচ্ছিল। বাংলাদেশ সরকার আশা করছে, এ ধরনের বিরাট আন্তর্জাতিক আয়োজনে আয়োজকরা সত্যিকার দায়িত্বশীল ব্যক্তিদের আমন্ত্রণ জানাবেন, যারা ধর্মীয় স্বাধীনতার চেতনা ও মূল্যবোধ সমুন্নত রাখার ক্ষেত্রে কার্যকর অবদান রাখবেন।

 


আরো সংবাদ